প্রকাশ হল মিজানুর রহমান আজহারী গোপন তথ্য । কে এই মিজানুর রহমান আজহারী । Mizanur Rahman Azhari 2020

যুদ্ধের পর বাংলাদেশের এত মানুষ কোন কখনো এক সাথে দেখা যায় নি যেটি দেখা গিয়েছে ” মিজানুর রহমান আজহারীর ” ওয়াজ মাহফিলে –

স্মার্ট তরুণদের আইডল, সুশিক্ষায় শিক্ষিত তরুণ ও স্মার্ট বক্তা, ইসলামিক স্কলার মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী
যিনি- সম্প্রতি অল্প কয়েকদিনের মধ্যে সব শ্রেণি-পেশার জীবী মানুষের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেন। বর্তমানে যে ক’জন ইসলামি চিন্তাবিদ রয়েছেন, তাদের মধ্যে তিনি অন্যতম।

এই মিজানুর রহমান আজহারী সম্পর্কে আজ আপনাদের সাথে চাঞ্চল্যকর কিছু তথ্য শেয়ার করতে যাচ্ছি সুতরাং পোস্ট টি শেষ পর্যন্ত পড়তে থাকুন । এবং আপনি যদি মিজানুর রহমান আজহারী একজন ভক্ত হয়ে থাকেন – তাহলে অবশ্যই আমাদের চ্যানেল টি সাবস্ক্রাইব করবেন । – চ্যানেল লিং – http://bit.ly/অনুপ্রেরণার_গল্প

মিজানুর রহমান – যাকে বেশির ভাগ মানুষ আজহারী বক্তা নামে চিনে , আল – আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ে থেকে পড়াশোনা শেষ করার পর নামের শেষে আজহারী উপাধি টি যুক্ত করা হয়েছে । তাই সবাই মিজানুর রহমান আজহারী নামেই তাকে চিনে ।
নামের শেষে এই আজহারী টাইটেল নিয়ে অনেকের মাঝে নানা রকম কৌতূহল রয়েছে –
এবার তাহলে তো নামের শেষে এই আজহারী টাইটেল নিয়ে অন্য একজন ইসলামিক স্কলার কি বলে সেটি দেখা যাক –

ভিডিও – http://bit.ly/MizanurRahmanAzhari2020

জন্মস্থান –

মিজানুর রহমান আজহারী ১৯৯০ সালের ২৬ জানুয়ারি ঢাকার যাত্রাবাড়ীর ডেমরায় জন্মগ্রহণ করেন। এবং তার পৈতৃক নিবাস কুমিল্লার মুরাদনগরের পরমতলা গ্রামে – #অনুপ্রেরণারগল্প তিনি বাংলাদেশে জন্মগ্রহন করলেও তার বেশির ভাগ সময় কেটেছে বাহিরের দেশে ।

ছাএ জীবন –

তিনি সর্বপ্রথম – ডেমরায় অবস্থিত দারুন্নাজাত সিদ্দিকিয়া কামিল মাদরাসা থেকে ২০০৪ সালে দাখিল পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হন। এবং ২০০৬ সালে আলিম পরীক্ষায় গোল্ডেন জিপিএ-৫ লাভ করেন ।
পরবর্তীতে ২০০৭ সালে ইসলামিক ফাউন্ডেশন আয়োজিত মিসর সরকারের শিক্ষা-বৃত্তি পরীক্ষায় প্রথম স্থান অধিকার করে
মিসরের আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্ডারগ্রাজুয়েট করার জন্য মিসরে যান।  #অনুপ্রেরণারগল্প
সেখান থেকে ডিপার্টমেন্ট অব তাফসির অ্যান্ড কুরআনিক সায়েন্স থেকে ২০১২ সালে শতকরা ৮০ ভাগ সিজিপিএ নিয়ে অনার্স এ উত্তীর্ণ হন।

মিসরে পাঁচ বছর শিক্ষাজীবন অতিবাহিত করার পর ২০১৩ সালে মালয়েশিয়া যান। সেখানে গার্ডেন অব নলেজ খ্যাত ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি থেকে পোস্ট- গ্রাজুয়েশন সম্পন্ন করেন।
একই বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিপার্টমেন্ট অব কোরআন অ্যান্ড সুন্নাহ স্টাডিজ থেকে ২০১৬ সালে পোস্ট-গ্রাজুয়েশন শেষ করেন। এবং পোস্ট-গ্রাজুয়েশন বা মাস্টার্সে তার সিজিপিএ ছিল ৩.৮২ আউট অব ৪.০০ এর মধ্যে ।

গবেষণা – 

তিনি পোস্ট-গ্রাজুয়েশন শেষ করে মালয়েশিয়ার ইন্টারন্যাশনাল ইসলামিক ইউনিভার্সিটি থেকে এমফিল এবং পিএইচডি করার সিদ্ধান্ত নেন।
২০১৬ সালের মধ্যে এমফিলও শেষ করেন। তার গবেষণার বিষয় ছিল ‘হিউম্যান এম্ব্রায়োলজি ইন দ্য হোলি কুরআন’। তারপর একই বিশ্ববিদ্যালয়ে পিএইচডি প্রার্থী হিসেবে মনোনীত হন।  #অনুপ্রেরণারগল্প

