সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি? কেন? কিভাবে?

বর্তমান সময় এমন একজন মানুষ পাওয়া যাবে না যে সোশ্যাল মিডিয়ার সাথে সম্পর্কযুক্ত নয়।ইন্টারনেটের ছাড়াছাড়ি আর ফেসবুকের কল্যাণে আমরা সবাই কম-বেশি সোশ্যাল মিডিয়ার সাথে যুক্ত। আর সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের ফলে আমাদের কিন্তু বেশ উপকার হচ্ছে। যাদের সাথে মাসে তো দূরে থাক বছরেও একবার যোগাযোগ করা সম্ভব ছিল না তাদের সাথে যোগাযোগ করা এখন কয়েক সেকেন্ডের ব্যাপার মাত্র।

প্রথম দিকে সোশ্যাল মিডিয়া গুলো শুধু সামাজিক যোগাযোগ রক্ষার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হতো। কিন্তু বর্তমানে এগুলো শুধুমাত্র যোগাযোগের ক্ষেত্রে ব্যবহার হয় না। এখন আপনি চাইলে সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহার করে আপনার ব্যবসা শুরু করতে পারেন। আর শুধু ব্যবসা নয় চাইলে আপনার পণ্য বা সেবাকে মানুষের কাছে জনপ্রিয় করে তুলতে পারেন।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কি?

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং কে সংক্ষেপে এসএমএম বলা হয়। সহজভাবে বলতে গেলে, সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং ওয়েবসাইটের সাহায্যে কোন পণ্য বা সেবার প্রচার করাকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বলে।

আস্তে আস্তে সোশ্যাল মিডিয়া যেমন আমাদের দৈনন্দিন জীবনের গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে উঠছে ঠিক অন্যদিকে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং ও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মাধ্যমে অতি সহজেই টার্গেট কাস্টমারের কাছে বিজ্ঞাপন প্রচার করা যায়। সাধারণত কোন টিভি চ্যানেলে বিজ্ঞাপন প্রচার করা হয় তাহলে সে বিজ্ঞাপনটি সকলেই দেখে। এতে টার্গেট অডিয়েন্স পাওয়া খুবই কষ্টকর। কিন্তু যদি সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে বিজ্ঞাপন প্রচার করা হয় তাহলে আপনি নির্দিষ্ট কাস্টমার বেছে নিতে পারবেন।

কেন করবেন?

এ বিষয়টা ইতিপূর্বে ক্লিয়ার হয়েছে আমরা সকলেই সোশ্যাল মিডিয়ার সাথে যুক্ত। তাই সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করলে স্বল্প খরচে অনেক কাস্টমার পাওয়া সম্ভব। আবার আপনি যদি চিন্তা করেন নির্দিষ্ট কোন প্রোডাক্ট নিয়ে কাজ করবেন। যেমন কোন কসমেটিকস বা লেডিস প্রোডাক্ট। তাহলে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে নির্দিষ্ট অর্থাৎ লেডিস কাস্টমারের কাছে আপনার বিজ্ঞাপনটি পৌঁছে দিতে পারবেন। আরে বিষয়ে আমাদের সকলেরই ধারণা রয়েছে যে যত প্রচার করা সম্ভব ততই লাভ।

বর্তমান সময়ে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং বহির্বিশ্বে ব্যাপক বিস্তার লাভ করেছে। আমাদের দেশেও স্বল্পমাত্রায় সোশল মিডিয়া মার্কেটিং শুরু হয়েছে।তবে আশা করা যায় অদূর ভবিষ্যতে আমাদের দেশের সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং ব্যাপক বিস্তার লাভ করবে।

কিভাবে করবেন?

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং করার জন্য আপনাকে নির্দিষ্ট কোন প্লাটফর্মে বেঁচে নিতে হবে।বর্তমান সময়ে সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর জন্য অন্যতম একটি প্ল্যাটফরম হল ফেসবুক। ফেসবুক দিয়ে আপনি অনেক অডিয়েন্স পাবেন। আপনার বিজ্ঞাপনটি অনেকের কাছে পৌঁছে যাবে। এতে অবশ্যই লাভবান হবেন। পাশাপাশি আপনার ওই প্রোডাক্টটি মানুষের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠবে।

প্রত্যেকটা প্ল্যাটফর্ম নিয়ে আলাদা আলাদাভাবে আমি আলোচনা করব। তবে এই পর্বে নয়। কারণ এই পর্বে আলোচনা করতে গেলে পর্বটি অনেক বড় হয়ে যাবে। পরবর্তী পর্বগুলো পাওয়ার জন্য অবশ্যই আমাদের সাথে যুক্ত থাকবেন।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর সুবিধা সমূহ

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর সুবিধা বর্ণনা করে শেষ করা যাবেনা। তারপরও বিশেষ কিছু সুবিধা তুলে ধরছি।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিংয়ে ইলেকট্রিক বা প্রিন্ট মিডিয়ার থেকে অনেক কম খরচে বেশি প্রফিট পাওয়া যায়।
সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর মাধ্যমে অডিয়েন্স হিসাব করা যায়। অর্থাৎ কতজন মানুষ আপনার বিজ্ঞাপনটি দেখল, কতজন ওই বিজ্ঞাপনে ক্লিক করে আপনার প্রোডাক্ট কিনলে এসব বিষয় হিসাব রাখতে পারবেন। যা ইলেকট্রিক বা প্রিন্ট মিডিয়ায় কখনোই পসিবল না।
সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর অন্যতম একটি সুবিধা হচ্ছে নির্দিষ্ট অডিয়েন্স পাওয়া যায়। ইলেকট্রিক বা প্রিন্ট মিডিয়ায় কখনো তা কল্পনাও করা যেত না।
সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর আরেকটি অন্যতম সুবিধা হচ্ছে এটা করা খুবই সহজ। যার একটু একটু ধারনা আছে সেও করতে পারবে।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর অসুবিধা সমূহ

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর এত সুবিধার মধ্যেও কিন্তু অসুবিধা রয়েছে। কিছু উল্লেখযোগ্য অসুবিধা নিচে তুলে ধরলাম।

সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর অন্যতম একটি অসুবিধা হচ্ছে কাস্টমারদের সাথে তাদের পরিবারের দূরত্ব সৃষ্টি করে। যদিও এতে প্রতিষ্ঠান বা কোম্পানির কোন ক্ষতি নেই কিন্তু ক্রেতাদের প্রতিনিয়ত ক্ষতি হচ্ছে।
আরেকটি অসুবিধা হচ্ছে ভিত্তিহীন ভুয়া খবর অতি তাড়াতাড়ি মানুষের কাছে ছড়িয়ে যাচ্ছে। যেহেতু সকলেই সোশ্যাল মিডিয়ার সাথে যুক্ত তাই অতি সহজেই একটি ভিত্তিহীন খবর আমাদের সকলের মাঝে ছড়িয়ে পড়ছে এবার আমরা সবাই বিশ্বাস করছি।
চাকরির ক্ষেত্রে সমস্যা সৃষ্টি করা। সোশ্যাল মিডিয়া মার্কেটিং এর ফলে অনেক কঠিন কাজ অতি সহজেই করা সম্ভব বলে অনেকের কর্মক্ষেত্রের বিপর্যয় সৃষ্টি হতে পারে।

আশাকরি সোশ্যাল মিডিয়া সম্পর্কে মোটামুটি ধারনা পেয়েছেন। আগামী পর্বগুলোতে আরো বিস্তারিতভাবে আলোচনা করব সে পর্যন্ত আমাদের সাথেই থাকবেন। সুস্থ থাকবেন ভালো থাকবেন।

Leave a Reply