এয়ারড্রপ কি..? এয়ারড্রপে কেন কাজ করবেন? ( প্রফেশনাল ভাবে এয়ারড্রপ শিখুন | পার্ট–১ |)

আজকাল ঘরে বসেই মানুষ রুজি-রোজগার করে,তার জীবন নির্বাহ করতে পারে!

অনলাইনে
এমন অনেক গুলো কাজ আছে, যেগুলো দ্বারা আপনি আপনার সংসার চালাতে পারবেন বা আপনার পেশা হিসেবে নিতে পারবেন|

রিয়েল লাইফে, যেমন একটা কাজ শিখে সেটা পেশা হিসেবে নিয়ে যেমন সংসার নির্বাহ করাটা অনেক সময় সাপেক্ষ বিষয়, ঠিক তেমন ভাবে অনলাইনে ও একটা প্রফেশনাল কাজ শিখতে অনেক সময় লাগে|
যাইহোক আমি অতটুকু গবিরে যাচ্ছি না,

আপনারা জানেন যে,
আজকাল অনলাইনে ইনকাম করা যাই।
আর বর্তমান সময়ে,সেই ইনকাম এর একটা জনপ্রিয় সোর্স হলো এয়ারড্রপ |

যেটা শিখতে আপনার অমুক-তমুক কিছু লাগে না!
হাতে একটা এন্ড্রয়েড ফোন হলেই চলে আর সেটার পিছনে আপনার কয়েকটা দিন সময় দিলেই চলে শেখার জন্য|

এখন আসি এয়ারড্রপ কি…??

মূলত অনলাইনে ক্রিপ্ট-কারেন্সি সম্পর্কিত অনেক কোম্পানি প্রতিনিয়ত লঞ্চ করছে |

কোম্পানি গুলো প্রথম অবস্থাই যখন লঞ্চ করে,তখন কিন্তু কেউ সেই কোম্পানি টাকে জানে না, চিনে না,মোট কথা সে কোম্পানি টা অনলাইন জগৎ এ একেবারেই নতুন।

তখন সে কোম্পানি গুলো কি করে,তার প্লাটফর্ম এর কিছু প্রচার-পাবলিসিটি করতে চাই!
মানে সে কোম্পানি তার সম্পর্কে মানুষ কে জানাতে চাই|
ঠিক তারই প্রেক্ষিতে কোম্পানি কি করে,

তার কিছু ক্রিপ্ট মানুষের জন্য বরাদ্দ করে যে,

কেউ যদি এসে সেই কোম্পানি তে জয়েন হয় তবে,সে গ্রাহক কে এত পরিমাণ ( পরিমাণ টা কোম্পানিকৃত নির্দিষ্ট করা থাকে) ক্রিপ্ট দেওয়া হবে!

যখন কোম্পানি পুরোপুরি লঞ্চ করে, তখন সেই কোম্পানির পাওয়া ক্রিপ্ট গুলো → অনলাইনের প্রধান প্রধান ক্রিপ্ট তে → এক্সচেঞ্জ বা রুপান্তর করে, আপনি → এক্সচেঞ্জ করা প্রধান ক্রিপ্ট → বিক্রয় করে আপনার দেশের ক্রিপ্ট তে রুপান্তর করতে পারবেন এবং টাকা পকেটে নিতে পাবেন|

বুঝেন নি…??
খুব সাধারণ একটা উদাহরণ দিচ্ছি,
আমাদের দেশে সরকারের নগদ যখন লঞ্চ করলো সাথে সাথে কি সবাই ব্যবহার করতো নগদ??
যখন নগদ জয়েন হওয়ার বিনিময়ে কিছু বোনাস দিচ্ছিল তখন যে নগদ চালাতে পারে না সেও একটা নগদ একাউন্ট এর মালিক হয়ে গেল।
ফলে নগদ এর প্রচার বা সবাই নগদ সম্পর্কে জানতে পারলো!

ঠিক এমন টাই ঘটে এয়ারড্রপ এর ক্ষেত্রে।
আর উপরে ক্রিপ্ট-কারেন্সি নামক কিছু একটা লিখেছিলাম,
সেটা বুঝেন নি??
ক্রিপ্ট-কারেন্সি হচ্ছে, ভারচুয়াল মুদ্রা |
যেটা অনুভব করা যাই,দেখা যাই কিন্তু ধরা যাই না।

উদাহরণ – বাংলাদেশের বিকাশ/নগদ এর ভিতরের টাকা!

এয়ারড্রপ এ কেন কাজ করবেন..?

এয়ারড্রপ করে কি সংসার চালানো সম্ভব?

আমি এয়ারড্রপ এর ভবিষ্যৎ জানি না।
যে ভবিষ্যৎ তে এটার কি হবে, আর এয়ারড্রপ কোন প্রফেশনাল কাজ না!
এয়ারড্রপ করে হয়তো সংসার চালানো যাবে না এটা ঠিক কিন্তু আপনার প্রতিদিন এর যে খরচ বা আপনার খরচ সেটা আপনি নিজেই বহন করতে পারবেন।
উদাহরণ টা আমি নিজেই!!

এয়ারড্রপ এর সাথে আমি ক্লাস ৯ (২০১৮) থেকে আছি, স্টিল নাউ আমার লেখাপড়া + নিজের খরচ আমিই বহন করছি!

এটা ঠিক তেমন গর্জিয়াস ভাবে চলতে পারি না,কিন্তু আমার জায়গা থেকে আমি ভালোই আছি ভালোই চলছে |

এয়ারড্রপ এ কাজ করতে দিনে আপনার ৩০-৬০ মিনিটস দরকার পরবে এর চেয়ে বেশি না।

তো আজ আর না,
এয়ারড্রপ এর এই সিরিজ থেকে আশা করছি,
আপনারা যথেষ্ট ধারণা লাভ করতে পারবেন।

পড়তে মন না চাইলে , প্লে করে কান খাড়া করে দিন

এবং যার যার এয়ারড্রপ করতে মনে বিন্দু মাত্র আশা আছে

সে আশা রেখেই শেষ করছি খোদা হাফেজ |

Leave a Reply