১০ হাজার টাকার নিচে | Top 5. Old Flagship Smartphone | বাংলা রিভিউ | কমে ফ্লাগশিপ ফোন পেলে সেটাই ভালো।

হেই গাইস কি অবস্থা সবার?
আশা করছি সবাই অনেক ভাল আছেন আজকে আমি আপনাদেরকে ৫ টা ফোনের বিষয়ে জানবো যে ফোনগুলি পুরনো দিনের ফ্লাগশিপ ফোন।
যে ফোনগুলো বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের মার্কেটে বিক্রি হচ্ছে খুবই কম প্রাইজে।
তো চলুন বেশি কথা না বাড়িয়ে শুরু করি।


১। LG G4
ফোরজি সাপোর্টেড এই ফোনটির বর্তমান বাজার মূল্য ৪,৮০০ টাকা।
স্মার্টফোনের মধ্যে রয়েছে ৩০০০ মিলি এম্পিয়ার এর ব্যাটারি যা থেকে প্রায় দুই দিনের মতো ব্যাটারি ব্যাকআপ পাওয়া সম্ভব।

আরো রয়েছে ১৬ মেগাপিক্সেল এর দুর্দান্ত প্রাইমারি ক্যামেরা যা থেকে বেশ ভালো মানের ছবি ক্যাপচার করতে পারবেন, আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে রয়েছে ৮ মেগা পিক্সেলের সেলফি শুটার।
ফোনটির প্রসেসর সেখানে রয়েছে কোয়ালকম স্নাপড্রাগণ ৮০৮ আর জিপি ইউ হিসাবে রয়েছে Adreno 418 যা বেশ ভালো মানের প্রসেসর।
এই প্রসেসর থেকে আপনি পাবজি ফ্রী ফায়ার স্মর্টলি রান করাতে পারবেন মিডিয়াম গ্রাফিক্স এ।
ফোনটিতে রয়েছে একটি আইপিএস এলসিডি প্যানেল যার স্ক্রীন সাইজ ৫.৫ ইঞ্চ যার রেজুলেশন 1440×2560 pixels এটা খুবই ভালো মানের একটি আইপিএস প্যানেল।
৩ জিবি র্যাম এবং ৩২ জিবি ইন্টার্নাল স্তরেজ আছে ফোনটির মধ্যেকোনটি বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের যেসব মার্কেটে আনঅফিসিয়াল ফোন বিক্রি হচ্ছে সেখানে বিভিন্ন প্রাইজে পাওয়া যাচ্ছে।
তবে আমি রিও ইন্টার্নেশনাল থেকে অর্ডার করেছিলাম ৪,৮০০ টাকা দিয়ে বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন প্রাইস বলতে পারে।


২। LG V30
২০১৭ সালের ফ্লাগশিপ ফোন হলো LG V30 যেটা ২০২০ সালে আনঅফিসিয়ালি বাংলাদেশের মার্কেটে পাওয়া যাচ্ছে ৮,৯৯০ টাকায়।
ফোনটিতে রয়েছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৩৫ পাওয়ারফুল প্রসেসর আর জিপিইউ রয়েছে Octa-core (4×2.45 GHz Kryo & 4×1.9 GHz Kryo)
ফোনটিতে রান করছে অ্যান্ড্রয়েড ৯ পাই! রয়েছে ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা যেটা দিয়ে ফ্লাগশিপ লেভেলের ফটো তুলতে পারবেন।
আর সামনে রয়েছে ৮ মেগাপিক্সেল এর একটি সেলফি ক্যামেরা মোটামুটি ভালো মানের।

থাকছে ৪ জিবি র্যাম এবং ৬৪ জিবি ইন্টার্নাল ফোন মেমোরি। ফোনটির ডিসপ্লেএর সাইজ ৬.২ ইঞ্চ যার রেজুলেশন ১৪৪০× ২৫৬০ যেটি একটি ফুল এইচডি প্লাস আইপিএস এলসিডি প্যানেল।
৩৩০০ মিলি এম্পিয়ার এর ব্যাটারি পাবেন যা থেকে মোটামুটি দুই দিনের মত ব্যাকআপ পাবেন।
ফোনটিতে চার্জ করা যাবে মাত্র ৩০ মিনিটে ৫০% আর ফোনটা অবশ্যই ওয়ারলেস চারজিং সাপোর্ট করে।
তাই যারা ১০,০০০ টাকার মধ্যে ফ্লাগশিপ ফোন নিতে চাচ্ছিলেন তারা এই ফোনটি চোখ বুজে কিনে ফেলতে পারেন আমার সাজেস্ট রইল।


৩। Xiaomi MI 3
থ্রিজি সাপোর্টেড এই সিঙ্গেল সিম এর স্মার্টফোন বর্তমান আনঅফিশিয়ালী বাংলাদেশের মার্কেটে পাওয়া যাচ্ছে মাত্র ২,৫৯০ টাকায়।
ফোনটিতে থাকছে ৫ ইঞ্চির একটি এইচডি প্লাস আইপিএস ডিসপ্লে যার ডিসপ্লে কোয়ালিটি মোটামুটি বলবো।
থাকছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮০০ অনেক পুরনো দিনের ফ্লাগশিপ চিপসেট যা থেকে মোটামুটি পারফরম্যান্স পাবেন।

