হামি রিভিউ + লিংক – মুভিটা দেখার সময় কখন ছোটবেলার স্কুলের স্মৃতির জালে ফেঁসে যাবেন টেরও পাবেন না!

🎬 সিনেমা – হামি

🌐 জানরা – কমেডি, ড্রামা

🕰 রিলিজ – ২০১৮

👤 পরিচালক – Shiboprosad Mukherjee, Nandita Roy

মুভির নাম অনুযায়ী হামি আসলে একটি বাচ্চাদের ভাষা যা আমরা বাংলায় চুমু এবং ইংরেজীতে কিস বলে থাকি।

এই মুভি আইএমডিবি রেটিং এ 10 এর মধ্যে 8 পেয়েছে। বিষয়টি আসলে অবাক করারর মতো! কলকাতার বাংলা মুভি সাধারণত আইএমডিবি রেটিং এত ভাল হয় না।

গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি এই মভি তার প্রাপ্য রেটিং পেয়েছে কলকাতা এত ভালো মুভি আমি জীবনেও দেখিনি। এই মুভিটা যেমন আমাদের হাসাবে তেমনি অনেক বড় একটা শিক্ষা দিবে আমাদের মডার্ন  মানুষদের জন্য।

স্কুলে পড়ো নার্সারি বাচ্চাদের কেন্দ্র করে এই মুভি বানানো হয়েছে তাদের শৈশবের সকল কিছু এবং স্কুলে করা ছেলেমানুষি নিয়ে এই মুভিটা বানানো।

যেমনটা আমরা স্কুল লাইফের ছোট থাকতে একবার হলেও অন্তত করেছি। বিশেষ করে আমি করেছিলাম সেটা আমার এখনো মনে আছে।

ক্লাস ওয়ানে থাকতে একটা মেয়েকে আমার প্রচুর ভালো লাগতো একদিন না বুঝে হঠাৎ করেই তার সামনে গিয়ে আই লাভ ইউ বলে ফেলেছিলাম, যাই হোক

মুভি প্লটটা এরকম কাহিনী নিয়েই। আসলে এটাই ছোটদের পবিত্রতা প্রকাশ পায়, তারা কতটা নিষ্পাপ এটা বোঝা যায়।

তবে এখনকার মূল সমস্যা হচ্ছে শহরের বাবা-মার। তারা তাদের সন্তানকে নিয়ে সব সময় অাতঙ্কে থাকেন কাউকেই বিশ্বাস করেন না। তার ছেলে অন্য কারো সাথে মিশলে খেলাধুলা করলে তাদের প্রবলেম হয়।

ছোট থাকতেই একজন আরেকজনের সাথে প্রতিযোগিতায় লাগিয়ে দেয় ইত্যাদি। এককথায় আজকের আধুনিক অভিভাবকেরা নিজেদের বাচ্চাদের নিয়ে খুব বেশি পজেটিভ।

মানে তাদের বাচ্চারা যেন কোনদিন ভুল করতেই পারে না ছোট বাচ্চাদের মধ্যে ছোটখাটো ঝগড়া লাগলে তাদের অভিভাবকরা বিষয়টাকে আরো বড় করে ফেলে। বিশেষ করে মায়েরা।

ঝগড়া ছোট বাচ্চারা করেছে কিন্তু অভিভাবকরা একে অপরের সাথে ঝগড়া লাগিয়ে দেয়। একটা ছোট ব্যাপার প্রিন্সিপালের কাছে গিয়ে আরও জল ঘোলা করে।

সত্যি বলতে এরকম কাউকে ভালো লাগা, ঝগড়াগুলো কোনো নতুন কিছু নয়। তারা এগুলো না বুঝে করে থাকে। আর এইসব সামান্য বিষয় নিয়ে তাদের অভিভাবকরা যে রিএকশন যে কারবার করে সেটা একেবারেই মানানসই নয়।

