গ্রুপ মার্কেটিং করে ইউটিউব ভিডিও র‍্যাংক করুন। SEO কি যথেষ্ঠ ইউটিউব ভিডিও র‍্যাংক এর জন্য ?

আসসলামু আলাইকুম

ইতঃপূর্বে আমি ইউটিউব মার্কেটিং নিয়ে একটি পোস্ট করেছি। সেই পোস্ট টি পড়ার পর আপনাদের এই পোস্টটি পড়ার অনুরোধ করছি তাহলে সম্পূর্ণ বিষয়টি বুঝতে আপনার সুবিধা হবে।

ইউটিউব ভিডিও মার্কেটিং, ভিডিও র‍্যাংকিং, SEO এই গুলো যেন একটি আরেকটির সাথে সম্পৃক্ত।

তবে কিভাবে সম্পৃক্ত?

প্রথমে SEO দিয়েই শুরু করি, SEO এর পূর্ণরুপ এবং সংজ্ঞা আমরা সবাই জানি। SEO এর পূর্ণরুপ Search Engine Optimization।

অর্থাৎ, ইউটিউবে একটি টপিকের উপর যে ট্যাগ বা কিওয়ার্ড বেশি সার্চ করা হয় ঠিক সেই কিওয়ার্ড গুলো আপনার সেই টপিক রিলেটেড ভিডিওর মাঝে ব্যবহার করা। SEO এর আরো অনেক বিষয় রয়েছে। তবে SEO এর মুল সার সংক্ষেপ এটাই।

SEO সঠিকভাবে করার জন্য আমারটিপ্সতে অসংখ্য পোস্ট আছে তাই আমি সেই বিষয়ে যাচ্চি না।

আচ্ছা ঠিক ভাবে এই শুধু SEO করলেই কি আপনার ভিডিও ইউটিউব র‍্যাংক করতে সক্ষম।

আমি বলব না! কারণ সেই টপিক রিলেটেড অনেক ভিডিও এর আগে থেকেই রয়েছে। এবং সেই ভিডিও গুলো র‍্যাংকি এ টপ লিস্টেড। এত ভিডিওর মাঝে আপনার ভিডিও দেখাবে সে বিষয়ে সংশয় থেকেই যায়।

আমি SEO কে সংজ্ঞায়িত করেছি এভাবে, ইউটিউবে একটি বিষয়ের টপ ট্যাগ গুলো আপনার ভিডিওর মাঝে ব্যবহার করে সেই ট্যাগ গুলো দিয়ে ইউটিউবে সার্চ করে আপনার ভিডিও টি বারবার যখন দেখা হবে তখনই আপনার ভিডিও তে SEO সম্পূর্ণ হবে, ইউটিউবের সার্চ ইঞ্জিনে আপনার ভিডিও টপ লিস্টে জায়গা করে নিবে।

আর তখনই আপনার ভিউস সাবস্ক্রাইব আসতে থাকবে। ইউটিউবে নিজ হতে তার মেম্বারদের আপনার ভিডিও সাজেস্ট করবে।

তবে প্রশ্ন হলো সেই ট্যাগ গুলো ব্যবহার করে শুধু আপনার ভিডিওটা দেখবে কে?? সেই টপিক রিলেটেড ভিডিও ইউটিউবে তো অসংখ্য আছে?

এই কাজ টা সম্পুর্ণ আপনাকেই করতে হবে। তবে কিছু নিয়ম মেনে কাজ করতে হবে তা না হলে আপনার চ্যানেল স্প্যামিং হয়ে চ্যানেলটি ইউটিউব বাতিল করে দিতে পারে।

যা যা করতে পারেন

১. প্রথমত আপনি একটি ১০ জনের গ্রুপ খুলতে পারেন।

২. প্রত্যেক গ্রুপ সদস্য ধারাবাহিক ভাবে তার ভিডিওর তথ্যবলি গ্রুপে শেয়ার করবে।

যেমনঃ
*ভিডিওর প্রধান ১০ টি ট্যাগ
*চ্যানেল নাম
*ভিডিও আপলোডের তারিখ
*ভিডিও দৈর্ঘ্য
*ভিডিও থাম্বনেইল
(ভিডিও লিংক শেয়ার না করা ভালো)

এই তথ্য গুলোর মাধ্যমে যখন প্রতিটা মেম্বার একে অপরের ভিডিও ইউটিউবে খুজে বের করে দেখবে তখনই প্রত্যেকের ভিডিওর র‍্যাংক বাড়তে থাকবে।

তবে প্রশ্ন হলো, প্রতিটা মেম্বার একে অপরের কাজ বিশ্বাসের সাথে করেছে কিনা তার প্রমান কি।

আপনারা বিভিন্ন ইউটিউব রিলেটেড মেসেঞ্জার গ্রুপে এড হয়ে থাকলে এই বিষয়টি বুঝে গেছেন আশা করি।

তো কাজের প্রমান এর জন্য আপনারা আমার এই পোস্ট টি পড়তে পারেন।। ইউটিউবের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি সেটিং ” Stats For Nerds” যেটিকে আপনারা প্রমান স্বরুপ ব্যবহার করতে পারেন। এটি কিভাবে অন করতে হয়? এর কাজ কি? সব কিছু আমার ঐ পোস্ট টিতে বিস্তারিত দেওয়া আছে।

আপনারা Stats For Nerds ব্যবহার করে যেভাবে একটি নিয়ম মেনে কাজ করবেন

১. প্রতি ২০০০ ফ্রেম দেখার পর লাইক এবং কমেন্ট করবেন

২. ৪০০০ ফ্রেম পর চ্যানেল টি সাবস্ক্রাইব করবেন

৩. ভিডিও শেষ হবার ৪-৫ সেকেন্ড আগে অর্থাৎ, ৬০০০ ফ্রেম হলে একটি স্ক্রিনশট নিবেন ও কমেন্ট এর একটি স্ক্রিনশট নিবেন।

৪. তারপর একই চ্যানেলের সাজেস্টেড ভিডিও থেকে একই প্রক্রিয়ায় আরেকটি ভিডিও দেখবেন।

এই স্ক্রিনশট গুলো আপনারা প্রুফ হিসেবে একে অপরের সাথে শেয়ার করতে পারবেন।

আমার একটি নতুন গ্রুপ রয়েছে আপনারা যারা নতুন ইউটিউবার আছে এই বিষয়ে আগ্রহি হলে আমার সাথে কাজ করতে পারেন।
আমার ফেইসবুক আইডি

ভিডিও তে ডেমো আকারে সম্পূর্ণ বিষয়টি তুলে ধরা হয়েছে দেখে নিতে পারেন। Rotate your phone to see full screen

আমার চ্যানেলটি ঘুরে আসার অনুরোধ রইল- khbangla360
আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

Leave a Reply