সামনে ২ এবং পিছনে ১৩ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা পাবেন। রয়েছে ৩০৫০ এম্পিয়ার এর ব্যাটারি, তা একদিনে ব্যাটারি শেষ করতে পারবেন আশা করি।
থাকছে ২ জিবি র্যাম এবং ১৬ জিবি ফোন মেমোরি ব্যবহার করতে পারবেন না ডেডিকেটেড মাইক্রো এসডি কার্ড। আর ফোনটি রান করছে অ্যানড্রয়েড ৭ নোগাট এ।
ফোনটির বর্তমান প্রাইস বিবেচনায় যাদের বাজেট একদমই কম তারা এটি নিঃসন্দেহে কিনতে পারেন।


৪। HTC One M9
৩ জিবি র্যাম এবং ৩২ ইন্টার্নাল ফোন মেমোরির এই ফোন পাবেন বর্তমান সময়ে মাত্র ৪,৯৯০ টাকায়।

৫ ইঞ্চির একটি আইপিএস ডিসপ্লে পাবেন যার রেজুলেশন ১০৮০×১৯২০ পিক্সেল। ডিসপ্লে প্রটেকশন করছে গরিল্লা গ্লাস ৩।
থাকছে Qualcomm Snapdragon 810 চিপসেট আর সেই জিপিইউ হিসাবে রয়েছে Octa-core (4×1.5 GHz Cortex-A53 & 4×2.0 GHz Cortex-A57)

২০ মেগা পিক্সেলের মেইন ক্যামেরা আর ৮ মেগাপিক্সেল এর সেলফি ক্যামেরা। যা থেকে সেই ২০১৫ সালের ফ্লাগশিপ ফটো এবং ভিডিও আশা করতেই পারেন।
থাকছে ১৮ ওয়াট এর ফাস্ট চার্জিং সুবিধা ও Non-removable Li-Po 2840 mAh battery যার ব্যাটারি ব্যাকআপ নিয়েও খুব একটা টেনশন করতে হবে না।
দুইটা সিম এর পাশাপাশি একটি ডেডিকেটেড মাইক্রো এইচডি কার্ড ব্যবহার করা যাবে। আর ফোনটি অবশ্যই 4G সাপোর্ট করে।
তাই যারা ৫,০০০ টাকার মধ্যে বর্তমান সময়ে ফোন কেনার কথা ভাবছেন তারা এই ফ্লাগশিপ ফোনটি অবশ্যই কোনো কিছু না ভেবেই কিনে ফেলতে পারেন।


৫। LG G6
যারা খুবই কম বাজেটের মধ্যে বর্তমান সময়ে একটি ভালো মানের ডিসপ্লে এবং গেমিং ফোন খুঁজছেন তাদের জন্য সাজেস্ট রইল LG G6 এই ডিভাইস টি।

ফোনটির বর্তমান সময়ে আনঅফিসিয়ালি বাংলাদেশের মার্কেটে পাওয়া যাচ্ছে ৭,৯৯০ টাকায়।
ফোনটিতে রয়েছে ৫.৭ ইঞ্চির দুর্দান্ত ডিসপ্লে যার রেজুলেশন 1440 x 2880 pixels যার পিপিআই ডেনসিটি ৫৬৪

রয়েছে কোয়ালকম স্নাপড্রাগণ ৮২১ শক্তিশালী প্রসেসর। আর সেই সাথে থাকছে ৪ জিবি র্যাম এবং ৬৪ জিবি ইন্টার্নাল ফোন মেমোরি।
কোনটি রান করছে অ্যান্ড্রয়েড ৯ পাই অপারেটিং সিস্টেম এ। ১৩+১৩ মেগাপিক্সেল এর ডুয়েল ক্যামেরা।
আর সেলফি ক্যামেরা হিসেবে পাবেন ৮ মেগাপিক্সেল এর একটি সেলফি শুটার।
যেটা ২০২০ সালে এসেও ফ্লাগশিপ লেভেলের ফটো এবং ভিডিও আশা করতেই পারেন।
রয়েছে 3300mAh Li-po (non-removeable) ব্যাটারি যা ১৮ ওয়াট ফাস্ট চার্জিং সাপোর্ট করে।
পিছনে থাকছে অপটিক্যাল ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর যেটা খুবই ফাস্ট এবং একুরেট।
সবশেষে এটাই বলব আপনি যদি বাজেটের মধ্যে একটি গেমিং এবং সেরা ক্যামেরা ফোন খুঁজে থাকেন তাহলে এই ফোনটি শুধুমাত্র আপনার জন্যই।

বিঃদ্রঃ লিস্টে থাকা প্রত্যেকটি ফোন যখন বাজারে আসে তখন তার প্রাইস ১৮+৫০ হাজারের উপরে ছিল।
লিস্টে থাকা প্রত্যেকটি স্মার্টফোন কেনা যাবে ঘরে বসেই BD Shop. থেকে কন্টাক্ট নাম্বার 01903394198 এবং 01771768114

আজকের মতো এই পর্যন্তই ভাল লাগলে বন্ধুদের কাছে শেয়ার করবেন | এই লিস্টের কোন ফোনটি আপনার সবথেকে ভালো লাগলো সেটিও কমেন্ট বক্সে জানিয়ে দিবেন।
সবাই ভাল থাকুন আল্লাহ হাফেজ।

Leave a Reply