ধুয়েমুছে আপনার হ্যান্ডসেটি কেউ করে নিন জীবাণুমুক্ত | কভিড-১৯ প্রতিরোধে আমরা আছি বাংলাদেশের পাশে!!!

হ্যালো বন্ধুরা কি খবর সবার? কি চিনতে পারছেন আমার??? না চিনলে চিনে রাখতে পারেন আমি ইমরান সবাইকে স্বাগতম আমার আরও একটি নতুন পোস্টে যারা আমাকে আগে থেকে চেনেন তাঁরা নিশ্চয়ই জানেন আমি প্যাচাল মারতে পছন্দ করি কম তাই চলুন চলে যাই মূল অধ্যায় এ।

তো আপনি কি ভাবছেন আপনি ভালোমতো হাত সাবান কিংবা হ্যান্ডওয়াশ দিয়ে আর সব জীবাণু নিমিষেই চলে গেল কিন্তু আপনার ধারণাটা একদম ভুল জনাব, আপনার সাধের স্মার্ট ফোনটি হতে পারে এই মরণঘাতি এই ভাইরাসটির অন্যতম বাহন।

ঘন ঘন হাত পরিষ্কার করলেও স্মার্টফোনের মাধ্যমে তা আবারো ফিরে আসতে পারে আপনারই হাতে তাই আপনার হাত জীবাণুমুক্ত করার পাশাপাশি করে নিতে হবে আপনার স্মার্টফোনটি কেউ।

প্রতিদিন মহামারীর মত ছড়িয়ে পড়ছে কভিড-১৯ আর সেই সাথে বাড়ছে লাশের মিছিল আর রিসেন্টলি আমাদের দেশেও রেহাই পায়নি এই মারাত্মক করোনাভাইরাসের থেকে। কোন ভাইরাসের ক্ষেত্রে সবথেকে বড় সমস্যাটা হলো আমরা তো দেখতে পাচ্ছি না এই ভাইরাসটি কে সুতরাং আপনার হাতে যদি করোনাভাইরাস থাকে আর ওই হাত দিয়ে স্মার্ট ফোন ধরেন তাহলে ডেফিনেটলি আপনার ফোনের স্ক্রিন এও এটি আছে, তাই আপনি খুব ভালো করে হাত পরিষ্কার করার পর যখন পকেট থেকে ফোন বের করছেন সেটা কিন্তু আবার আপনার হাতেই টান্সফার হয়ে যাচ্ছে।

তাই আপনার হাত পরিষ্কার করার পাশাপাশি খুবই জরুরী আপনার স্মার্টফোনটিকেও জীবাণুমুক্ত করা, একটা গবেষণায় দেখা গেছে আমরা প্রতিদিন গরে ১২৪ বারের মত স্মার্টফোন চেক করে থাকি কারো কারো ক্ষেত্রে তো তার বেশিও, সুতরাং আপনি যত বেশি ভালো করে হাত ধোন না কেন আলটিমেটলি কোন লাভ হচ্ছে না আর হাত পরিষ্কার করার মত ফোন পরিষ্কার করাটা কিন্তু অতটাও সোজা নয়।

কারণ আপনি চাইলেও ফোনে স্যানিটাইজার ইউজ করতে পারবেন না কারণ বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই স্যানিটাইজার আপনার ফোনটাকে উপরে পাঠিয়ে দিতে পারে কারণ স্যানিটাইজার এ থাকে এলকো হল যেটা আপনার ফোনের ডিসপ্লে কে নিমিষেই নষ্ট করে দিতে পারে শুধু তাই নয় ফোনের যে মাদারবোর্ড টা আছে ওটা কেউ ডেট করে দিতে পারে।
সুতরাং ফোন পরিষ্কার করা আগে কিছু ব্যাপার আপনাকে অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে।

গবেষকদের মতে ফোন জীবাণুমুক্ত করার জন্য সবথেকে নিরাপদ হচ্ছে সাধারন ছপ বিশেষ কোন সাবান নয় অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল, হানি সাইকেল শপ আর্টিকেল পিপারমেন্ট শপ, এরকম কোন বিশেষ সুপের প্রয়োজন নেই জাস্ট একটা হলেই হল।

জি আপনি ঠিকই শুনেছেন যে কোন একটা সাবান হলেই হল।

তবে আমার রিকুমেন্ট থাকবে হ্যান্ডওয়াশ এবং সেইসাথে পানি এটাই সবথেকে বেস্ট হবে আর সবথেকে সহজ তো চলুন এটা কিভাবে কাজ করে দেখে আসি?

