আখেরাতের প্রস্তুতি নিয়ে (শাস্তি থেকে বাচার জন্য এবং পরিবারে ভয়-ভীতির জীবন)

আখেরাতের প্রস্তুতি নিয়ে

শাস্তি থেকে বাঁচার জন্য এবং পরিবারের ভয়ভীতির জীবন

আখেরাতের ভয়াভহ শাস্তি থেকে বাঁচার জন্য মানুষ সব করতে চাইবে। এ প্রসঙ্গে সূরা মাআরিজ এর ১১ থেকে ১৪ নং আয়াত স্মরণ করলে গায়ের লোম শিহরিয়ে উঠে।
সে দিনের আযাব থেকে রক্ষা পাওয়াল জন্য অপরাধী লোক সন্তান, স্ত্রী, ভাই, আশ্রয় দানকারী নিকটবর্তি পরিবারকে এমনকি পৃতিবীর অবস্থানরত সমস্ত লোককে বিনিময় দিয়ে দিতে চাইবে যেন তাকে আযাব থেকে নিষ্কৃতি দেওয়া হয়। নিজের জান বাচানোর জন্য প্রাণাধিক প্রিয় সন্তান-সন্ততি, স্ত্রী, ভাই, আত্মীয়-স্বজনকে বিনিময়ে দিয়ে দিতে কুণ্ঠাবোধ করবে না। কি ধরণের বিপদ হলে এমন লোমহর্ষক চিন্তা কযা যায় তা কল্পনারও বহির্ভূত। আখেরাতের প্রস্তুতি যারা নিবে তাদের জন্য এ ধরণের বেকায়দা অবস্থার সৃষ্টি হবে না।

পরিবারে ভয়-ভীতির জীবন

পরিবারে আরাম আয়েশে মত্ত হয়ে জীবন -যাপন করার প্রশ্নই আসে না একজন মুমিনের। আখেরাতর প্রস্তুতিল জন্য সর্বদা চিন্তা ও পেরেশানির সতর্কতা বাড়ির সকলকেই ব্যস্ত রাখে। না জানি পরিবারে কোন সদস্য আখেরাতের প্রস্তুতির অভাবে বিপদগ্রস্থ হয়ে যায়। সার্বক্ষণিক এ চিন্তায় তাদেরকে থাকতে হয়। আমাদের পরিবারের সদস্য এমন কোন কাজ করে না বসে যাতে আল্লাহর কাছে ধরা পড়ে যাই। নিজের পরিবার পরিজনের মধ্যে ভয়ে ভয়ে জীবন-যাপন করার কথা কুরআন মাজিদে বলা হয়েছে:
“তারা বলবে ইতিপূর্বে (দুনিয়ায়) নিজেদের ঘরের লোকদের মধ্যে ভীত সন্ত্রস্ত অবস্থায় জীবন-যাপন করেছিলাম।” (সূরা তুর: ২৬)
যে পরিবার জান্নাতি হবে সে পরিবারের পক্ষে দুনিয়ায় আনন্দে মত্ত হয়ে জীবন-যাপন করা কিছুতেই সম্ভব নয়। আখেরাতের প্রস্তুতির লক্ষে তারা সর্বদা ভীত-সন্ত্রস্তভাবে জীবন-যাপন করবে।
উপরে উল্লিখিত কথাগুলোর উপর সকলকে আমল করার তৌফিক দান করুন। আমিন।

Credit -> Amartips.Mobi.

Leave a Reply