বান্দাহর হক সম্পর্কে কেনো সাবধান হবেন? ২য় পর্ব শেষ পর্ব।


আসসালামু আলাইকুম সবাই কেমন আছেন…..? আশা করি সবাই ভালো আছেন । আমি আল্লাহর রহমতে ভালোই আছি ।আসলে কেউ ভালো না থাকলে amartips তে ভিজিট করেনা ।তাই আপনাকে amartips তে আসার জন্য ধন্যবাদ ।ভালো কিছু জানতে সবাই amartips এর সাথেই থাকুন।

আখেরাতের প্রস্তুতি নিয়ে

বান্দাহর হক সম্পর্কে সাবধান পর্ব ২ এবং শেষ পর্ব

সম্পদ নিয়ে মাতা পিতার সাথে ঝগড়া বন্ধ করে দিতে হবে।
কারণ সন্তান যেমন পিতা মাতার, সন্তানের সম্পদও তেমনি পিতা মাতার।
তাই এদের জন্য সবকিছু উজাড় করে দিয়েই আখেরাতের প্রস্তুতি নিতে হবে।
ব্যাক্তি আল্লাহর রাসুলের কাছে তার মাল তার পিতা নিয়ে নিচ্ছেন এ অভিযোগ করলে তিনি বললেন: “তুমিও তোমার পিতার, তোমার মালও তোমার পিতার।” আল্লাহর রাসুল সল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এর কথাটি সব সময় মনে রাখতে হবে।
যে সম্পদ মাতা পিতার উপকারে লাগল না, সে সম্পদ সন্তানের কামাই করার প্রয়োজন নেই।
যে মা বাবা, ভাই বোন, স্ত্রী পুত্র একান্তভাবেই নিজের, যাদের জন্য এ দুনিয়ায় অনেক কিছুই করে চলছি সেই মা বাবা, ভাইবোন আখেরাতের কঠিন জায়গায় একে অপরকে দেখে পালাবে।

“সেদিন ভাই, মাতা, পিতা, স্ত্রী, সন্তান থেকে সকলেই পালাবে।” (সুরা আবাসা: ৩৪-৩৬)

কেউ কারো খোঁজ নিবে না। এমনও হতে পারে একজন অন্যজনের কারণে গুণাহ করবে। সন্তানের দাবীর মুখে পিতা অবৈধ অর্থ গ্রহণ করতে বাধ্য হয়েছিল, অথবা পিতার দাবী পূরণ করতে সন্তান অবৈধ অর্থ উপার্জন করেছিল।
স্বামীর দাবীর কারণে স্ত্রী, অথবা স্ত্রীর আবদারের কারণে স্বামী অন্যায় কাজ করেছিল।
বিচারের দিনে তাকে দোষী করে ফেলবে মনে করে এভাবে একে অপরের কাছ থেকে পালাতে থাকবে- এমন চিন্তা অস্বাভাবিক নয়।
তাই আখেরাতের প্রস্তুতির জন্য আত্মীয় ও আপনজনদের সাথে আলাপ আলোচনা করে সমস্যার সমাধান করতে হবে।
দুনিয়ার সমস্যা আখেরাতের জন্য রেখে দেয়া বোকামী ছাড়া আর কিছুই হবে না।
যার গীবত করা হয়ে গেছে তার কাছে মাফ চেয়ে নিতে হবে।
তার জন্য দোয়া করতে হবে। এ ক্ষেত্রে ব্যাক্তিগতভাবে ডেকে নিয়ে একান্তে নিভৃতে কথা বলতে হবে। ধরে নিতে হবে আমি আগামীকাল দুনিয়া থেকে বিদায় নিচ্ছি। কথাবার্তায় কাজকর্মে, চলা ফিরায়, লেনদেনে, উঠা বসায় যেসব অন্যায় করেছি আল্লাহর ওয়াস্তে মাফ করে দিন।
আর আমার জন্য অন্তর থেকে দোয়া করবেন যাতে আল্লাহ আমাকে মাফ করে দেন।
চোখের পানিসহ তার কাছ থেকেও দোয়া নিয়ে বিদায় হতে পারলেই আখেরাতের প্রস্তুতি হচ্ছে বলে ধরে নিতে হবে।

প্রিয় ভাই ও বোনেরা লাইক কমেন্ট শেয়ার করে ইসলামি দাওয়াতে আপনিও অংশগ্রহণ করুন। প্রিয় বন্ধুরা জানার স্বার্থে দাওয়াতি কাজের স্বার্থে আর্টিকেলটি অবশ্যই শেয়ার করে ছড়িয়ে দিন। হতে পারে আপনার একটি শেয়ার বহু মানুষ উপকৃত হবে ইনশাআল্লাহ।

Leave a Reply