Realme c2s কি আদেও বাংলাদেশে আছে? থাকলে কোথায় পাবেন! | সাথে ফুল রিভিউ!

আসসালামু আলাইকুম কি অবস্থা সবার আশা করছি আল্লাহর রহমতে সবাই ভালই আছেন!
ফেসবুক ইউটিউব এবং রিসেন্টলি আমারটিপ্সতে ও একই গুঞ্জন চলছে Realme c2s নামে একটি স্মার্টফোন নিয়ে।

এখন আপনার আমার সবার একটাই প্রশ্ন আসলে কি? ফোনটা বাংলাদেশের বাজারে আছে?
আর আদেও কি এই নামে কোন স্মার্টফোন আছে! সেটা জানার জন্য আমি রিয়েমির অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে এবং বিভিন্ন জায়গায় ঘাটাঘাটি করলাম!
অনেকক্ষণ গবেষণা করার পরে বুঝতে পারলাম হ্যাঁ এই নামে একটা ফোন ছিল সেটা থাইল্যান্ডের মার্কেটে কিছুদিনের জন্য কোন একটা অফারের কারণে এই এত কম দামে সেল করা হচ্ছিল।

এখন ঐ সময়টাই অনেকেই অনেকগুলো ডিভাইস কালেক্ট করছে থাইল্যান্ড থেকে! এখন অনলাইনে তো সবাই বলছে যে তাদের কাছে Realme c2s আছে!

তাহলে প্রশ্ন হচ্ছে আসলেই কাদের কাছে ডিভাইসগুলো রয়েছে এবং তারা কেমন প্রাইস এ সেল করছে! সেগুলো জানতে পারবেন আজকের এই পোস্টের মাধ্যমে।

অনেক ফেসবুক পেজ এবং ইউটিউবে দেখা যাচ্ছে তারা মাত্র ৩ থেকে ৪ হাজার টাকায় এই সস্তা দামে সেল করছে! আসলেই কি এত সস্তা দাম ফোনটির? না ভাই এতটা সস্তা নয় আসলে!

আমি ঢাকা শহরে প্রায় 15 থেকে 20 টা মার্কেট এ খোঁজাখুঁজি করার পর মাত্র কয়েক জায়গায় ফোনটির অস্তিত্ব পেলাম! দাম জানতে চাইলাম কেউ বলছে কেউ বলছে সাড়ে চার কেউ বলছে সাড়ে পাঁচ আবার কেউ বলছে সাড়ে ছয়!
এককথায় ইচ্ছামত প্রাইজে সেল করা হচ্ছে এই ফোনটা
তো আমি পোষ্টের নিচে কিছু ট্রাস্টেড অনলাইন শপের নাম্বার আপনাদেরকে দিয়ে দিব যেখান থেকে আপনারা খুব সহজেই 100% নিরাপদে ফোনগুলো পার্সেস করতে পারবেন|

তো এখন চলুন ফোনটা সম্পর্কে ডিটেইলস এ জেনে নেয়া যাক!

MediaTek helio p22 প্রসেসর, ডুয়েল ক্যামেরা, ৪ হাজার মিলিয়াম্পেরে দুর্দান্ত ব্যাটারি থাকছে ফোনটির মধ্যে!

এছাড়াও চমক থাকছে ফোনটির ডিজাইন ডিসপ্লে এবং বিল্ড কোয়ালিটি তে। ফোনটির সকল চমকপ্রদ বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো আজকের এই পোস্টের মাধ্যমে। সেই সাথে বলে দিব ফোনটি বাংলাদেশ থেকে কিভাবে কিনতে পারবেন সবকিছু!


তো প্রথমে কথা বলি রিয়েলমি সি টু এস এর ডিজাইন এবং বিল্ড কোয়ালিটি এর সম্পর্কে, ফোনটি ডিজাইন এক কথায় অসাধারণ,
ফ্রন্ট সাইড এর ডিসপ্লে তে থাকছে ওয়াটার ড্রপ নচ এবং ফোনটির লুকের দিক থেকে বলতে গেলে বেশ আকর্ষণীয় মনে হয় আমার কাছে!

ব্যাক সাইডে থাকছে প্লাস্টিক বা পলিকার্বনেট যাতে থাকছে ডায়মন্ডকার্ড সেপ সেই সাথে সাইডগুলো থাকছে কারফ করা, এককথায় ডিজাইনের দিক থেকে এই বাজেটের স্মার্টফোনে একশ ই -একশ দিতে হয়। ১৬৪ গ্রাম ওজনের এই ফোনটিতে দুইটি সিম কার্ড এর পাশাপাশি একটি মাইক্রো এইচডি কার্ড ব্যবহার করা যাবে, লো বাজেটের ফোনগুলোর জন্য এটি একটি প্লাস পয়েন্ট বলবো।


তো এখন কথা বলি ফোনটি ডিসপ্লে সম্পর্কে ফোনটিতে থাকছে ৬.১ ইঞ্চির একটি আইপিএস এলসিডি ডিসপ্লে যার রেজুলেশন এইচডি প্লাস অর্থাৎ 720×1560 পিক্সেল! আমার মতে এই প্রাইজ রেঞ্জের মধ্যে বেস্ট ডিসপ্লে অফার করছে রিয়েলমি সি টু এস!


