চলুন পাঁচটি সেরা হলিউড সিনেমার ট্রিলোজি! দেখে আসি।

আসসালামু আলাইকুম ,
কেমন আছেন সবাই আশা করি আল্লাহর রহমতে ভালই আছেন।

মাস্টারপিস এলার্ট সিরিজ ভিত্তিক সিনেমার একটি বিশেষ ক্যাটাগরি হচ্ছে ট্রিলোজি ভিত্তিক ফিল্ম এটি কোন যেকোনো স্পেসিফিক জনরা নয়।
ডিকশনারির মতে তিনটি সত্যেন্দ্র কাজের একটি সেটকে ট্রিলজি বলা যেতে পারে।
ঠিক তেমনি তিনটি আলাদা সিনেমা পর্ব আকারে একটি ফিল্ম সিরিজের অন্তর্ভুক্ত হলে সেটি ফিল্মি ট্রিলজি, সিনেমায় ট্রিলোজির কনসেপ্ট টি বেশ পুরনো তিনটি সিনেমার মাধ্যমে একটি স্পেসিফিক গল্প পেজেন্ট করার বিষয় ও অনেকটা টাফ।

কিন্তু ঠিকঠাক ভাবে তৈরি করতে পারলে দুর্দান্ত কিছু তৈরি হয় ঠিক এমনই কিছুকাল ক্লাসিকো মাস্টারপিস ট্রিলজি নিয়ে আমার আজকের আয়োজন।

১। Back to the future
সাইন্স ফিকশন সিনেমা মানেই যে জটিলতায় ভরা দুর্বোধ্য স্টোরিলাইন আর প্রচণ্ড গম্ভীর প্রেজেন্টেশন বলে সাধারণ মানুষের ধারণা আছে, ঠিক এই ধারণাকে ভুল ধারণা করেছেন রবার্ট জেম রিক্স তার ব্যাক টু দ্য ফিউচার ট্রিলজি তে।
টাইম ট্রাভেলের মত কমপ্লেক্স কনসেপ্টকে দারুণভাবে যতসম্ভব সহজ করে তুলে ধরা হয়েছে এই সিনেমাগুলোতে।
থ্রিল্লের কোন কমতি নেই তার সঙ্গে রয়েছে দারুণ সব কমিক্যাল এনিমেলস যা আপনাকে স্ক্রিনের সামনে বসিয়ে রাখতে যথেষ্ট। এই ট্রিলজি প্রতিটি পাট দারুণ এনজয় বল সাইন্স ফিকশন সিনেমা লাভার হলে ব্যাক টু দ্য ফিউচার ট্রিলজি নিঃসন্দেহে আপনার পছন্দের লিস্টে জায়গা করে নেবে।
এই ট্রিলোজির প্রথম পর্ব বেস্ট সাউন্ড এডিটিং এর জন্য অস্কার জিতে নিয়েছিল।

২। Before
রোমান্টিক সিনেমা লাভার হলে এতদিনে এই সিনেমাটা দেখে ফেলার কথা, রোমান্টিক সিনেমা ও যে এতটা দারুন হতে পারে তার সেরা উদাহরণ বিফোর ট্রিলজি।

সিনেমায় নেই কোন গতানুগতিক ধারা মেলোড্রামাটিক লাভ স্টোরি নেই কোন অপ্রয়োজনীয় রোমান্টিক অ্যাঙ্গেল, সিনেমাগুলি যথাযথভাবে বাস্তবের সঙ্গে মিলিয়ে নির্মাণ করা হয়েছে।

রমান্টিক ড্রামা এর বিফোর ট্রিলজি প্রতিটি সিনেমার নাম ই একটি আলাদা অর্থ বহন করে, বিফোর সানরাইজ , বিফোর মিডনাইট প্রতিটি নাম এর মর্মার্থ সিনেমাটি দেখলেই খুব ভালোভাবেই উপলব্ধি করতে পারবেন।
এই ট্রিলোজির অন্যতম সেরা দিক হলো এর রাইটিং এছাড়াও মন মুগ্ধ করার মত কিছু লোকেশন আর লেট কাসদের মধ্যে ক্রিমিস্ট্রি আপনার অসাধারণ লাগবেই।

ট্রিলজিটা কে এত দারুন ভাবে সাজানো হয়েছে যে সিনেমাগুলো শেষ হওয়ার পরও গল্পের মাঝেই থেকে যাবে, এক ট্রেন জার্নি থেকে শুরু হওয়া গল্পের শেষ পরিণতি আপনাকে শুধু মধ্য ই করবে। এই সিনেমার তিনটি পর্ব ৯ বছর পরপর টোটাল ১৮ বছরে মুক্তি দেয়া হয়েছে।

৩। The dark Knight
পরিচালকের আসনে ক্রিস্টোফার নোলান আর অভিনেতা হিসেবে রয়েছেন ক্রিশ্চিয়ান বেল মর্গান ফ্রিমান মাইকেল সহ আরো অনেকে, তার ওপরে আবার সিনেমার মেন কনসেপ্ট বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় সুপারহিরো ব্যাটসম্যান কে নিয়ে, আর এ সব মিলে তৈরি হলো বিশ্বের সবচাইতে সেরা ফিল্ম ট্রিলজি।

