আপনার অ্যান্ড্রোয়েড মোবাইলকে সুরক্ষিত রাখতে ব্যবহার করুন এই গুলো

অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপ, আমাদের স্মার্ট ফোনের জন্য যে কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেটা আমাদের কারও কাছেই কিন্তু অজানা নয়।
মোবাইলকে ভাইরাসমুক্ত, গতিশীল ও সুরক্ষিত রাখতে আপনার ফোনে অন্ততো একটি অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপ রাখতেই হবে।

ভাইরাস বা ম্যালওয়্যার কি শুধুই আপনার কম্পিউটার বা ল্যাপটপকে আক্রমণ করে?

আপনার স্মার্টফোনও কিন্তু যেকোনও সময় এর শিকার হতে পারে।

তাই আমারটিপ্সতে আজকে আমার নতুন বিষয় হচ্ছে, কয়েকটি গুরুত্বপুর্ন অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপ রিভিও।

নিজের স্মার্টফোনকে সুরক্ষিত রাখতে তাই জেনে রাখুন এই অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপগুলি সম্পর্কে।

৩৬০ ডিগ্রি সিকিউরিটি

প্লেস্টোর এর অন্যতম জনপ্রিয় অ্যান্টিভাইরাস অ্যাপ। যে কোনও ফাইলকে স্ক্যান করতে পারে। ডিভাইসকে ম্যালওয়্যারের হাত থেকে সুরক্ষা দেয়।
এছাড়াও এই অ্যাপের ওইজেট এর মাধ্যমে একটি ট্যাপ করেই ফোনকে স্ক্যান করতে পারবেন।

অ্যান্ডোয়েড অ্যাসিটেন্ট

এই অ্যাপটিও অনেক জনপ্রিয়। ফোনকে ভাইরাস মুক্ত করার পাশাপাশি এতে রয়েছে অ্যাপ ব্যাকআপ আপশন, যার মাধ্যমে খুব সহযেই প্লেস্টোে থেকে ইনস্টল করা অ্যাপ ম্যামরি কার্ড এ নিতে পারবেন।

ক্লিন মাস্টার

ভাইরাস মুক্ত করার বহুল ব্যবহৃত একটি অ্যাপ,

মেমরি স্ক্যান করে ফোনের যার্ম ফাইল ক্লিন করে এবং অ্যাপ স্ক্যান করে RAM খালি করে।
এছাড়াও এই অ্যাপ এ রয়েছে এ্যাপ লকার, যাতে আপনার প্রয়জনিয় এ্যাপগুলি লক করে রাখতে পারবেন।
অ্যান্টিভাইরাস অ্যান্ড মোবাইল সিকিউরিটি বাই ট্রাস্ট গো
খতরনাক ভাইরাস ও ম্যালওয়্যার থেকে আপনার ফোনকে সুরক্ষা দেয়। এই অ্যাপে রয়েছে প্রাইভেসি গার্ডের সুবিধাও।

নর্টন সিকিউরিটি অ্যান্ড অ্যান্টিভাইরাস-

যেকোনও ধরনের ভাইরাস অ্যাটাক থেকে আপনার ফোনকে সুরক্ষিত রাখবে এই অ্যাপ। হ্যাকিং থেকেও সুরক্ষা দেবে।

অ্যাভিরা অ্যান্টিভাইরাস-

রয়েছে অ্যান্টি-থেফ্ট, অ্যান্টি-প্রাইভেসি, আইডেন্টিটি সেফগার্ড।

এভিজি অ্যান্টিভাইরাস-

ক্রমাগত ফোনের ডেটাবেস স্ক্যান করে। এছাড়া আছে ব্যাটারি মনিটরিং, কল ব্লকিং-এর সুবিধাও রয়েছে এই অ্যাপ এ।
উপরের সব অ্যাপগুলিই আপনি প্লে স্টোর এ পেয়ে যাবেন।
আপনাদের পছন্দ অনুযায়ি যে কোন অ্যান্টি ভাইরাস অ্যাপ ব্যবহার করতে পারেন।
কারন আপনার ফোনকে সুরক্ষিত ও ভাইরাস মুক্ত রাখতে আপনার অ্যান্টি ভাইরাস এ্যাপ ব্যবহার করা খুবই জরুরি।

Leave a Reply