এই সিনেমাটা এইসকল কাহিনী নিয়ে ঘেরা। ছোটদের সামান্য কাণ্ড নিয়ে বাবা-মার অতিমাত্রায় বাড়াবাড়ি, অভিভাবকদের মধ্যে ঝগড়া আর তার সাথে এক ঝুড়ি হাসি নিয়ে এই মুভি বানানো।

এই মুভিটা দেখলে হয়তো আপনিও আপনার বাচ্চার সাথে যে ব্যবহার করেন সেটার পরিবর্তন আনবেন।

এই মুভিটা দেখলে আশা করা যায় প্রত্যেকটা অভিভাবক বুঝতে পারবে বাচ্চাকালে সকলেই এতোটুকু দুষ্টামি এবং অন্যের প্রতি ভালো লাগা কাজ করে এটা অস্বাভাবিক নয়।

মুভিটা আমাদের সকলের জন্য যেমন শিক্ষণীয় তেমনি প্রচুর পরিমাণ হাসিতে ভরপুর। বুঝতে পারছেন বাচ্চাদের নিয়ে মুভিটা বানানো। তাই কি পরিমান হাসির সিন থাকবে সেটা মুভি দেখলেই বুঝতে পারবেন।

প্রত্যেকটা অভিনেতা এবং ছোট অভিনেতারা তাদের দারুণ কমেডি দিয়ে পুরো সিনেমা মাত করে রেখেছেন।

মুভিটা বোরিং হওয়ার চান্স একেবারেই নেই। আপনি আপনার পরিবারের সকলের সাথে সকল বয়সের সদস্যের সাথে এই মুভি দেখতে পারবেন।

মুভিতে বাচ্চাদের কাজ কারবার যত দেখতে থাকবেন তত হাসবেন। মুভিটা দেখার সময় খুব বেশি অবাক তখন হয়ে যাবেন যখন দেখবেন কিছু কিছু সিন একেবারে আপনার সাথে মিলে গেছে। কিন্ডারগর্টেনে থাকার সময় আপনি যা যা করেছিলেন সবকিছুই মিলে যাচ্ছে তখন ছোটবেলার স্মৃতির কথা মনে পড়লে কি যে ভালো লাগে তা বলে বোঝানো সম্ভব না।

চাইলে মুভিটা আপনাদের পুরনো বন্ধুবান্ধবের সাথে দেখতে পারেন, যাদের সাথে আপনি স্কুল জীবন অতিবাহিত করেছেন। বন্ধুদের সাথে মুভি শেষ করার পর আবেগে আপ্লুত হয়ে যেতে পারেন। 

যাই হোকক, দারুন গল্প এবং অসাধারণ অভিনয় দিয়ে মুভিটা যেমন অনেক পুরস্কার জিতেছে তেমনি লাখ লাখ মানুষের প্রশংসা অর্জন করেছে।

পরিবারের সদস্য অথবা পুরনো বন্ধুবান্ধব নিয়ে মুভি দেখার জন্য আমি সবচাইতে ভালো চয়েস বলে আমার মনে হয়।

মাত্র 80 লাখ বাজেট নিয়ে বানানো মুভিটি 7 কোটি এর ওপরে ইনকাম করেছিল বুঝতেই পারছেন মানুষ কতটা আনন্দের সাথে এই মুভিটা গ্রহণ করেছিল।

ডাউনলোডের লিংক লাগলে নিচে থেকে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

নিচের লিংকে ক্লিক করুন। যে ওয়েবসাইট আসবে সেটার একটু নিচে যাওয়ার পরে LET’S START নামে বাটন পাবেন সেটাতে ক্লিক করুন। তাহলে কয়েক সেকেন্ড অপেক্ষা করার পর ডাউনলোড লিঙ্ক চলে আসবে।

লিংক: Click Here

সাইজ 1 জিবি




আশা করি পোস্টটি আপনাদের ভালো লেগেছে

Leave a Reply