কভিড-১৯ সহ অধিকাংশ ভাইরাস দেখতে ঠিক নিচের ছবির মত হয়।

এগুলোর মূল গঠনতন্ত্রের বাইরে প্রোটিন এবং ফেট এর একটা আবরণ থাকে সে কারণে এগুলো আমাদের হাতসহ যেকোনো সারফেসে বেশ সহজেই লেগে থাকে আর শুধু পানি দিয়ে পরিষ্কার করলে কিন্তু এগুলোকে সহজে দূর করা যায় না, কারণ ভাইরাসের প্রোটিন এবং ফ্যাটের আবরণ সে গুলোকে লেগে থাকতে সাহায্য করে ব্যাপারটা কিছুটা তেলের মতো।

আপনারা হয়তো জেনে থাকবেন তেল আর পানি কিন্তু মিক্স করা অসম্ভব ই বিশ্বাস না হলে বাসায় একটু ট্রাই করে দেখেন, কিন্তু আপনি যখনই ওটার মধ্যে একটু সাবান দিয়ে মিক্স করার চেষ্টা করবেন তখন দেখবেন খুব সহজেই তেল আর জল মিশে গেছে।


তাই ঠিক একইভাবে আমরা যদি কোরোনা ভাইরাস কিংবা যে কোন ভাইরাসের উপর সাবান প্রয়োগ করি তখন সেই ভাইরাসের প্রোটিন আর ফ্যাটের অবরণ টা ভেঙে ফেলে এবং যার ফলে খুব সহজেই ভাইরাসটা নিষ্ক্রিয় হয়ে যায়।

কিন্তু হ্যাঁ এখানে কিন্তু বেশ বড় একটা কিন্তু আছে সেটা হচ্ছে এই পুরা প্রসেস টা কমপ্লিট হতে কিন্তু একটু সময় লাগে একটা গবেষণায় দেখা গেছে ভাইরাস এর ওপরে যে প্রোটিন ও ফ্যাট থাকে এটা নষ্ট হতে মিনিমাম ২০ সেকেন্ড সময় লাগে।


টিস্যু পেপার কিংবা নরম কাপড়ে সাবান পানি দিয়ে আলতোভাবে ফোনের ফ্রন্ট এবং ব্যাক সারফেস কমপক্ষে ২০সেকেন্ড ঘষতে থাকুন তবে খেয়াল রাখবেন যেন অতিরিক্ত পানি আপনার ফোনের মধ্যে প্রবেশ না করে আপনার ফোনে যদি দৃশ্যমান ক্যামেরা বাম্প থাকে তাহলে প্রয়োজনে কটন পার্টস ব্যবহার করতে পারেন।

তো বন্ধুরা আমরা কিন্তু ডেঞ্জারাস একটা সময় অতিক্রম করছি মানে হচ্ছে যে কোন সময় বড় ধরনের কিছু একটা হয়ে যেতে পারে আর সেটা আপনি চিন্তাও করতে পারবেন না সুতরাং আমার অনুরোধ থাকবে অন্তত এই সময়তে ফোনের ব্যাক কভার কিনবো স্ক্রীন প্রটেক্টর না ব্যবহার করার জন্য।


কারণ স্ক্রীন প্রটেক্টর এর মধ্য দিয়ে যদি ভিতরে ভাইরাসটি কোনভাবে প্রবেশ করে ফেলে তাহলে সেটা পরিষ্কার করা খুব একটা সহজ নয়,আর যদি আপনাকে একাউন্ট তুই ফোনের ব্যাক কভার ব্যবহার করতেই হয় তাহলে ফোনের মত করে ব্যাক কভার টা কেউ পরিষ্কার করে নিতে হবে।

তো আমি যেভাবে নিজের স্মার্টফোনটিকে পরিষ্কার করি।




তো চলে আসলাম পোস্ট এর একদম শেষ প্রান্তে আর সারা দেশে এখন করোনার আতঙ্কে,তো আপনার যদি খুব প্রয়োজন না হয় তাহলে বাসা থেকে বের হওয়ার কোনো প্রয়োজন নেই বিশেষ করে পাবলিক প্লেস এড়িয়ে চলুন আর আপনার আপনাকে যদি বাইরে যেতেই হয় তাহলে অবশ্যই মাক্স ব্যবহার করুন।

আর বাসায় ফিরে অবশ্যই সাবান দিয়ে ভালো করে হাত ধুয়ে নেবেন আর আপনার সাধের স্মার্ট ফোন টা কেউ মানে স্মার্ট ফোন ধরবেন না পরিষ্কার করবেন আর কি।

মহান আল্লাহ তাআলার রহমত আর আমাদের সচেতনতায় পারে এই মহামারীর হাত থেকে রক্ষা করতে সুতরাং সবাই পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়ুন।
কভিড-১৯ প্রতিরোধে আমরা আছি বাংলাদেশের পাশে!!!


LG G8 ThinQ – 6-128 আনঅফিসিয়ালি বিক্রি করা হচ্ছে ১৪,৯০০ টাকায় অর্ডার করার জন্য ফোন করুন: ০১৮৬৫৭৩৩২৪০
বিঃদ্রঃ সম্প্রতি করোনা ভাইরাসের কারণে আগামী ৪ তারিখ পর্যন্ত ডেলিভারি প্রসেস বন্ধ থাকবে।

বেঁচে থাকলে দেখা হয়ে যেতে পারে পরের কোন পোস্টে সেই পর্যন্ত ভাল থাকুন সুস্থ থাকুন নিরাপদে থাকুন আর নিয়মিত ভিজিট করুন আমারটিপ্সতে।

Leave a Reply