👍😲নেটফ্লিক্স পাসওয়ার্ড-এর টোপ দিয়ে নতুন প্রতারণার কৌশল ফেঁদেছে সাইবার অপরাধীরা👍📳

আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন…..? আশা করি সবাই ভালো আছেন । আমি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছি ।আসলে কেউ ভালো না থাকলে amartips তে ভিজিট করেনা ।তাই আপনাকে amartips তে আসার জন্য ধন্যবাদ ।ভালো কিছু জানতে সবাই amartips এর সাথেই থাকুন ।

নেটফ্লিক্স পাসওয়ার্ড-এর টোপ দিয়ে নতুন প্রতারণার কৌশল ফেঁদেছে সাইবার অপরাধীরা

করোনাভাইরাস সংক্রমণে ঘরবন্দিদের লক্ষ্য করতে ফ্রি নেটফ্লিক্স পাসওয়ার্ড-এর টোপ দিয়ে নতুন প্রতারণার কৌশল ফেঁদেছে সাইবার অপরাধীরা। সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় বিনামূল্যে নেটফ্লিক্স ব্যবহার করার পাস নিয়ে তুমুল আলোড়ন শুরু হয়েছে। এই সুবিধা পেতে বেশ কিছু ব্যবহারকারীদের নিকট ইতোমধ্যে হোয়াটসঅ্যাপ, ফেসবুক মেসেজের মাধ্যমে একটি লিঙ্ক পৌঁছে যাচ্ছে কিন্তু ওই লিঙ্কে ক্লিক করলেই সর্বনাশ!

ব্যাপারটা যে একেবারেই ধাপ্পাবাজি, তা জানিয়েছেন নেটফ্লিক্স-এর এক কর্মকর্তা। তাঁর দাবি, লকডাউন উপলক্ষে এমন কোনও সুবিধা বা লিঙ্ক নেটফ্লিক্স দেয়নি।

নেটফ্লিক্স ওয়েবসাইটের পক্ষ থেকে ওই স্ক্যাম মেসেজের বিষয়বস্তু সম্পর্কে রিপোর্ট করা হয়েছে। মেসেজে লেখা হচ্ছে, ‘COVID-19 মহামারীর কারণে আইসোলেশন পর্বে যতক্ষণ পর্যন্ত না এই ভাইরাস বিনাশ হচ্ছে, ততদিন পর্যন্ত আমরা সম্পূর্ণ বিনামূল্যে আমাদের প্ল্যাটফর্মে প্রবেশের অনুমতি দেওয়া হচ্ছে।’ মেসেজের সঙ্গে থাকছে একটি লিঙ্ক, যার মাধ্যমে ইউজারদের বিনামূল্যে নেটফ্লিক্স পাস পাওয়ার জন্য একটি সমীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে বলা হচ্ছে।

জানা গেছে, সমীক্ষা শেষ করলেই সংশ্লিষ্ট ইউজারকে ওই লিঙ্কটি অ্যাক্টিভেট করার জন্য হোয়াটসঅ্যাপে আরও ১০ জনকে শেয়ার করতে বলা হচ্ছে। ভুয়া মেসেজটিকে বৈধ সাজাতে ওই ক্ষতিকর ওয়েবসাইটে ফেসবুকের মতো কমেন্ট করার বক্সও যোগ করা হয়ে হয়েছে। যদিও সেটিও ভুয়ো বলে জানা গেছে। এই ধরনের হোয়াটসঅ্যাপ মেসেজ পেলে তা সঙ্গে সঙ্গে ডিলিট করে দেওয়ার জন্য ইউজারদের পরামর্শ দিয়েছে নেটফ্লিক্স।

জানা গেছে, লকডাউনের অচলাবস্থাকে কাজে লাগিয়ে সক্রিয় হয়ে উঠেছে হ্যাকাররা। দেখা গিয়েছে, Covid-19 সংক্রান্ত বেশ কিছু ডোমেইন রাতারাতি নেট-আকাশে গজিয়ে উঠেছে। কতাদের বেশিরভাগই ভুয়ো এবং প্রতারণার ফাঁদ বিশেষ।

এমনই একটি অ্যাপ CovidLock এর সন্ধান সম্প্রতি পেয়েছেন সাইবার গোয়েন্দারা। গুগল প্লে থেকে ডাউনলোডের সুবিধাযুক্ত এই অ্যাপ আসলে হ্যাকারদের নতুন হাতিয়ার যা কাজে লাগিয়ে ব্যক্তিগত তথ্য হাতানো হচ্ছে। এই অ্যাপ থেকে সাবধান থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা।

Leave a Reply