আমার ই-পাসপোর্ট হাতে পাওয়ার অভিজ্ঞতা। দেখুন কাজে লাগবে।

🛂 ই-পাসপোর্ট করার অভিজ্ঞতা 🛂

RPO: গাজীপুর 🌱
পাসপোর্টের ধরনঃ ৪৮ পেইজ, ১০ বছর
পাসপোর্ট ফিঃ ৫৭৫০ টাকা
🔸🔸🔸🔸🔸🔸🔸🔸🔸🔸🔸🔸

২৫-০৯-২০২০
পাসপোর্টের জন্য অনলাইনে ফরম ফিলাপ করি।

০১-১০-২০২০
সোনালি ব্যাংকের জয়দেবপুর শাখায় টাকা জমা দেই। টাকা জমা দেওয়ার সময় এনআইডি কার্ডের ফটোকপি দিতে হয়েছে (যেহেতু পাসপোর্ট হবে এনআইডি অনুযায়ী)।

০২-১০-২০২০
অনলাইনে শিডিউল নেই ০৪-১০-২০২০ তারিখে সকাল ১১ টায়।

০৪-১০-২০২০
পাসপোর্ট অফিসে গিয়ে কাগজপত্র জমা, ছবি তোলা ও ফিঙ্গারপ্রিন্ট দেওয়ার কাজ সম্পন্ন করি। সব মিলিয়ে দেড় ঘন্টার মতো সময় লেগেছিলো।

যা যা কাগজপত্র চেয়েছেঃ

➡️ টাকা জমার রশিদ

➡️ সামারি পেইজের কপি
➡️ অনলাইন আবেদনের কপি
➡️ এনআইডির ফটোকপি (মূল আইডিটা দেখানো লাগবে)
➡️ নাগরিকত্ব সনদপত্রের কপি (ওয়ার্ড কাউন্সিলর বা চেয়ারম্যান এর কাছ থেকে নেওয়া সার্টিফিকেট)

১৫-১০-২০২০
এনরোল করার এতদিন পরেও এনরলমেন্ট স্ট্যাটাস চেঞ্জ না হওয়ায় (অর্থাৎ, “Enrolment in Process” স্ট্যাটাসেই ছিল গত ১১ দিন) এবং কোন মেসেজ বা ইমেইল না পাওয়ায় পাসপোর্ট অফিসে কথা বলতে গিয়েছিলাম। ২০৭ নাম্বার রুমে কথা বলার জন্য লোক না পাওয়ায় এডি স্যারের রুমে গিয়ে স্যারকে সমস্যার কথা বলি। উনি চেক করে বলেন ডকুমেন্ট সাবমিশন কমপ্লিট হয় নাই, তাই এই অবস্থা। ২০৭ নাম্বার রুমে দেখাতে বললেন। এরপর ২০৭ নাম্বার রুমে লোক আসলে তার কাছে এই ব্যাপারে বলি। এরপর তিনি ডকুমেন্ট স্ক্যান করে সাবমিট করার সাথে সাথে ফোনে এসএমএস চলে আসে এবং স্ট্যাটাস পরিবর্তিত হয়ে “Enrolled, Pending for Approval” হয়। মূলত কম্পিউটার অপারেটর ডকুমেন্ট স্ক্যান করে সাবমিট না করায় এতদিন দেরি হয়েছে।

১৭-১০-২০২০
পুলিশ ভেরিফিকেশন এর জন্য গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ হেডকোয়ারটারে ডাকে। যা যা নিয়ে যেতে বলেছেনঃ

➡️ আমার এবং আমার বাবা-মায়ের ভোটার আইডি কার্ডের কপি
➡️ বিদ্যুৎ/গ্যাস বিলের কপি
➡️ নাগরিকত্ব সনদের কপি

(উনি একাডেমিক সার্টিফিকেট বা অন্য কোন কাগজ চান নাই, কিন্তু আমার সাথে ছিলো)

অনেকেই বলে ঘুষ ছাড়া ভেরিফিকেশন হয় না, কিন্তু আমার ক্ষেত্রে পুলিশকে এক টাকাও দিতে হয়নি। 🙂

২০-১০-২০২০
অনলাইনে স্ট্যাটাস “Approved” এ পরিবর্তিত হয়, অর্থাৎ পুলিশ ভেরিফিকেশন কমপ্লিট হয়।

২৭-১০-২০২০
অনলাইন স্ট্যাটাস “Passport Shipped” এ পরিবর্তিত হয় এবং ইমেইল আসে।

০১-১১-২০২০
অনলাইন স্ট্যাটাস “Passport Received” এ পরিবর্তিত হয় এবং পাসপোর্ট সংগ্রহের ব্যাপারে ফোনে মেসেজ ও ইমেইল আসে।

মেসেজ টা নিম্নরূপঃ
“Dear MD. Zakaria, Your new passport is now ready for collection at the Regional Passport office.”

০২-১১-২০২০
পাসপোর্ট অফিসে যাই ৯ঃ৪৫ এ, আগে আগে পাসপোর্ট নিবো এই আশায়! কিন্তু সার্ভারে সমস্যার কারণে পাসপোর্ট নিতে নিতে বিকাল চারটা বেজে যায়। 🙄 🤦🏾‍♂️

পুরো পাসপোর্ট করার প্রসেসে আজকের দিনটাতেই সবচেয়ে বেশি হয়রানি হয়েছে। যাই হোক, ভালো মতো জিনিসটা হাতে পেয়েছি, এতেই খুশি।

〰️〰️〰️〰️〰️〰️〰️〰️〰️〰️〰️〰️

♦ দালাল থেকে ১০০ হাত দূরে থাকুন। নিজের পাসপোর্ট নিজে নিজে করুন। আমি যেহেতু দালাল ও ঘুষ ছাড়া পাসপোর্ট করতে পেরেছি, আপনিও পারবেন। ♦

Leave a Reply