আমাদের প্রিয় নবী করীম (সাঃ) এর ভালোবাসা এক অমূল্য পরশপাথর । তাঁর পরশে যে-ই এসেছে তার জীবনই বদলে গিয়েছে । (ঘটনা- ১)

আসসালামুয়ালাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ !
সুপ্রিয় পাঠক ও দ্বীনি ভাই , আপনি যদি ইসলামের ইতিহাস কিছুটাও পড়ে থাকেন তবে হযরত জায়েদ (রাঃ) এর নাম নিশ্চয়ই শুনেছেন এবং জানেন ।
কিন্তু তিনি কিভাবে বিশ্ব নবির সংস্পর্শে আশার সৌভাগ্য অর্জন করেছেন এ বিষয়টি অনেকের অজানা । আজকের এই ঘটনাটি পড়ে এটিও জানতে পারবেন ইনশাআল্লাহ ।

হযরত জায়েদ (রাঃ), উনার পিতার নাম হারেছা । যিনি খ্রিষ্ট ধর্মানুসারি ছিলেন। জায়েদ (রাঃ) যখন ছোট ছিলেন তখন মায়ের সাথে কোথাও যাচ্ছিলেন, পথিমধ্যে তারা ডাকাতের কবলে পড়লেন । ডাকাতরা তাদের সর্বস্ব লুট করে নিয়ে গেল । ছোট বালক জায়েদ সহ অনেককে ডাকাতরা বন্দী করল । একদিন জায়েদকে বিক্রি করে দেয়া হলো । হাকিম নামে এক লোক জায়েদকে কিনে নিলেন ।( হাকিম ছিলেন হযরত খাদিজা (রাঃ)-এর ভাইয়ের ছেলে।) হাকিম জায়েদকে এনে ফুফু খাদিজার হাতে সমর্পণ করলেন । জায়েদকে তিনি কাজের জন্য রেখে দিলেন। খাদিজার ঘরে বালক জায়েদ বড় হতে লাগলেন। যখন হযরত খাদিজা (রাঃ) এর সাথে মহানবী (সাঃ)-এর বিয়ে হলো তখন খাদিজা বালক জায়েদকে স্বামীর খেদমতে নিয়োগ করলেন।
জায়েদ হযরত খাদিজার কাছে মায়ের চেয়েও বেশী আদর, আর মহানবী (সাঃ)-এর কাছে পেলেন বাবার আদর ! এমনি করে জায়েদের দিনগুলো সুখে কাঁটছিল । তবে একদিন ঘটল এক ঘটনা।
একদল হজ্ব যাত্রী কা’বাঘর যিয়ারত করতে মক্কায় এলো। তাদের সাথে হযরত জায়েদের দেখা হলে যাত্রীদের একজন হযরত জায়েদকে চিনে ফেলল।
সে নিশ্চিত হলো, এই বালকই হারেসার হারানো পুত্র জায়েদ। তাই তারা বিষয়টি হারেসাকে জানাবে বলে ভাবল। হজ্ব সেরে লোকেরা বাড়িতে ফিরে হারেসাকে সব কথা খুলে বলল। প্রাণপ্রিয় পুত্র জায়েদের খবর শুনে বাবা কালবিলম্ব না করে সে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব মক্কায় হাজির হলেন।
সোজা মহানবী (সাঃ)-এর বাড়ীতে গেলেন তিনি। তারপর মহানবী (সাঃ)-কে বললেন, “দেখুন নবীজি! জায়েদ আমার ছেলে, আমি ওকে নিতে এসেছি। জায়েদকে দয়া করে ফিরিয়ে দিন। এজন্য যা মূল্য চান আমি তা দিতে প্রস্তুত আছি।”
জায়েদের জন্য কী মুক্তিপণ নেবেন মহানবী (সাঃ)! বরং তিনিই তো মানুষকে তাঁর সর্বস্ব বিলিয়ে দেন। জায়েদকে তিনি হাসিমুখে হারেসার হাতে তুলে দিলেন। হারেসা তো হতবাক। এত সহজে ছেলেকে ফিরে পাবেন, তা ছিল হারেসার কল্পনারও বাইরে ! এমন মানুষও আছে পৃথিবীতে !
ছেলেকে বাড়ি নিয়ে যাবার জন্য যখন হারেছা প্রস্তুত তখন জায়েদ (রাঃ)ই বেঁকে বসলেন ! তিনি রাসুল (সাঃ)-কে ছেড়ে তিনি কোথাও যাবেন না । বাবা হারেসা জায়েদের অনড় অবস্থা দেখে হতাশ হলেন। পুত্রকে অনেক করে বুঝালেন। কিন্তু কিছুতেই কাজ হলো না। ফলে জায়েদ মহানবী (সাঃ)-এর কাছে থেকে গেলেন।
হরেছা অনেক অবাক হলেন , নিজের আপন বাবাকে অনেক দিন পরে দেখা পেয়েও বাবার কাছে যেতে চাইলো না ! নবীজির ভালোবাসা বুঝতে পারলেন এবং তাঁর নিকট নিজের সন্তানকে রেখে গেলেন ।
দেখতে দেখতে জায়েদ বড় হলেন । নবীজি আপন চাচাতো বোন জয়নাবের সাথে তাঁর বিয়ে দিলেন। জায়েদের এক ছেলে জন্ম নিল।

