[®জ্ঞানের আলো® পর্ব-4] একটি বই আপনার জীবন পালটে দিতে পারে। সকল যুবক ভাইদের অনুরোধ করছি পোষ্টটি অবশ্যই দেখুন

কেমন আছেন সবাই?আশা করি আল্লাহর রহমতে সবাই ভালো আছেন। সব সময় ভালো রাখুক আল্লাহর কাছে এটাই কামনা করি। আজকে আমি একটি বই নিয়ে আলোচনা করবো ।
সকল ভাই/বোনদের বলছি দয়া করে পোষ্টটি শেষ পর্যন্ত পড়া ছাড়া কেউ এড়িয়ে যাবেননা প্লিজ।
আজকে আমি যে বইটি নিয়ে আলোচনা করবো বলছি ।
বইটির নাম “মুক্ত বাতাসের খোঁজে”

দয়া করে সবাই বইটি একবার পড়বেন। বইটি পড়ে যদি আপনার জীবনের পরিবর্তন আসে তাহলে আমার কষ্টের লেখা গুলো সার্থক। আপনাদের বইটি পড়তে বলছি এতে আমার কোনো স্বার্থ নেই। বইটি পড়ে আমি উপকৃত হয়েছি তাই আপনাদের মাঝে শেয়ার করলাম।

এই বইটিতে আমাদের বাস্তব জীবনের মুল বিষয়গুলো আলোচনা করা হয়েছে।
তথ্যবহুল গবেষনাধর্মী যুবসমাজের টনক নাড়ানোর মত অসাধারণ একটি বই “মুক্ত বাতাসের খোঁজে” । বইটিতে আছে আতংক সৃষ্টিকারি কিছু সমস্যারর কথা, আছে সুন্দর সমাধান। যেই সমস্যার সমাধান গুলার জন্য মানুষ চাতক পাখির ন্যায় হয়ে যায়। এমনকি যারা নিজেরাও জানে না যে তাদের সমস্যা আছে এবং সেটার সমাধানও দরকার, তাদের জন্যও রয়েছে দিক নির্দেশনা।

বইটা আসলেই ভাল মানের, কিছু জিনিস যা আমরা কখনো ওভাবে ভাবি না, স্কিপ করে যাই সবসময়, এই বইটা আপনাকে সেসব ভাবনাকে জাগ্রত করবে, স্কিপ করা জিনিস গুলোকে নিয়ে নতুন করে চিন্তা করতে সাহায্য করবে, এবং অবশ্যই আপনাকে বুঝতে সাহায্য করবে কোনটা আপনার/ আপনার ফ্যামিলি/ ফ্রেন্ডসদের জন্য ভালো বা খারাপ যা এতদিন ছিল উপেক্ষিত।

আসলে আমরা যারা আধুনিক শিক্ষায় শিক্ষিত হচ্ছি, ফ্রি মিক্সিং/নীল ভাইরাস যা আমাদের কাছে অতি সাধারণ ব্যাপার। তাদের মনোভাব সম্পর্কে বোনেরা জানতে পারবেন। রাস্তায় হাটা ছেলেটার চোখে আপনি ক্রাসিত বস্তু নাও হতে পাতেন। কি হবেন তা বইতে লিখা আছে। আক্রান্ত রোগিরা আপনাকে নিয়ে কি চিন্তা করে কল্পনা করে বুঝতে পারবেন, আপনার বেস্ট ফ্রেন্ড নামের ছেলেটা কি মনে করে জানতে পারবেন, জাস্ট ফ্রেন্ড কেমন তা হইতো বুঝতে পারবেন যদি ডাবল স্ট্যান্ডার্ড মনোভাব প্রকাশ না করে চিন্তা করতে পারেন। আল্লাহ্‌ র ভয়ে পর্দা হয়তো করেন না কারণ আপনি এখনো আল্লাহ কে চিনতে পারেন নি। তবে এই সমাজের নীলে আক্রান্ত রোগীরা কি চিন্তা করে তা ইন-শা-আল্লাহ বুঝতে পারবেন জানতে পারবেন। আর হয়তো নিজে থেকেই পর্দা করতে শুরু করবেন যদি সত্য মেনে নেয়ার ক্ষমতা থাকে আপনার।
শেষ কথা, আমাদের আধুনিক সমাজ আমাদের শেখায় প্রশ্ন করতে,প্রমান চাইতে, কিন্তু শেখায় না প্রমাণিত সত্য মেনে নিতে(অবশ্যই ডাবল স্ট্যান্ডার্ড মনোভাব ছেড়ে)।

