রেডিমেড স্মার্টফোন কুলার | বাংলা রিভিউ | ফোন গরম হওয়ার এক অভিনব সমাধান।

আসসালামু আলাইকুম কেমন আছেন সবাই,
স্মার্টফোনের হিটিং সমস্যা দূর করার জন্য বাজারে এসেছে স্মার্ট কুলিং ডিভাইস,
গেমিং হেভি ইউজ অথবা চার্জ করার সময় স্মার্টফোন বেশ গরম মনে হয় সাধারণ বা হাই স্পেসিফিকেশন স্মার্টফোনটি যাই হোক না কেন ব্যবহারের সময় কম বেশি গরম হতে পারে।

এখনকার স্মার্টফোনে গুলোতে পাওয়ারফুল সিপিইউ সহ অন্যান্য হার্ডওয়্যার এর কারণে দীর্ঘ অথবা হেভি ইউজ এ এগুলো বেশ গরম হয়ে যায়।
হিটিং সমস্যা সমাধানের জন্য আজ আমার স্টুডিওতে হাজির একটি স্মার্ট কুলিং ডিভাইস। তো এই কুলিং ডিভাইস সম্পর্কে আপনাদের আজ বিস্তারিত জানাবো, একদম নিচে থাকবে কেনার লিংক।

তো আমি যে রেডিমেট কুলাটি সম্পর্কে আপনাদের জানাবো সেটি চাইলে আপনি মোটামুটি সব ধরনের স্মার্টফোনেই ব্যবহার করতে পারবেন।
এটি একটি রিচার্জেবল ব্রাকেট যার সকল ফিচারগুলো তার বক্সের গাই উল্লেখ করা থাকবে।



তো আনবক্সিং করলে যা পাবেন।
প্রথমেই পাবেন ডার্ক গ্রীন কালার এর কুলিং ডিভাইস টি , একটি কোয়ালিটি কন্ট্রোল ট্যাগ , চার্জিং ক্যাবল যেটা প্রায় ৫ ফুট লম্বা একটি মাইক্রো ইউএসবি ক্যাবল।
এত বড় ইউএসবি ক্যাবল দেয়ার মানে হচ্ছে ফোনটি চার্জে দেওয়া অবস্থায় যেন কুলার ডিভাইস টি ব্যবহার করা যায়।

তো এবার জানাবো বিল্ড কোয়ালিটি।

কুলিং বাকেট টি ধরে প্রথমেই ফিল হয় এটি বেশ হালকা একটা ডিভাইস তাই ফোনের সাথে ব্যবহার করলে এক্সট্রা ভার মানে হয় না। ফোন ঠান্ডা রাখার জন্য এতে ৯ ব্লেটের ছোট একটি ফ্যান ব্যবহার করা হয়েছে।
ফ্যানের দুই পাশে রয়েছে সিকিউরিটি গ্রিল যেন হাত লেগে ফ্যান বন্ধ হয়ে না যায়। এ ধরনের ফ্যানগুলো খুব সামান্য বিদ্যুৎ খরচ করে তাই ভিতর থাকা ছোট্ট একটি রিচার্জেবল ব্যাটারি তে দীর্ঘসময় একটানা ব্যবহার করা যায়।

ডিভাইসটির স্ট্রাকচার তৈরিতে সম্ভবত প্লাস্টিক ব্যবহার করলেও ইলেকট্রোপ্লেটিং করায় মেটালিক আবহ তৈরি হয়েছে, বেশ গ্লাসি এবং স্মুথ সারফেস দেয়া হয়েছে তবে সহজেই হাতের ছাপ পড়ে যায়।

ফোনের সঙ্গে এটাস্ট করার জন্য এর একপাশে এক্সটেন্ডবল মাউন্ট ব্যবহার করা হয়েছে।
বেশ লম্বা একটি এক্সটেন্ডার ব্যবহার করায় যেকোনো ফোনেই এটি মাউন্ট করা যায়, আমি বেশ কয়েকটা ফোনে ট্রাই করেছিলাম সবগুলোতে মাউন্ট করা গেছে।

