এয়ারড্রপ করতে কি কি লাগে ? ( প্রফেশনাল ভাবে এয়ায়ড্রপ শিখুন | পার্ট–২ |)

আমার গত পোস্টের মাধ্যমে আপনারা জানতে পেরেছেন যে, এয়ারড্রপ কি এবং এয়ারড্রপ এ কেন কাজ করবেন ।
যদি গত পোস্ট টি না দেখে থাকেন তবে দেখে আসতে পারেন
আগের পোস্ট লিংক

তো আজকের বিষয় হচ্ছে ,
এয়ারড্রপ এ কাজ করতে কি কি লাগে ………

যেহেতু এয়ারড্রপ কাজ টাই হচ্ছে মূলত জয়েন হওয়া ,তাই আমাদের সোশ্যাল একাউন্ট ছাড়া আর তেমন কিছু লাগবে না ।
এয়ারড্রপ এর মাধ্যমে যেহেতু আমরা বিভিন্ন মুদ্রা দ্বারা টাকা গুলো পাবো ,তাই সে সব মুদ্রা রিসিভ করার
জন্য আমাদের অব্যশই একটা ওয়ালেট বা মানিব্যাগ ক্রিয়েট করতে হবে যার নাম হচ্ছে MyEtherWallet/MEM |

যেটা Erc-20 ওয়ালেট নামেও পরিচিত .কিভাবে একটি MyEtherWallet খুলবেন এই পোস্ট দেখে আসুন
পোস্ট লিংক
প্রাইভেট কি/Phrase টা মাস্ট সেইভ রাখবেন, না হয় আপনার ওয়ালেট আপনি আক্সেস করতে পারবেন না !
ওয়ালেট এর পর আপনার যা যা লাগবে তা নিচে দেওয়া হলঃ-

জিমেল –> Gmail সবার আছে

টেলিগ্রাম –> Telegram Link
টুইটার –> Twitter Link
ইন্সটাগ্রাম –> Instagram Link
ফেসবুক –> Facebook সবার আছে
মিডিয়াম –> Medium Link
লিংডিন –> Linkdin Link
ইউটিউব চ্যানেল –> Youtube channel সবার আছে
রেড্ডিট –> Reddite Link
ডিস্কড –> Discord Link

তো এয়ারড্রপ করার জন্য আপনার উপরের সোশ্যাল একাউন্ট গুলো লাগবে.
সোশ্যাল একাউন্ট গুলো কোন জাগায় কিভাবে ব্যবহার করবেন তা পরবর্তি পোস্ট গুলোর মাধ্যমে জানতে পারবেন .
সব শেষে লাগবে আপনার একটা নির্দিষ্ট ডলার / $ রাখার ওয়ালেট ।
এয়ারড্রপ এর মাধ্যমে যেহেতু আপনি বিভিন্ন কোম্পানি থেকে আপনার টাকা গুলো পাবেন,তখন আপনি কি চাইবেন আপনার টাকা / $ গুলো এখানে ওখানে থাকুক ??
নিশ্চয় না ..??
হুম, সেই জন্য আপনার একটা নির্দিষ্ট ডলার রাখার ওয়ালেট লাগবে . যেখান থেকে আপনি আপনার প্রয়োজন মত অন্যের কাছে খুব সহজে ডলার ক্রয়-বিক্রয় করতে পারবেন ।!
এই জন্য আমি আপনাদের সাজেস্ট করবো, কয়েনব্যাস ওয়ালেট

কিভাবে একটি কয়েনব্যাস ওয়ালেট খুলবেন, এই পোস্টি দেখতে পারেন Coinbase Link

পড়তে মন না চাইলে , প্লে করে কান খাড়া করে দিন

এবং যার যার এয়ারড্রপ করতে মনে বিন্দু মাত্র আশা আছে

অপেক্ষা করুন পরবর্তি পোস্ট এর জন্য .

ধন্যবাদ সবাই কে………।


Leave a Reply