ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম করার জন্য ল্যাপটপ কিনবেন নাকি কম্পিউটার – বিস্তারিত পোস্টে।

 

আশাকরছি করছি আল্লাহ তায়ালার অশেষ রহমতে আপনারা সবাই ভাল আছেন আমিও আল্লাহতালার অশেষ রহমতে ভালো আছি এবং সুস্থ আছি আলহামদুলিল্লাহ।

 

আজকে আমি আপনাদের সাথে আলোচনা করবো ফ্রিল্যান্সিং জব এর জন্য আপনার ডেক্সটপকে নেওয়া উচিত নাকি ল্যাপটপ কেনা উচিত। বর্তমানে বাজারে এই দুই ধরনের জিনিসই খুব সহজলভ্য এবং উন্নত মানের পাওয়া যায়। তো চলুন জেনে নেয়া যাক ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করার জন্য আপনাদের কোনটা কেনা উচিত কম্পিউটার নাকি ল্যাপটপ। কোনটা ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য ভালো সেই বিষয় নিয়ে আজকে আপনাদের সাথে এই পোস্টে আলোচনা করবো তো চলুন কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক।

 

 

বাজারে অনেক ধরনের কম্পিউটার বা ল্যাপটপ পাওয়া যায় কিন্তু আপনার কাজের ধরন বা আপনি কি কাজ করবেন তার ওপর ভিত্তি করে আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপ যেকোনো একটা কিনতে হবে যদি আপনি ফ্রিল্যান্সিংয়ের কাজ করতে চান তাহলে আমি অবশ্যই রিকমেন্ড করব

ল্যাপটপ কেনার জন্য এর অন্যতম প্রধান কারণ হচ্ছে লোডশেডিং। বিদেশে লোডশেডিং না হলেও বাংলাদেশে প্রচুর পরিমাণে ঘনঘন লোডশেডিং হয় এখন আপনি যদি কম্পিউটার দিয়ে ফ্রিল্যান্সিং করেন তাহলে কারেন্ট চলে গেলে আপনি যে কাজ করে নিয়েছিলেন সেটা হারিয়ে যেতে পারে কিন্তু ল্যাপটপ ব্যবহারের ক্ষেত্রে এই ভয় আর থাকেনা।

 

দ্বিতীয় সুবিধা হচ্ছে ল্যাপটপ বহনের সুবিধা। ধরুন আপনি কোন ক্লায়েন্টের কাজ করছেন কাজটি নিয়েছেন সাতদিনের বা 10 দিনের জন্য এমন সময় আপনার যদি কোন আর্জেন্ট কাজে বাইরে যেতে হয় তখন আপনি কি করবেন? এক্ষেত্রে আপনি যদি কম্পিউটার ব্যবহার করেন তাহলে তো আপনি আর কম্পিউটার ক্যারি করে বাইরে যেতে পারবেন না! তাহলে উপায় কি? অবশ্যই ল্যাপটপ ব্যবহার করা। কেননা একমাত্র ল্যাপটপ ব্যবহার করলেই আপনি যেখানে খুশি সেখানে নিয়ে যেতে পারবেন কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই এর ফলে ক্লায়েন্টের কাজ করা অবস্থায় যদি আপনাকে কোথাও আর্জেন্ট যেতে হয় তাহলে ল্যাপটপ সাথে করে নিয়ে সেখানে যেতে পারবেন এবং ক্লায়েন্টের কাজ সম্পন্ন করতে পারবেন।

 

তৃতীয় সুবিধা হচ্ছে আপনি বিছানায় শুয়ে বসে, রান্নাঘরে, ড্রইংরুমে সকলে জায়গাতেই আপনার আরাম মতো ল্যাপটপ ব্যবহার করে ফ্রিল্যান্সিং করতে পারেন বা ক্লায়েন্টের কাজ করতে পারেন। এতে আপনার স্বচ্ছন্দবোধ বেশি হবে কেননা কম্পিউটারে কাজ করতে নিলে একাধারে বসে কাজ করতে হয় অন্য কোন উপায় থাকে না যার ফলে একঘেয়েমি চলে আসে পিঠে ব্যথা হয় এবং আরো নানারকম সমস্যা দেখা দেয়। কিন্তু ল্যাপটপের ক্ষেত্রে আপনি বসে শুয়ে যেমন ইচ্ছা তেমন ভাবে কাজ করতে পারবেন।

 

 

এক্ষেত্রে আমি সাজেস্ট করব এইচপি ল্যাপটপ কেনার। আপনি যদি ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট করতে চান বা গ্রাফিক্স ডিজাইন হতে চান এক্ষেত্রে আপনি 35 থেকে 40 হাজার টাকার ভিতরে খুব ভালো ল্যাপটপ পেয়ে যাবেন এইসব বিষয়ে ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য।

 

আশা করছি পোস্টটি ভাল লেগেছে ভাল লাগলে অবশ্যই আপনাদের বন্ধু-বান্ধবের মাঝে শেয়ার করুন যাতে তারাও উপকৃত হতে পারে পোস্টটি পড়ার জন্য আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ ভাল থাকবেন সুস্থ থাকবেন খোদা হাফেজ। ইনশাল্লাহ আপনাদের সামনে পরবর্তী কোন টিউটোরিয়াল নিয়ে হাজির হব।

Leave a Reply