আপনি মার্বেল কিংবা ডিসির যার ই ফ্যান হোন না কেন দা ডার্ক নাইট ট্রিলজি যে সেরা তা আপনি মানতে বাধ্য, একটা সুপারহিরো অরজিন এক্ত দারুণভাবে ডার্ক আর রিয়েলিস্টিক ভাবে প্রেজেন্ট করেছে যা আপনাকে মুগ্ধ করতে বাধ্য।
এছাড়া তার সাথে নোলানের আইডিওলজি তো রয়েছেই।

তবে শুধুমাত্র ব্যাডম্যানেই ডুবিয়ে রাখা হয়নি তার সাথে সেই সময়ের সমাজ ব্যবস্থাকেও খুবই সূক্ষ্মভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে, আর সবচাইতে মজার বিষয় হলো এক হিপ লেজারের জোকার পারফরম্যান্স ফিল্ম সিরিজটাকে যেন তার নিজের করে নিয়েছে।ইনফ্যাক্ট তার পারফরম্যান্স এত টাই মারাত্মক লেভেলের ছিল যে কিছুদিন আগে পর্যন্ত তাকে ছাড়া এই চরিত্র কল্পনাই করা যেত না।

এত সব মিলিয়ে ট্রিলজি টি এখন প্রতিটি সিনেমা লাভারদের সেরার তালিকায় স্থান পেতে বাধ্য, দা ডার্ক নাইট ট্রিলজির তিনটি সিনেমা মিলিয়ে অস্কারের ৯টি নমিনেশন সহ দুইটি অস্কার জিতে নেয়।

৪। The Lord of rings
লর্ড অফ দ্য রিংস ট্রিলজি একটা সিনেমা ও দেখেননি এমন সিনেমা প্রেমী হয়তো খুঁজেই পাওয়া যাবে না, কিছু সিনেমা হয় সেরা আর কিছু সিনেমা হয় সেরার সেরা ঠিক তেমনই একটি সিরিজ হল লর্ড অফ দ্য রিংস।

আপনার কল্পনার জগৎকে বড়োসড়ো ঝাঁকুনি দেয়ার মত একটি ট্রিলজি হলো লট অফ দ্য রিংস, সেই উনিশটি রিংস মিডিল আর্টসের সম্প্রদায় গুলি ডার্ক লর্ড মাউন্ট , রক্ত ক্ষয় সব যুদ্ধ সবকিছু মিলে নস্টালজিয়ায় ভরা এই ট্রিলজি টি।
এই সিরিজটি সবকিছুই সেরা ইনফ্যাক্ট ওই সময় দাঁড়িয়ে এমন হাই প্রোডাকশন কোয়ালিটি সম্পূর্ণ সিনেমা বানানো সত্যিই বিস্ময়কর ছিল, তিনটি সিনেমা মিলিয়ে টোটাল রানটাইম প্রায় ১২ ঘন্টার মতো হলেও সিনেমাগুলি দেখার সময় আপনার সময়ের খেয়াল থাকবে না।সিনেমাগুলি টোটাল ত্রিশটি অস্কার নমিনেশন সহ ১৭ টি অস্কার জিতে নেয়।

৫। Godfather
কিছু সিনেমা রয়েছে যেগুলোকে ঠিক গুটিকয়েক শব্দ দিয়ে বর্ণনা করা যায় না, কিছু সিনেমা রয়েছে যেগুলোকে অ্যাওয়ার্ড দিয়ে বিবেচনা করা যায়।

কিছু সিনেমা রয়েছে যেগুলোকে ডি ফাইন্ড করার জন্য কোন রেটিং ম্যাটার করে না, আর কিছু সিনেমার উদাহরণ শুধু সেই সিনেমায় ঠিক এমনই একটি সিনেমার ট্রিলজি হলো দ্য গডফাদার ট্রিলজি।

সর্বকালের সেরা সিনেমার তালিকা করলে এই ট্রিলোজির অন্তর্ভুক্ত দুটি সিনেমা থাকবেই বা থাকতে বাধ্য।
ক্রাইম গ্যাংস্টার, মাফিয়া ,ফ্যামিলি ,পলিটিক্স ইস্যু, এসব কিছুর এক মারাত্মক কম্বিনেশন হলো দ্য গডফাদার ট্রিলজি।
এবং প্রত্যাশিতভাবে ট্রিলজি টির অর্জনের পরিমাণ ও অনেক বেশি যেমন সিরিজের দুটি সিনেমা আই আইএমডিবিতে যথাক্রমে ২-৩ পজিশনে রয়েছে।

তাছাড়া এই ট্রিলজি সিনেমা গুলো অ্যাওয়ার্ড শো তে বাজিমাত করেছিল, তারমধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য ১০টি শুধু অস্কারি ছিল।

[h]অবশেষে খুলে ফেললাম আমার অফিশিয়াল ইউটিউব চ্যানেল, সাবস্ক্রাইব করার জন্য এখানে ক্লিক করুন। আমি আশাবাদী সবাই সাবস্ক্রাইব করবেন।[/h2]

শেষ করছি আমার আজকের পোস্ট, পোস্টটি ভাল লাগলে অবশ্যই লাইক করুন শেয়ার করুন কমেন্টস করে আপনার মূল্যবান মতামত জানান।
ফিরে আসছি পরবর্তী পোষ্টে ততক্ষণ পর্যন্ত ভালো থাকবেন সুস্থ থাকবেন আল্লাহ হাফেজ।

Leave a Reply