যাইহোক পোষ্টটি বড় হয়ে যাচ্ছে,বেশি বকবক করবোনা ওহে ভাই/বোন! হ্যাঁ, আপনাকে বলতেছি যদি প্রকৃত জীবন পেতে চান তাহলে বইটি পড়ুন এবং ঐ অনুযায়ী জীবন গড়ুন।
আসুন বইটির ভুমিকা একটু পড়ি।

কতো তাড়াতাড়ি বড় হয়ে গিয়েছি…
এই তো কয়েকদিন আগেই হাফ প্যান্ট পড়া দশ বছরের কোঁকড়া চুলের এক বালক। তার স্কুল মাঠের কড়াই গাছের নিচে বসে নদীর দিকে উদাস হয়ে তাকিয়ে থাকতো পায়ের কাছে আছড়ে পড়তো দলবেঁধে অনেক দূর পাড়ি দেওয়া ঢেউ। মাঝে মাঝে সে ঢেউ গোনার ব্যর্থ চেষ্টা করত। কিন্তু খেই হারিয়ে ফেলতো একটু পরেই। আবার উদাস হয়ে তাকাতো নদীর দিকে। কখনোবা আকাশের দিকে। দুপুরের বৃষ্টিভেজা রোদে মাঝে মাঝে একটা সোনালী ডানার চিল উড়ে বেড়াতো করুন সুরে ডেকে উঠতো হঠাৎ হঠাৎ। বালক আরো উদাস হয়ে যেত। কখনো কখনো বালক স্কুল থেকে ঘরে ফেরার সময় অবাক হয়ে দেখাতো আকাশ কালো করে বৃষ্টি আসছে। বালকের ছাতা ছিলো না। কাজেই সেই ঝুম বৃষ্টির কবল থেকে বই খাতা বাঁচাতে একহাতে স্যান্ডেল আর একহাতে বই নিয়ে ভোঁ দৌড় দিত। মাঝে মাঝে রাস্তার কাদায় পিছলে পড়ে যেত। কাঁদা মাখা ভুত হয়ে ফিরতো বাসায়। মা ব্যর্থ চেষ্টা করতো আঁচল দিয়ে মাথা মুছে দেয়ার। মায়ের হাত থেকে নিজেকে মুক্ত করে বালক দৌড়ে লাফিয়ে পড়তে পুকুরে। পুকুরের স্বচ্ছ পানিতে বৃষ্টির ফোঁটা অদ্ভুত শব্দ করত। বালক অবাক হয়ে শুনতো সে শব্দ। দীর্ঘসময় পুকুরে দাপাদাপি করার পর চোখ লাল করে সে ফিরতো মা আঁচল দিয়ে মাথা মুছে দিতো শান্ত ছেলের মতো পুঁটি মাছের ভাজি দিয়ে গোগ্রাসে গরম ধোঁয়া উঠা ভাত গিলে, গল্পের বই নিয়ে কাঁথামুড়ি দিয়ে শুয়ে পড়তো বালক। টিনের চালে তখন একটানা বৃষ্টি পড়তো ।
বাইরে সজনে গাছটা উড়ে চলে যেতে চাইতো হাওয়ার সাথে । কলাগাছের পাতায় চলতো বাতাসের দাপাদাপি। বালক গল্পের বইয়ে ডুবে যেত। দুষ্টু বাবার কবল। থেকে নৌকা নিয়ে পালাচ্ছে হাকল বেরি ফিন… সে কি নিরাপদে পালাতে পারবে? ওর বাবা ওকে ধরে ফেলবে? টান টান উত্তেজনা! একসময় ঘুমিয়ে পড়তো বালক ঘুমের ঘোরেই ভয় পেত বিদ্যুৎচমকের শব্দে। মা মাঝে মধ্যে পাশে এসে শুয়ে থাকতো ঘুমের ঘোরে সে জড়িয়ে ধরতো তার মায়ের গলা- এই পৃথিবীতে তার সবচেয়ে আপন মানুষটিকে……

