যে কোন চাকরির ভাইভা প্রিপারেশন কিভাবে নিবেন?(বিস্তারিত)

আসসালামুয়ালাইকুম

মহান আল্লাহ্‌ তায়া লার নামে শুরু করছি _

যে কোন চাকরির ক্ষেত্রে ভাইভা অনেক গুরুত্বপূর্ণ একটি জায়গা কারন -ভাইভা বোর্ড এ  একটি সামান্য ভুল এর কারনেও আপনাদের চাকরি টি হারাতে পারেন ।

আবার এটিও বলা যায় যে লিখিত পরীক্ষা শেষ করে ভাইভা পর্যন্ত যেতে পারলে চাকরির হবার সম্ভাবনা অনেক বেশি থাকে ।

ভাইভা বোর্ড এ প্রশ্ন ছাড়া আর কি কি দেখা হয়?

প্রথমেই আপনার গেটাপ অর্থাৎ আপনি কতটা ফর্মাল
আপনার জামা কাপর কতটা রুচি সম্পুর্ন
আপনি কতটা শ্রদ্ধা করছেন তাদের
আপনার Physical Fitness/Structure (সব সময় না )
আপনি ফর্মাল নাকি ক্যাজুয়াল
আপনার পার্সোনালিটি
আপনাকে যখন প্রশ্ন করছে তখন আপনি কতটা সিউর হয়ে প্রশ্নের উওর দিচ্ছেন
এবং তারা যখন কিছু বলছে এবং আপনাকে প্রশ্ন করছে তখন আপনার  মনোযোগ  কোথায় আছে
প্রশ্নের উওর কি বানিয়ে দিচ্ছেন নাকি সিউর হয়ে দিচ্ছেন
আপনার জেলা সম্পর্কে আপনার ধারণা কেমন ইত্যাদি –

আরো অনেক কিছু দেখা হয় তার মধ্যে এগুলো সব চেয়ে বেশি দেখা হয় ।

চাকরির ভেদে দেখা যায় যে ভাইভা পর্যন্ত যাওয়ার পর প্রশ্নের উওর না দিতে পেরেও অনেকের চাকরি হয়, তার ক্ষেত্রে আপনার উপরের বিষয় গুলো দেখা হয় । প্রশ্নের উওর দেয়া টি বড় কথা না আপনি নিজেকে কিভাবে তাদের সামনে উপস্থাপন করছেন সেটি আসল।

আর একটি ভুল করে অনেকেই প্রশ্নের উওর দিতে না পারলে বানিয়ে দিতে চেষ্টা করে এবং  ইয়ে মানে স্যার ভুলে গেছি, উফফ মনে আসছে না ইত্যাদি এগুলো কখনই করবেন না যদি করেন তাহলে আপনার চাকরির মায়া ছেড়ে দিতে হবে। কারন  ভাইভা বোর্ড এ যারা থাকে তারা আপনার থেকে অনেক অভিজ্ঞ পার্সন।

আজকে এই পর্যন্ত কথা হবে পরবর্তী টিউন এ

বিদ্রঃ 

ডিফেন্স জব অথবা সরকারি কোন চাকরির বিভিন্ন গোপন তথ্য – সাহায্য এবং মেডিক্যাল যে, কোন সমস্যার সমাধান সাথে রহস্য ও রোমাঞ্চ ভিন্ন রকম ভিডিও পেতে  আমাদের চ্যানেল টি ভিসিট করতে পারেন।

(ভালো লাগলে Subscribe করবেন)

( আমাদের চ্যানেল এ ১০০ ভাগ সঠিক তথ্য প্রভাইট করা হয় – যা আপনি নিজে যাচাই করে দেখতে পারেন )

আমাদের চ্যানেল – Career Messages 

যদি কোন যায়গায় বুঝতে সমস্যা হয় টিউমেন্ট করবেন আমি ইন শা আল্লাহ্‌ উওর দিবো।

আল্লাহ্‌ হাফেজ 

Leave a Reply