ইস্তেগফারে আল্লাহ খুশি part 2 & last part।সবাই জেনে নিন।

আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন…..? আশা করি সবাই ভালো আছেন । আমি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছি ।আসলে কেউ ভালো না থাকলে amartips তে ভিজিট করেনা ।তাই আপনাকে amartips তে আসার জন্য ধন্যবাদ ।ভালো কিছু জানতে সবাই amartips এর সাথেই থাকুন।

আখেরাতের প্রস্তুতি নিয়ে

ইস্তেগফারে আল্লাহ খুশি

শেষ রাতে যখন মোরগের আওয়াজ শুনবে তখনই উঠে আল্লাহর কাছে চাইবে।
কারণ ঐ সময়ে আল্লাহ দোয়া কবুল করেন । ঐ সময় ফেরেশতারা খুঁজে ফিরে কারা আল্লাহকে ডাকছে। ফেরেশতা দেখেই মোরগ আওয়াজ করে ডাক দেয়। প্রতি শেষ রাতে আল্লাহ নিম্নের আসমানে নেমে আসেন আর তিনটি ডাক দেন-
১. কে আছো এমন যে অসংখ্য গুণাহ করেছো এখন আমার কাছে চাও আমি তোমার সমস্ত গুণাহ মাফ করে দিব।

২. কে আছো এমন যে অসুস্থ হয়ে আছো কোন চিকিৎসাই তোমাকে সুস্থ করতে পারছে না। এখন আমার কাছে চাও আমি তোমাকে সুস্থ করে দিবো।
৩. কে আছো এমন অভাবী, অভাব পূরণ হচ্ছে না, অভাবের কারণে কষ্ট দুর হচ্ছে না। এখন আমার কাছে চাও আমি তোমার রিজিক পূর্ণ করে দিবো।

আল্লাহর এ ডাকে সাড়া দিয়ে জীবনের গুণাহখাতা মাফ করিয়ে নিয়ে আখেরাতের প্রস্তুতি গ্রহণ করতে হবে।
যারা তওবা ইস্তেগফার কলে তারাই উত্তম বান্দাহ। রাসুলুল্লাহ সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম দৈনিক ৭০ বার, কোন হাদিসে ১০০বার ইস্তেগফার চাইতেন বলে উল্লেখ আছে। যাঁর কোন গুণাহ ছিল না, অগ্রপশ্চাৎ যার গুণাহ মাফ করে দেয়া হয়েছে তিনি যদি দৈনিক ৭০বার অথবা ১০০বার গুণাহ মাফ চাইতে পারেন তাহলে আমাদেরকে আরো বেশী বেশী গুণাহ করে মাফ চাইতে হবে। কেননা এটা ফেতনার জামানা আমরা প্রতিদিন অনেক গুণাহ করে ফেলি এতে করে আমাদের দিনে অনেক বেশি ইস্তেগফার করতে হবে।

প্রিয় ভাই ও বোনেরা লাইক কমেন্ট শেয়ার করে ইসলামি দাওয়াতে আপনিও অংশগ্রহণ করুন। প্রিয় বন্ধুরা জানার স্বার্থে দাওয়াতি কাজের স্বার্থে আর্টিকেলটি অবশ্যই শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন। হতে পারে আপনার একটি শেয়ার বহু মানুষ উপকৃত হবে ইনশাআল্লাহ।

Leave a Reply