[ With Payment Proof ] প্রফেশনাল স্কিল ছাড়াই ফ্রিল্যান্সিং করে নিজের পকেট খরচ নিজে জোগাড় করুন।

আসসালামু আলাইকুম ।
আশা করি সবাই ভালো আছেন। প্রায় দের বছর পর আবার আমারটিপ্সতে লিখতে বসলাম । চলুন তাহলে কথা না বাড়িয়ে কাজে চলে যাই।

আমি প্রথমেই বলে রাখতে চাই কেউ যদি প্রফেশনার স্কিল ছাড়াই ফ্রিল্যান্সিং করে রাতা রাতি বড়লোক হওয়ার সপ্ন দেখেন তাহলে ভাই দুঃখিত ।
এই পোস্ট আপনার জন্য না।
যারা ছোট খাট কাজ করে অন্তত নিজের পকেট খরচ টা জোগাড় করতে চান তাদের জন্যই এই পোস্ট।

আপনারা অনেকেই হয়ত Latium এর নাম শুনে থাকবেন। এটি একটি ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট যেখানে আপনি ফ্রিল্যান্সার হিসেবে এবং এমপ্লিয়ী হিসেবে কাজ করতে পারবেন। এবং তারা ক্রিপটো কারেনসি তে পেমেন্ট করে থাকে। এবং এখান থেকে আপনি এপ ডাউনলোড করে, গেম রিভিউ দিয়ে , সোস্যাল মিডিয়াতে ফলো করে আরো বিভিন্ন রকমের ছোট খাট কাজ করে আপনি ইঙ্কাম করতে পারবেন।

চলুন এবার দেখে নেওয়া যাক কিভাবে এই ওয়েবসাইটে কাজ শুরু করবেন।
প্রথমে নিচের দেওয়া লিংকে ক্লিক করুন। Latium Freelancing ( With Referral)

যদি আপনাদের পোস্ট টা কাজে আসে তাহলে রেফারাল লিংক ব্যবহার করার অনুরোধ রইল।

Latium Freelancing ( Without Referral)

ওয়েবসাইটে যাওয়ার পর নিচের মত সাইন আপ এ ক্লিক করবেন।

তারপর আপনাদের সামনে একটি সাইন আপ ফর্ম আসবে ওইটা ফিল আপ করে রেজিস্ট্রেশন কম্পলিট করে নিবেন। আশা করি এই কাজ টা আপনারা সবাই পারবেন। তারপর ও যদি সমস্যা হয় তাহলে কমেন্ট করে যানান । আমি স্ক্রিনশট এড করে দিব।

এই সাইটের সবচাইতে ইম্পরটেন্ট যেই বিষয়টা তাহলো এইখানে রেজিট্রেশন করার পর আপনার প্রোফাইল ভেরিফায় করে নিতে হবে। নাওহ্লে আপনি কোন প্রজেক্ট এ বিড করতে পারবেন না।

তো চলুন দেখেন নেই কীভাবে প্রোফাইল ভেরিফাই করবেন।

এই ওয়েবসাইটের ভেরিফিকেশন সিস্টেম টা অনেক সহজ।
প্রথমেই নিচের মত ভেরিফিক্যাশন এ ক্লিক করুন।

তারপর আপনার ওয়েব ক্যাম/ ফ্রন্ট ক্যাম ওপেন করার পারমিশন চাইবে এবং পারমিশন দেওয়ার পর ওয়েব ক্যামেরা ওপেন হবে।
সেখানে আপনাকে ইন্সট্রাকশন দিবে মাথা এদিক ওদিক ঘোরানোর জন্য। আপনি শুধু ইন্সট্রাকশঅন গুলো অনুসরণ করবে। এবং টিক আসলে আপনার ফটো সাবমিট করে দিবেন। ২-৩ ঘন্টার মধ্যে আপনার ভেরিফিক্যাশন কম্পলিট হলে আপনার মেইল এ জানিয়ে দেওয়া হবে। যদি কোনো কারণে না হয় তাহলে আবার ট্রাই করতে বলবে।

এক্ষেত্রে কিছু বিষয়ে লক্ষ রাখবেন যেমনঃ ছবি তোলার সময় যাতে পর্যাপ্ত আলো থাকে এবং ছবিতে আপনার চেহারা ক্লিয়ার বুঝা যায়।

ভেরিফিক্যাশন কম্পলিট হয়ে গেলে আপনি কাজ শুরু করতে পারবেন এবং পেমেন্ট ও নিতে পারবেন।

চলুন দেখে নেওয়া যাক কীভাবে কাজ শুরু করতে হয়।

এখানে দেখুন অনেক ক্যাটেগরির কাজ রয়েছে।

আপনি যে কাজে এক্সপার্ট ঐ কাজ টা করতে পারবেন। যেমন সোশ্যাল মিডিয়াতে ফলো করা । এপ ডাউনলোড করা ইত্যাদি কাজ গুলো আপনি অনেক সহজেই করতে পারবেন।

এবার দেখে নেওয়া যাক কীভাবে প্রজেক্ট কম্পলিট করতে হয়।

এই প্রজেক্ট এ দেখুন তাদের টুইট লাইক করতে করতে বলেছে এবং রিটুইট করতে বলেছে । এবং এই ছোট্ট কাজ টি করেই পেয়ে যাবেন 0.1 $
সেই খানে তাদের টুইটার এর লিংক দেওয়া আছে গিয়ে তাদের টুইট লাইক আর রিটুইট করে একটা স্ক্রিনশট নিয়ে নিবেন।
এরপর স্ক্রিনশট টা প্রজেক্ট এ আপলোড করে সাবমিট বাটনে ক্লিক করবেন।

২৪ ঘন্টার মধ্যে তারা আপনার কাজটি রিভিউ করে টাকা এড করে দিবে এবং আপনাকে মেইল করে জানিয়ে দিবে।

এবার আসি পেমেন্ট এর বিষয়ে।
এই ওয়েবসাইট থেকে আপনি চাইলে যেকোনো ক্রিপটো কারেন্সি তে পেমেন্ট নিতে পারবেন যেমনঃ বিটকয়েন, লাইটকয়েন ইত্যাদি।

আমার পেমেন্ট প্রুফ দেখুনঃ

যেহেতু লাইটকয়েন এ মিনিমাম পে আউট এমাউন্ট ও কম এবং ফী ও কম তাই আমি লাইট কয়েনে পেমেন্ট নিয়েছি আপনারা চাইলে বিটকয়েন বা পেপাল এর মাধ্যমেও পেমেন্ট নিতে পারেন।


আশা করি সবাই বুঝতে পেরেছেন তারপর ও যদি কারো কোনো সমস্যা থাকে কমেন্ট করে জানাবেন। প্রয়োজন হলে বিস্তারিত আরেকটা পার্ট নিয়ে আসব।

কোনো সমস্যায় পড়লে ফেসবুক এ নক দিতে পারেন। হেল্প করার চেস্টা করব। Facebook Link

Leave a Reply