হিউম্যান বিহ্যা ভিয়ারেল – ক্যারেক্টার ইসটিক্স – ইন দ্য- হোলি কুরআন অ্যান্ড অ্যানালিটিকাল স্টাডি’র ওপর পিএইচডি গবেষণা করছেন। #অনুপ্রেরণারগল্প
তার এমফিল এবং পিএইচডির মাধ্যম ছিল ইংরেজি। এছাড়া আইইএলটিএস পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে ওভারঅল ৭.৫ আউট অব ৯ ব্যান্ড স্কোর এবং স্পিকিং সেকশনেও ৭.৫ ব্যান্ড স্কোর অর্জন করেন।

দাম্পত্য জীবন –

মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী ২০১৪ সালের ২৯ জানুয়ারি বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। এবং বর্তমানে তার দুটি কন্যাসন্তান রয়েছে।

মাওলানা মিজানুর রহমান আজহারী সকল ধরনের মানুষদের কাছে অল্প সময়ে এত জনপ্রিয় হবার কাড়ন হল –

তিনি ইসলাম কে সবার কাছে সহজ ভাবে উপস্থাপন করেন – এবং তিনি যখন কথা বলেন তার কথা গুলো খুব স্মার্ট ভাবে উপস্থাপন করে থাকেন ।
বর্তমানে সবাই স্মার্ট তাই সবাই স্মার্ট ও সহজ জিনিশ টাই বেশি পছন্দ করেন – আর এই মিজানুর রহমান আজহারী ইসলাম কে সবার কাছে সহজ ও স্মার্ট ভাবে উপস্থাপন করে থাকেন ।  #অনুপ্রেরণারগল্প
যার জন্য তিনি এখন এত জনপ্রিয় যে যারা মোবাইল এ গান শুনত তারা এখন মোবাইল এ তার ওয়াজ শুনে ।

আর তার ওয়াজ মাহফিলে বর্তমানে এত ভক্ত দেখা গিয়েছে যে – মিজানুর রহমান আজহারী নিজেই অবাক হয়ে গেছেন ।
বাংলাদেশের এত মানুষ কোন কখনো এক সাথে দেখা যায় নি যেটি দেখা গিয়েছে মিজানুর রহমান আজহারী ওয়াজ মাহফিলে

মিজানুর রহমান আজহারীর হঠাৎ করে এত জনপ্রিয়তা বিষয় টি – কিছু কিছু মানুষ সহজ ভাবে গ্রহণ করতে পারে নি –
ফলে তার সহপাঠী অনেক বক্তারাও তার বীরুধে কথা বলতে শুরু করে ।
একসময় তার এত জনপ্রিয়তার জন্য তাকে কিছু কিছু যায়গায় ওয়াজ করার অনুমতি দেয়া হয় নি । দিলেও বিশেষ নিরাপত্তা মধ্য দিয়ে ওয়াজ করেছেন ।

জনপ্রিয়তা যখন ধীরে ধীরে বারতে থাকে – তখন একটি সময় তার নিজের জীবনের নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে । ফলে রাজনৈতিক কাড়নে হোক বা ব্যক্তি গত কাড়নে হোক – তাকে বাংলাদেশ ত্যাগ করতে হয় । এবং বর্তমানে তিনি মালয়েশিয়ায় অবস্থান করছেন ।
তিনি যখন মালয়েশিয়া এয়ারপোর্ট পৌঁছান তখন শত শত মানুষ তাকে ফুল নিয়ে অভ্রথনা জানাতে আসে । কিন্তু দুঃখের বিষয় হল – আমাদের দেশের গর্ব আমরা ধরে রাখতে পারলাম না ।
এই বিসয়ে আপনার মতামত কি – তা অবশ্যই আমাদের কমেন্ট করে জানাবেন ।

পরিশেষে –
তিনি কখনো তাফসির মাহফিলে চুক্তিবদ্ধ হন নি । হাদিয়া হিসেবে যা পেয়ছেন তা-ই নিয়ে সন্তুষ্ট ছিলেন ।

Modified – #অনুপ্রেরণারগল্প

মানুষের অদ্ভুত জীবন চক্র। জীবনে ১ম দেখতে যাচ্ছেন – অবাক না হয়ে পারবেন না। Weird Life Cycle Of People 

দিনে ম্যাজিস্ট্রেট রাতে একজন শ্রমিক । শিক্ষণীয় ভিডিও । By Day The Magistrate Is A Laborer At Night

**আমাদের চ্যানেল এ আপনি কি কি পাবেন ?

(1) পড়াশোনা সম্পর্কিত টিপস এবং ট্রিকস ,
(2) অনুপ্রেরণামূলক ভিডিও্‌
(3) অনুপ্রেরণামূলক গল্প ,
(4) সফল ব্যক্তিত্বদের অনুপ্রেরণামূলক জীবনী ।

এ ছাড়াও উক্ত বিষয়ের ওপর কোন ধরনের ভিডিও চান তা আমাদের জানালে আমরা সেই ভিডিও বানানোর চেষ্টা করবো ।

**আমাদের মূল উদ্দেশ্য হলো –

আপনার বাস্তব জীবনের সমস্যা গুলো আপনাকে ধড়িয়ে দিয়ে – সমাধান দেয়ার চেষ্টা করা ।
আশা করি সাথেই থাকবেন ।

আমাদের চ্যানেল –  অনুপ্রেরণার গল্প ঘুরে আসতে পারে ভালো লাগলে SUBSCRIBE করবেন । 

Leave a Reply