[DBBL]ডাচ্ বাংলা স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলুন খুব সহজে

আসসালামু-আলাইকুম। কেমন আছেন সবাই?
আশা করি ভাল। আর আমারটিপ্সর সাথে থাকলে সবাই ভাল থাকে।
তাহলে আজকের পোস্ট শুরু করা যাক।

 

 

আজকের পোস্টের বিষয় হচ্ছে
কিভাবে

Dutch Bangla Bank Limited

এ স্টুডেন্ট একাউন্ট খুলবেন,
কি সুবিধা /অসুবিধা থাকবে, কি কি লাগবে,
কোথায় যেতে হবে, কিভাবে করবেন সব কিছু।
উপকৃত হলে একটি লাইক দিবেন এবং কমেন্ট করবেন।
অন্যান্য ব্যাংকের মত সাধারন একটি একাউন্ট,কিন্তু এতে বিশেষ বৈশিস্ট হচ্ছে কোনো চার্জ লাগে না।
প্রাথমিক ভাবে জমাকৃত অর্থ ও ফেরতযোগ্য।
তাহলে শুরু করা যাক।

ডিবিবিএল স্টুডেন্ট ব্যাংকিং সার্ভিসের সুবিধাসমূহঃ

★একাউন্ট ওপেন করতে কোন প্রকার চার্জ দিতে হবে না।

★কোন কারণে একাউন্ট বাতিল করলে ৫০০ টাকা সর্ম্পূণ্য ফেরত দেওয়া হবে।

★ আজীবনের জন্য ফ্রী ডিবিবিএল নেক্সাস কার্ড প্রদান করবে।

★ডিবিবিএল নেক্সাস কার্ডে বার্ষিক কোন চার্জ নেই।

★ডিবিবিএল নেক্সাস কার্ড হারিয়ে বা নষ্ট হলে মাত্র ৪০০ টাকা খরচে আপনি পুনরায় একটি কার্ড পাবেন।

★ আপনার ডিবিবিএল নেক্সাস কার্ডের মাধ্যমে সকল এটিএম বুথ হতে টাকা তুলতে পারবেন।

<br★প্রতি বছর আপনাকে জমাকৃত টাকার বিপরীতে ৫% হারে সুদ প্রদান করা হবে । (শর্ত প্রযোজ্য)

 

অসুবিধাসমূহঃ

★একাউন্ট একটিভ করতে আপনাকে প্রথম ৫০০ টাকা জমা দিতে হবে। তবে কোন কোনো ব্রান্চ এ ১০০ ও নেয়।আমার টায় ১০০ দিয়ে করছি।(সর্ম্পূণ্য ফেরত যোগ্য)।

★ এটিএম হতে আপনি একদিনে সর্বোচ্চ ৫০০০০ হাজার টাকা উত্তোলন করতে পারবেন।

★আপনার একাউন্টে সর্বোচ্চ ৫ লক্ষ টাকা জমা রাখতে পারবেন।

★স্টুডেন্ট একাউন্টে কোন চেক বই প্রদান করা হবে না।দিলে মন্দ হত না।

অ্যাকাউন্ট খুলতে যা লাগবেঃ

যদি বয়স ১৮ বছরের উপরে হয় এবং নিচের ডকুমেন্ট থাকেঃ( A)
১)জাতীয় পরিচয় পত্র/বৈধ পাসপোর্ট/ড্রাইভিং লাইসেন্স/নাগরিকত্ব সনদ অথবা অন্যান্য ছবি সম্বলিত পরিচয় পত্রের কপি

২)২ কপি রঙিন পাসপোর্ট সাইজ ছবি

 

যদি ১৮ এর উপরে বা নিচে হয় কিন্তু উপরের ডকুমেন্ট নাইঃ(B)

১)জন্মনিবন্ধন এর সত্যায়িত কপি (অভিভাবক দ্বারা সত্যায়িত)

২)২ কপি ছবি

৩)একজন অভিভাবক যার আইডি দিয়ে একাউন্ট হবে (বয়স ১৮ হলে একাউন্ট স্টুডেন্ট এর হয়ে যাবে)

৪)অভিভাবকেরও দুই কপি পাসপোর্ট সাইজের ছবি

বাকি গুলো সবার ক্ষেত্রে প্রয়োজন:

১)স্থায়ী ঠিকানা প্রমান স্বরুপ কারেন্ট বা পানির বিলের কপি

২)ঐ ব্যাংকে এ একাউন্ট আছ। এমন একজন পরিচয় প্রদানকারী বা ইনট্রুডিউসার।

৩)শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রদত্ত প্রত্যয়নপত্র বা আইডি কার্ড।

৪)নমিনি এর আইডি কার্ড এর কপি এবং তার এক কপি ছবি

 

 

উপরোক্ত ডকুমেন্ট নিয়ে নিকটস্থ DBBL ব্যাংক বা ফাস্ট ট্রাক এ গেলে একটি ফর্ম দিবে যার মধ্য TP এবং KYC ফর্ম থাকবে।যদি আপনি (A) হন তাহলে আপনি এবং পরিচয় প্রদানকারী (ইনট্রুডিউসার) গেলে ই হবে, যদি (B) হন তাহলে আপনি, অভিভাবক এবং পরিচয় প্রদানকারী গেলে হবে।ফর্ম নিজে পূরন করতে করতে পারেন আবার তারা ও করে দিতে পারে।
পরিচয় প্রদান কারীর ব্যাংক একাউন্ট নম্বর এবং স্বাক্ষর লাগবে।।ফর্ম পূরন করার পর আপনি ৫০০ টাকা জমা দিলে আপনাককে সাথে সাথে একটি কার্ড প্রদান করবে পিন এর ফর্ম সহ।কার্ড একটিভ হতে যদিও ওরা বলে ৭ কর্মদিবসে লাগে তবে আমার টায় ১৩ দিন লাগছে এবং নম্বর দিয়ে ব্যাংকের কাজ এবং OTP চাইলে ১৫ কর্ম দিবস লাগবে।
এই কার্ড ব্যবহার করে বাংলাদেশের যে কোনো এটিএম থেকে ফ্রিতে ক্যাশআউট/উইথড্র করতে পারবেন।

উপরের ডকুমেন্ট এর কিছু আছে অনেকে বলে লাগে না,
কিন্তু আমি যখন একাউন্ট করছি একটি ডকুমেন্ট দিতে না পারায় ৩ দিন পরে ফোন দিছে যে এটা দিয়ে যান। যদি না লাগে তাহলে তো ভালই তবে নিয়ে যাওয়া ভাল হয়ত এটার জন্য ফেরত আসা লাগতে পারে।

 

Note:পোস্টের কয়েক লাইন গুগল থেকে নিয়ে ইডিট করা, কারন আমি যা লিখতাম ওখানে ও একই তথ্য সুন্দর করে দেয়া আছে।তবে ৯৫%+ ই নিজের লেখা

ধৈর্য নিয়ে পরার জন্য ধন্যবাদ।কোনো সমস্যা হলে বা জিজ্ঞাসা থাকলে অবশ্যই জানাবেন।

ফেসবুক: Ashikujjaman Shawon

Leave a Reply