জেনে নিন ইসলামের মূলনীতি – Amartips.Mobi

আসসালামু ওয়ালাইকুম ।

প্রিয় মুসলমান ভাই আপনারা কেমন আছেন ।
আশা করি ভালো আছেন । আল্লাহর রহমতে আমিও অনেক ভালো আছি ।

মাসলামান ভাইয়েরা আজ আমরা জানবো ইসলামের মূল নীতি সম্পর্কে ।চলুন জেনে নিই ।

আল্লাহ্ তায়ালা এ পৃথিবীতে বিরাট বড় দায়িত্ব দিয়ে গৌরবান্বিত করেছেন।

আর এ দায়িত্ব যে শিক্ষার মাধ্যমে স্বার্থক ও সফল করতে পারা যায় সে শিক্ষাই হল ইসলামী শিক্ষা। যে শিক্ষা মানুষকে
আল্লাহর সঙ্গে, আল্লাহর সৃষ্টি সম্পর্কে, মানুষের সাথে ভাল সম্পর্ক করে তুলতে সহযোগিতা করে এটাই হল ইসলামী শিক্ষা।

এ পৃথিবীতে মানুষ জন্মগ্রহণ করার পরে প্রধান কর্তব্য এবং দায়িত্ব
আছে দুটি। প্রথমতঃ হল
আল্লাহর জন্য দ্বিতীয় হল
আল্লাহর তায়ালার জন্য
সৃষ্টির প্রতি। আল্লাহ্ তায়ালার প্রতি যে
কর্তব্য তাঁকে বলা হয়ে থাকে হককুল্লাহ, অর্থাৎ আল্লাহ্তা য়ালার হক।আল্লাহ তায়ালার হক হল ধর্মীয় অনুষ্ঠানগুলো। যেমন –
1.নামায

2.রোজা,

3.যাকাত,

4.হজ

ইত্যাদি। আর দ্বিতীয় হল
হককুল খালক, তার মানে হল আল্লাহর সৃষ্টির জন্য দায় – দায়িত্ব। এইটাকে আবার দুই ভাগে ভাগ করা হয়েছে। প্রথম
ভাগে মানুষ আর দ্বিতীয় ভাগে অন্যান্য সৃষ্টি কুল। যে শিক্ষা দ্বারা মানুষের প্রতি মানুষের কর্তব্য কতটা বা দায়িত্ব কতটুকু জানা যায় তাকেই ইসলামী শিক্ষা হিসাবে মুল্যায়ন করা যায়।

মানুষের জীবন তিনটি স্তরে
বিভক্ত। যেমন
(১) জন্মের
পূর্বের সময়,

(২) জন্মের
পরের সময়।

(৩) ইন্তেকালের
পরের সময়।

যে শিক্ষা দ্বারা এ তিনটি স্তর সম্পর্কে জ্ঞানঅর্জন করা যায় বা জানা যায় এটাই হল ইসলামী শিক্ষা।
মহান আল্লাহ্ তায়ালা মানুষের কল্যানের জন্য এ সৃষ্টি কুলের সব বস্তু প্রাণী এবং প্রদার্থকে সৃষ্টি করেছেন। মহান আল্লাহ্ রাব্বুল আলামীনের এ মহৎ ইচ্ছাকে উপলব্ধি করা তার ব্যক্তিজীবনে তার
প্রয়োজনীয়তা সঠিক ভাবে
কাজে লাগাতে পারে যেই
শিক্ষার মাধ্যমে তাই ইসলামী শিক্ষা।
ইসলামের ইবাদাতের প্রধান

আনুষ্ঠানিক ভাবে ইবাদত, যথাঃ নামায রোজা ইত্যাদি, হযরত মুহাম্মদ (সাঃ) বলেছেন, একজন মানুষের প্রতিটি ভাল কাজ আর সৎ কাজ ইবাদতের সমান। তাই যে

জ্ঞান বা শিক্ষা মানুষকে ভাল কাজ ও সৎ কাজ চালিত করে সে শিক্ষাই হল ইসলামী শিক্ষা নামে অভিহিত।

আল্লাহ্ তায়ালা সৃষ্টি পৃথিবীতে জানার এবং চেনার জ্ঞানর্জনের পথে কঠিন ও কোঠর গবেষণার স্পষ্টভাবে নির্দেশ আছে। যে শিক্ষার দ্বারা মানুষকে এ পথের পথিক হিসাবে রুপান্তরিত করতে পারে
সে শিক্ষাই ইসলামী শিক্ষা।

আসল কথা হল, যে শিক্ষা
দ্বারা দুনিয়ার চরাচরকে এক এবং অভিন্ন করতে পারে আত্মার আর দেহের সমন্বয় সাধিত করতে পারে, পরকাল আর ইহকালের রাস্তা দেখিয়ে
দিতে পারে, জীবন আর মৃত্যুর সন্ধি তৈরি করতে পারে সে শিক্ষাই হল ইসলামী শিক্ষা ।

তো বন্ধুরা আশা করি পোষ্টটি ভালো লেগেছে ।

যদি কোন ভুলক্রটি হয়ে থাকে তাহলে ক্ষমা করে দিবেন ।

আজকের মত বিদায় ।

খোদা হাফেজ ।

Leave a Reply