Home Login Register
Click here to share any of your writing

ওয়াইফাই ডাইরেক্ট কি, এটি কীভাবে কাজ করে? [বিস্তারিত!]

Home / হট / ওয়াইফাই ডাইরেক্ট কি, এটি কীভাবে কাজ করে? [বিস্তারিত!]

Toukir Ahmed › 4 months ago
SohagWP
নতুন স্মার্টফোন গুলোতে একটি ফিচার প্রায় বেশ কমন হয়ে উঠেছে, ওয়াইফাই ডাইরেক্ট (Wi-Fi Direct) — যেটাকে আপনি সরাসরি ব্লুটুথ টেকনোলজির সাথে তুলনা করতে পারেন। ওয়াইফাই অ্যালায়েন্স (Wi-Fi Alliance) ২০১০ এর শেষের দিকে এই নতুন নাম এবং টেকনোলজি সামনে নিয়ে আসে, যেটা সহজ, ফাস্ট এবং সিকিউরভাবে যেকোনো কনটেন্ট, প্রিন্টার, আলাদা ডিভাইজ গুলোর মধ্যে ইন্টারনেট শেয়ারিং করার কাজে ব্যবহৃত হতে পারে। এই আর্টিকেলে ওয়াইফাই ডাইরেক্ট সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা ওরা হয়েছে। ওয়াইফাই ডাইরেক্ট যদি একেবারে সহজ ভাষায় বলি, তো ওয়াইফাই ডাইরেক্ট হলো এমন ধরণের টেকনোলজি, যেটা ওয়াইফাই ডাইরেক্ট সমর্থন করা ডিভাইজ গুলোকে পিয়ার-টু-পিয়ার কানেকশনে কানেক্ট করতে পারে, মানে সাধারন ওয়াইফাই কানেকশন যেমন কোন ওয়্যারলেস রাউটার বা অ্যাক্সেস পয়েন্টের উপর নির্ভরশীল থাকে, তেমনটা মোটেও ওয়াইফাই ডাইরেক্টের ক্ষেত্রে প্রয়োজনীয় হয় না। যেমন আপনি ডিভাইজে ব্লুটুথ অন করে, আরেকটি ডিভাইজ সার্চ করতে শুরু করে দেন, তারপরে খুঁজে পেলে সরাসরি কানেক্ট করে ফাইল শেয়ারিং শুরু করতে পারেন, ঠিক এমনভাবেই ওয়াইফাই ডাইরেক্ট কাজ করে থাকে। ওয়াইফাই ডাইরেক্ট অনেকটা অ্যাড-হক ওয়াইফাই নেটওয়ার্কের মতোই, কিন্তু এখানে ব্লুটুথের মতো সরাসরি ডিভাইজ সার্চ করা যায় এবং কানেক্ট করা যায়, যেটা অ্যাড-হক নেটওয়ার্কে করা যায় না। সাধারণ ওয়াইফাই নেটওয়ার্ক থেকে ওয়াইফাই ডাইরেক্ট অনেক বেশি পোর্টেবল এবং ব্যাবহার করা অনেক ইজি। যেহেতু সরাসরি যেকোনো ডিভাইজ একে ওপরের সাথে কানেক্ট হতে পারে সরাসরি, সেক্ষেত্রে আপনার রাউটারের প্রয়োজন পড়বে না। এটি দ্বারা কনটেন্ট শেয়ারিং, ফাইল শেয়ারিং, প্রিন্টিং, গেমিং, স্ক্রীন শেয়ারিং, ইন্টারনেট কানেকশন শেয়ারিং ইত্যাদি করা সম্ভব, যদিও আপনার ডিভাইজ প্রস্তুতকারী কোম্পানি হিসেবে আপনি কোন ফিচার পেতে পারেন আবার নাও পেতে পারেন। একে তো সরাসরি সার্চ করার মাধ্যমে ডিভাইজ ডিস্কভার করতে পাড়বেন, দ্বিতীয়ত, এটি অ্যাড-হক নেটওয়ার্কের মতো পুরাতন এবং অনিরাপদ WEP ব্যবহার না করে WPA2 সিকিউরিটি স্ট্যান্ডার্ড ব্যবহার করে। অ্যাড-হক নেটওয়ার্ক 802.11g স্ট্যান্ডার্ড এর উপর সীমাবদ্ধ, সেখানে ওয়াইফাই ডাইরেক্ট 802.11n স্ট্যান্ডার্ডের উপর কাজ করে, মানে আপনি ৩০০ মেগাবিট/সেকেন্ড+ হাই স্পীড কানেকশন তৈরি করতে পাড়বেন। স্মার্টফোন বা ল্যাপটপ/ট্যাবলেটে তো মেন্যু থেকেই নতুন ডিভাইজ সার্চ/কানেক্ট করার অপশন পেয়ে যাবেন, কিন্তু যে ডিভাইজ গুলো স্ক্রীন নেই, কেবল মাত্র একটি বাটন প্রেস করার মাধ্যমেই আপনি ওয়াইফাই ডাইরেক্ট কানেক্ট করতে পাড়বেন। স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের জন্য এটি বিশেষ সুবিধার একটি ফিচার। আগের দিকে ফাইল শেয়ারিং এর জন্য ব্লুটুথ অনেক জনপ্রিয় ছিল, কিন্তু বর্তমানে ওয়াইফাই টেকনোলজি অনেকবেশি জনপ্রিয় কেনোনা ওয়াইফাই দিয়ে হাই ব্যান্ডউইথ রেটে ফাইল ট্র্যান্সফার করা যায়। বর্তমানে সবাই নানান ফাইল ট্র্যান্সফার অ্যাপ ব্যবহার করে ওয়াইফাই টেকনোলজি দিয়ে ফাইল ট্র্যান্সফার করে থাকে, সেটা কিন্তু ওয়াইফাই ডাইরেক্ট নয়। যেমন আপনি যখন শেয়ারইট অ্যাপ ব্যবহার করে ফাইল ট্র্যান্সফার করেন, সেক্ষেত্রে উভয়ের ফোনে একই অ্যাপ ইন্সটল থাকতে হয়, তারপরে ঐ অ্যাপ একটি ভার্চুয়াল হটস্পট তৈরি করে, তারপরে ফাইল শেয়ারিং শুরু হয়। কিন্তু ওয়াইফাই ডাইরেক্টের ক্ষেত্রে The post ওয়াইফাই ডাইরেক্ট কি, এটি কীভাবে কাজ করে? [বিস্তারিত!] appeared first on TecHubs.

About Author


Contributor
Total Post: [36]
Tipsnet.ml

Leave a Reply

You Must be Login or Register to Submit Comment.

Related Posts

AmarTips.Mobi 2017
Powered by - AmarTips.Mobi