ফ্লাপের কথাঃআর কতকাল পথ ভুল করে ভুল রাস্তায় হেঁটে বেড়াবে উদ্ভান্তের মতো?
আর কতকাল? তারচেয়ে বরং এসো খোলা জানালায়৷ এক ঝলক ঠাণ্ডা বাতাস এসে শীতল পরশ বুলিয়ে দেবে।
কোসার স্নিগ্ধ মুখটাতে৷ বাইরে চেয়ে দেখো ঝকঝকে রোদে ভেসে যাচ্ছে চারিদিক, উঠোনকোণের পেয়ারা গাছটার পাতার আড়ালে মিষ্টি সুরে গান গেয়ে যাচ্ছে বুলবুলি, দূরের ঐ নীল আকাশে ডানা মেলেছে সোনালি ডানার চিল;
হাতছানি দিয়ে ডাকছে তোমায়,
যেন তুমি বেরিয়ে পড়ো
মুক্ত বাতাসের খোঁজে…

আশা করি বইটি সম্পর্কে  সংক্ষিপ্ত ধারনা
ধারনা পেয়ে গেছেন।এবার আসুন জেনে নিই বইটি আমরা কোথায় পাবো?
আপনি রকমারি.কম থেকে অর্ডার করতে পারেন।
Order Link:Rokomari.com

বইটির দাম 230 টাকা+কুরিয়ার চার্জ 30টাকা=260টাকা যাবে।
ভাই 260টাকা জীবনে কত ভাবে যে নষ্ট হয়েছে তার কোনো শেষ নেই।আমি গ্যারান্টি দিচ্ছি বইটি পড়ে আপনি যদি উপকৃত না হন তাহলে আমি আপনাকে সেই টাকা দিবো।
যদি বলেন,ভাই আমার কাছে বর্তমানে অতটাকা নাই। তার ও সমাধান আছে।আপনি চাইলে বইটি পিডিএফ আকারে ও  পড়তে পারেন।
Mediafire link:Download

আলোচ্য বিষয়টা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এই বইটিতে শুধু উপদেশ নয় বরং জরুরী তথ্য প্রমাণের মাধ্যমে মনে এমন ভয় ঢুকিয়ে দেবে যে গায় লাগতে বাধ্য। পড়ার পর নিজের শরীর সাস্থ্য মননকে হালকা বিনোদনের মাধ্যমে ধংস করতে দ্বিতীয়বার ভাবতে হবে। তাই সবার প্রতি অনুরোধ রইলো বইটি পড়বেন।যদি আপনি উপকৃত হন তাহলে আমার জন্য একটু দোয়া করবেন।ব্যাস আর কিছুনা।

আমার পোস্ট এ যদি আপনার সামান্য হলেও উপকার হয়ে থাকে তাহলে আমাদের সাইট টি ভিজিট করে আসবেন।আমাদের সাইটের লিংক

আমাদের সাইটে ১ টি পোস্ট করেই ৫-১৫ টাকা + ট্রেইনার রোল দেওয়া হয়।আপনার টাকার পরিমান সবনিম্ন ৫০ টাকা হলে পেমেন্ট নিতে পারবেন।

★★আজ এই পর্যন্তই, ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন
★★আল্লাহ হাফেজ★★

সৌজন্যেঃ TechBD25.com

Leave a Reply