এবারে কথা বলি ফোনটির পারফরম্যান্স আই মিন চিপসেটের ব্যাপারে, ফোনটি রান করবে কালার ওএস ৬.১ এ যার পাশাপাশি থাকছে অ্যান্ড্রয়েড ৯ পাই, চিপসেট হিসেবে থাকছে MediaTek helio p22 ১২ ন্যানোমিটার আর্কিটেকচার এর তৈরি একটি শক্তিশালী প্রসেসর, আর সেইসাথে জিপিউ হিসেবে থাকছে PowerVR
GE8320 আর পাশাপাশি সিপিইউ হিসেবে পাচ্ছেন Octa-core 2.0 GHz Cortex-A53
তো আমার জানামতে এর আগে এত কম দামের স্মার্টফোনের মধ্যে এরকম শক্তিশালী চিপসেট ইউজ করে নি কেউ বা ব্যবহার করতে পারেনি।

নরমাল গেম থেকে শুরু করে পাবজির মতো হেব্বি গেমগুলো এতে প্লে করতে পারবেন, যা রীতিমতো অবিশ্বাস্য, আর ফোনটি পাওয়া যাবে ৩ জিবি র্যাম এবং ৩২ জিবি ইন্টারনাল স্টোরেজে ভেরিয়েন্ট এ,


এবারে কথা বলি এই ফোনটির আরো একটি হাইলাইটেড ফিচারস এর ক্যামেরা নিয়ে realme c2s এর রিয়ার প্যানেলে থাকছে ডুয়েল ক্যামেরা সেটআপ, যার প্রথমটি ১৩ মেগা পিক্সেলের প্রাইমারি ক্যামেরা যার অ্যাপাচার হচ্ছে গিয়ে ২.২ আর সেকেন্ডারিতে থাকছে ২ মেগা পিক্সেলের একটি ডিপ সেন্সর, যার অ্যাপাচার হচ্ছে ২.৪, আর রিয়ার ক্যামেরা দিয়ে সর্বোচ্চ ভিডিও রেকর্ড করা যাবে 1080p ৩০ এফপিএস এ!

ফোনটির ফ্রন্ট ক্যামেরা হিসেবে থাকছে ৫ মেগা পিক্সেলের একটি ক্যামেরা যেটির অ্যাপাচার হচ্ছে ২.০ আর সেলফি ক্যামেরা দিয়ে সর্বোচ্চ ভিডিও রেকর্ড করা যাবে 720p 30FPS এ!

ফোনটির মধ্যে থাকছে ৪ হাজার মিলিয়াম্পেরে একটি অসাধারণ ব্যাটারি যা থেকে নরমাল ইউজ এ টানা দুইদিন এবং হেব্বি ইউজ এ ১ দিনের মতো কাটিয়ে দিতে পারবেন একদম অনায়াসেই। তবে ফোনটিতে ফিজিক্যাল ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর থাকছে না।

অন্যান্য ফিচারস এর সাথে থাকছে ৩.৫ এমএম হেডফোন জ্যাক, ব্লুটুথ ৪.২ , জিপিএস, এফএম রেডিও, মাইক্রো ইউএসবি ২.০, এবং ওটিজি ক্যাবলের সাপোর্ট!

তো ভিউয়ার্স, এই ছিল রিয়েলমি সি টু এস এর ছোটখাটো একটি রিভিউ, ফোনটি কেনার সময় আপনাকে বিভিন্ন প্রাইস বলতে পারে তো আপনি চেষ্টা করবেন তাদের সাথে কথা বলে প্রাইস কমিয়ে নেওয়ার জন্য ধন্যবাদ।

কিছু ট্রাস্টেড শপ এর ফোন নাম্বার নিচে দেয়া হল।
1. RJ Shop! ফোন নাম্বার 01771768114

2. Rio international ফোন নাম্বার 01316925322

3. Desh গেজেট BD ফোন নাম্বার 019033941980

আর হ্যাঁ সবাইকে বলে রাখি এই পোষ্টটি করার উদ্দেশ্য হচ্ছে আপনারা যেন প্রতারিত না হন তার জন্য, এই পোস্টটি করার জন্য কেউ আমাকে স্পন্সার দেয়নি!

তো আজকের মত এ পর্যন্তই আল্লাহ আপনার আমার আমাদের সবাই কে ভাল রাখুক এটাই প্রত্যাশা ভালো থাকুন আল্লাহ হাফেজ!

Credit -> Amartips.Mobi.

Leave a Reply