কুলার টির আরেক পাশে রয়েছে একটি চার্জিং পোর্ট চার্জিং এর জন্য ব্যবহার করা হয়েছে মাইক্রো ইউএসবি পোর্ট সাধারণ যে কোন চার্জার এর মাধ্যমে এটি চার্জ করা যায়।
এবং তার পাশেই রয়েছে একটি অন অফ সুইচ যার সঙ্গে রয়েছে একটি চার্জিং ইন্ডিকেটর এলইডি,

ডিভাইসটির অন হলেই ফ্যানের চারপাশে লাইটিং দেখা যায় কম আলোকিত জায়গায় দেখতে বেশ সুন্দর লাগে, এতে ব্যবহার করা লাইটিং সোর্সস অর একটাই ইনভিজিবল অর্থাৎ এভারেজ লাইটিং হাওয়াই আলোর উৎস খুঁজে পাওয়া যায় না।

আমরা জানি ফোনের ক্যামেরা নিচে মানে ফোনের মাঝ বরাবর সিপিইউ এর স্থান থাকে এজন্য ওই অংশটি বেশ গরম মনে হয় যা হাত রাখলে সহজেই বুঝা যায়।
তাই গরম জায়গায় ফ্যানটি সেট করে নিতে হবে।

এই কুলিং বাকেট টি সাইলেন্ট যার ফ্যান ঘোড়ার শব্দ সহজে আপনার কানে আসবেনা, লো ভাইব্রেশন যুক্ত হওয়ায় ফোনের সাথে লাগানো অবস্থায় তেমন কম্পন অনুভূত হয় না।
অনেকের হয়তো মনে হতে পারে এটি মাউন্ট করলে ভলিউম অথবা পাওয়ার বাটনে চাপ পড়ে যাবে। কিন্তু ডিভাইস টি এমনভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যেন বাটনগুলো তে চাপ না লাগে।

আমি যে ফোনটিতে ট্রাই করেছিলাম সেটি প্রায় ৬ ইঞ্চি আকারের ডিসপ্লেযুক্ত তো এই ডিভাইসে মাউন্ট করার পরেও কুলাটি এক্সটেন্ড আরে আরো অনেকটাই জায়গা ছিল তাই চাইলে আরও অনেক বড় আকারের ফোনেও এটি সেট করা যাবে।

আর মাউন্ট হোল্ডার গুলো এমন ভাবে ডিজাইন করা হয়েছে যেন ফোনের ডিসপ্লে ঢেকে না যাই, কুলার টির নিচের অংশে কিছুটা ফাঁকা জায়গা রয়েছে বাতাস চলাচলের জন্য।

গেমিং অথবা ভারী কাজের সময় স্মার্টফোনের সঙ্গে কুলাটি লাগিয়ে রাখলে ধীরে ধীরে বাতাসের প্রবাহ চলতে থাকে তাই ফোনটি একটি নির্দিষ্ট তাপমাত্রার বেশি গরম হতে পারে না।

গরম অবস্থায় মাউন্ট করলেও অল্প সময়ের মধ্যেই স্বাভাবিক তাপমাত্রায় চলে আসে,

যে কোন স্মার্টফোন দীর্ঘদিন একটা না গরম হতে দিলে এর পারফর্মেন্স দিন দিন খারাপ হতে থাকে। আপনাদের নিত্য ব্যবহারের স্মার্টফোনটি ভালো রাখার উদ্দেশ্যে একটি কুলিং বাকেট সম্পর্কে জানানোর চেষ্টা করলাম।
ডিভাইসটি চাইলে আপনারা কিনতে পারবেন এই লিংকে ক্লিক করে। অর্ডার করলে হোম ডেলিভারি পেয়ে যাবেন, বর্তমানে এই ডিভাইসটির দাম রয়েছে ৪৯০ যা যে কোনো সময়ই কমবেশি হতে পারে।

পোস্টটি আজ এখানেই শেষ করবো ভালো লাগলে লাইক ও শেয়ার করবেন,
আর এই প্রোডাক্ট সম্পর্কে আরো বিস্তারিত জানার জন্য কমেন্ট বক্সে কমেন্ট করবেন তো ভাল থাকুন সবাই আল্লাহ হাফেজ।

Leave a Reply