নাম রাখলেন উসামা। নবীজি উসামাকে খুব আদর করতেন। নবীজি তাঁর প্রিয় নাতি হাসান-হোসেনের মতোই উসামাকে ভালোবাসতেন।

মক্কা বিজয়ের দিনের ঘটনা। মহানবী (সাঃ) উটে চড়ে মক্কা নগরীতে প্রবেশ করলেন। তখন তাঁর সাথে উটের পিঠে বসেছিলেন উসামা। তা থেকেই বোঝা যায়, রাসূল (সঃ) উসামাকে কতটা পছন্দ করতেন।

মহানবী (সাঃ) এর গভীর ভালোবাসা পেয়ে জায়েদ তার বাবা-মাকে পর্যন্ত ভুলে যেতে পেরেছিলেন। শুধু জায়েদ নন রাসূল (সাঃ) এর সহচর্যে আরো অনেকেরই জীবন বদলে গিয়েছিলো !
নবীজির ভালোবাসায় ছিল না কোনো স্বার্থ কিংবা কোনো ভেজাল ! তাঁর এ অকৃত্রিম ভালোবাসায় শতশত শত্রু বদলে গিয়েছে , মিত্রতে রূপান্তর হয়েছে ! এ যেন এক পরশপাথর ! হ্যাঁ আমাদের পরশপাথর ! যাঁর প্রতি ভালোবাসা , শ্রদ্ধাবোধ করো অন্তরে থাকবে সে-ই হয়ে উঠবে সুন্দর মানুষ । তিনিই আমাদের প্রিয় নবী বিশ্ব নবি হযরত মুহাম্মদ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম !

Posted by
Rifat
ইহুদিদের ষড়যন্ত্র । বিশ্বনবী (স) এর রওজা থেকে তাঁর দেহাবশেষ চুরির চেষ্টার ভয়ংকর ঘটনা ! – Amartips.Mobi

ইহুদিদের ষড়যন্ত্র । বিশ্বনবী (স) এর রওজা থেকে তাঁর দেহাবশেষ চুরির চেষ্টার ভয়ংকর ঘটনা !

রোকানা পালোয়ান রাসুলুল্লাহ (সাঃ) কে কুস্তির প্রস্তাব দিলেন ! নবি করিম (সাঃ) এর কুস্তি ! সম্পূর্ণ পড়ুন । – Amartips.Mobi

রোকানা পালোয়ান রাসুলুল্লাহ (সাঃ) কে কুস্তির প্রস্তাব দিলেন ! নবি করিম (সাঃ) এর কুস্তি ! সম্পূর্ণ পড়ুন ।

হযরত ওমর (রাঃ) এর সামনে এক ব্যক্তি মদের বোতল হাতে ধরা পড়লে কি হয়েছিল , কি করল সেই লোকটি সম্পূর্ণ পড়ুন । – Amartips.Mobi

হযরত ওমর (রাঃ) এর সামনে এক ব্যক্তি মদের বোতল হাতে ধরা পড়লে কি হয়েছিল , কি করল সেই লোকটি সম্পূর্ণ পড়ুন ।

জেনে নিন আপনার কোন আমলটি আপনাকে নিশ্চিত জান্নাতে প্রবেশ করাবে । – Amartips.Mobi

জেনে নিন আপনার কোন আমলটি আপনাকে নিশ্চিত জান্নাতে প্রবেশ করাবে ।

একটি সুন্দর ইসলামিক গল্পঃ আল্লাহর নিয়ামতের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা এবং আল্লাহর পরীক্ষা । – Amartips.Mobi

একটি সুন্দর ইসলামিক গল্পঃ আল্লাহর নিয়ামতের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা এবং আল্লাহর পরীক্ষা ।

Leave a Reply