ডাচ বাংলা ব্যাংক স্টুডেন্ট একাউন্টের সুবিধা, খরচ এবং বিস্তারিত।

ডাচ বাংলা ব্যাংক বাংলাদেশের অন্যতম শীর্ষ ব্যাংক এবং অনেক লোক ডিবিবিএল স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্টের তথ্য জানতে চায়। ইন্টারনেটে ডাচ বাংলা ব্যাংকের স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্টের উপর প্রচুর তথ্য রয়েছে তবে তাদের বেশিরভাগই অপ্রাসঙ্গিক এবং বিভ্রান্তিকর।

সে কারণেই আমি ঠিক করেছি ডাচ বাংলা ব্যাংকের স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্টের সঠিক তথ্য আপনাদের সামনে উপস্থাপন করবো, যাতে আপনি যখনই ডাচ বাংলা ব্যাংকে কোনও স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্ট খুলতে যান আপনি প্রস্তুত থাকতে পারেন। । চলুন শুরু করি।

DBBL একাউন্ট করতে গেলে আপনাকে কিছু ডকুমেন্টস দিতে হবে।

এক নজরে প্রয়োজনীয় ডকুমেন্টস

আপনার সাম্প্রতিক পাসপোর্ট আকারের ফটোগ্রাফটির 2 কপি ছবি।
আপনার জাতীয় পরিচয় পত্র বা জন্ম নিবন্ধনের ফটোকপি।

আপনার শিক্ষার্থী আইডি কার্ডের একটি ফটোকপি। অথবা আপনার যে কোনও শিক্ষাগত সার্টিফিকেট এর একটি ফটোকপি।

নমিনির 1 কপি ছবি ও জাতীয় পরিচয় পত্র।

ব্যাস, এই ডকুমেন্টগুলি দিয়ে আপনি সহজেই ডাচ বাংলা ব্যাংকের যে কোনও শাখায় আপনার শিক্ষার্থীর অ্যাকাউন্ট খুলতে পারবেন। এখন আমরা স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্টের লিমিট একবার দেখে নিই।

ডিবিবিএল শিক্ষার্থীদের অ্যাকাউন্টের সীমা

ডাচ বাংলা ব্যাংকে আপনার স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্টের জন্য, অর্থ জমা এবং উত্তোলনের বিষয়ে আপনার কিছু নির্দিষ্ট লিমিট রয়েছে। আপনি স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্ট খোলার আগে আপনার যে সমস্ত বিষয় জেনে রাখা দরকার তা এখানে।

আপনি আপনার স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্টে প্রতি মাসে সর্বাধিক 2,00,000 টাকা জমা এবং উত্তলন করতে পারবেন।

আপনি প্রতিদিন সর্বোচ্চ 50,000 টাকা উত্তলন করতে পারবেন।

দিনে 5 বার এটিএম কার্ড ব্যবহার করে আপনার অ্যাকাউন্ট থেকে অর্থ তুলতে পারবেন।

ডিবিবিএল শিক্ষার্থীর অ্যাকাউন্ট চার্জ এবং সুবিধাসমূহ।

ডাচ বাংলা ব্যাংকের স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্ট চালানোর জন্য খুব বেশি খরচ হবে না। বিস্তারিত এখানে।

অ্যাকাউন্ট রক্ষণাবেক্ষণের জন্য
আপনার বছরে আপনার একাউন্ট যদি লেনদেন ২৫০০০-২০০০০০ টাকা হয় আপনাকে প্রতি বছর যথাক্রমে ১০০-২০০ টাকা চার্জ করা হবে।

ডাচ বাংলা ব্যাংকে স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্ট খুললে আপনি এটিএম কার্ড পাবেন এবং এটি সম্পুর্ন ফ্রি এবং বাৎসরিক কোন চার্জ নেই ।

ডিবিবিএল স্টুডেন্ট অ্যাকাউন্টের সুদের হার ৩.৫%।

ফ্রিতে ইন্টারনেট ব্যাংক সেবা ব্যবহার করতে পারবেন।

Leave a Reply