বিকাশ এবং রকেট এর নিজের ব্যালেন্স দেখতেও টাকা লাগবে??? বিস্তারিত ভিতরে!!

হ্যালো বন্ধুরা কেমন আছেন সবাই ভাল আছেন?
আপনারা ইতিমধ্যে ফেসবুকে অথবা ইউটিউব কিংবা বিভিন্ন নিউজ পোর্টালে দেখে ফেলেছেন যে বিকাশ রকেট নগদ থেকে শুরু করে শিওর ক্যাশ নামে যে মোবাইল ওয়ালেট গুলো রয়েছে এগুলো ব্যালেন্স চেক করতে হল গুনতে হবে টাকা একথা ভেবে ক্ষুব্ধ মনোভাব প্রকাশ করছেন ব্যবহারকারীরা।

অলরেডি বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সমালোচানার ঝড় উঠেছে। নিজ অ্যাকাউন্টের ব্যালেন্স জানতে এসএমএস চার্জ দিতে হবে এটিকে ‘অবিবেচনাপ্রসূত’ খরচ ভাবছেন অনেকে।

মোবাইল ফোন অপারেটরদের নেটওয়ার্ক ব্যবহার করার কারণে এমএফএস
অপারেটরদের তাদের সেশনভিত্তিক চার্জ দিতে হবে। সেখানে একটি এসএমএসে শুধু ব্যালেন্স চেক করতে চার্জ দিতে হবে ৪০ পয়সা বিআরটিসি’র নির্দেশনা অনুযায়ী।

এখন আপনাদের মনে কিংবা আমার মনে একটা প্রশ্ন আসতে পারে যে মোবাইল ফোন অপারেটরদের এই চার্জ বিকাশ-রকেট-নগদ নিজেরা দেবে না গ্রাহকের কাছ হতে কেটে নিয়ে তারপর অপারেটরদের দেবে কোনটা???

দাঁড়ান সহজ করে দিচ্ছি এটা আমার কথা না এটি হচ্ছে এমএফএস সার্ভিস প্রোভাইডাররা কথা অনুযায়ী বলছি। চার্জ কে দেবে তা নির্ভর করবে
নির্দেশনা কীভাবে কার্যকর হয় তার উপর।

কিন্তু আমাদের একটু চিন্তা কম করাই ভালো কারণ আমার এক বড় ভাই বলেছেন এই চার্জ গুলো আমাদেরকে দিতে হবে না 😂😂😂
সরি মজা করছিলাম বড় ভাই টা শুধু আমার না সবারই কথা বলছিলাম মোবাইল অপারেটরদের কে নিয়ে।
তো মোবাইল অপারেটর ভাইয়ারা জানিয়েছেন এই খরচটা নাকি গ্রাহকদের ওপর চাপবে না।

এখন আপনার আমার সবার মনেই ঘুরপাক খাচ্ছে তাহলে এখন কীভাবে চার্জ কাটা হয় আর কে দেয় ????
সমস্যা নেই এটি কেউ অনেক সহজ করে দিচ্ছি আপনি যদি 100 টাকা লেনদেন করেন তাহলে আপনাকে চার্জ দিতে হয় ১ টাকা ৮৫ পয়সা। এর ৭৭ শতাংশ এজেন্ট, ৭ শতাংশ মোবাইল ফোন অপারেটর আর বাকি ১৬ শতাংশ এমএফএস সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলো পায়।
এর মানে হচ্ছে মোবাইল ফোন অপারেটরদের দেয়া চার্জ এমএফএসগুলো গ্রাহকের কাছ হতেই কেটে নিচ্ছে।

বিআরটিসি মনে করছেন প্রতিবার লেনদেন, ব্যালেন্স চেক বা স্টেটমেন্ট নেওয়াসহ নানা ধরণের কাজকে একেকটি সেশন।
আর প্রতিটি সেশনের সময় হবে ৯০ সেকেন্ড। প্রতি ৯০ সেকেন্ডের একেকটি সেশনের জন্যে মোবাইল ফোন অপারেটরদেরকে ৮৫ পয়সা করে দিতে হবে। একেকটি সেশনের মধ্যে দুটি এসএমএসও থাকবে। যেখানে ব্যালেন্স চেক করতে একটি এসএমএসে চার্জ দিতে হবে ৪০ পয়সা।

তো এ বিষয়ে বিকাশের হেড অব কর্পোরেট কমিউনিকেশনস থেকে জানানো হয়েছে তারা শুনেছেন তবে আনুষ্ঠানিকভাবে নির্দেশনাটি এখনও পাননি। তাই নতুন নির্দেশনাকার্যকর করার আগে এই সময়ে কোথাও কোনো বাড়তি চার্জ
করা হচ্ছে না।
আগের যা চার্জ ছিল তাই থাকছে। তাই নতুন নির্দেশনা যতদিন পর্যন্ত কার্যকর
না হচ্ছে ততদিন গ্রাহক পর্যায়ে চার্জে কোনো পরিবর্তন হচ্ছে না।

তো বন্ধুরা এই যে ছোট্ট একটি আপডেট ছিল এই আপডেটটি কিন্তু আপনাদেরকে আমি দিয়ে দিলাম।
বিঃদ্রঃ – এই পোস্টটি সম্পূর্ণ অনলাইন নিউজ পোর্টাল থেকে দেখে তারপর নিজে লিখে করা হয়েছে।

পোস্টটি ভাল লাগলে একটা লাইক করতে পারেন আর আপনি যদি এমনই আনকমন এবং ইন্টারেস্টিং পোস্ট পছন্দ করেন তাহলে কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করে জানিয়ে দিতে পারেন।
তো আজকের মতো এই পর্যন্তই ছিল দেখা হচ্ছে নতুন কোন পোষ্টে ততক্ষণ পর্যন্ত ভালো থাকবেন ধন্যবাদ।

সবাইকে এই ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য অনুরোধ করা হলো জয়েন করতে এখানে ক্লিক করুন।

Leave a Reply