আল্লাহ ভীতি অর্জন করলে কেউই কখনো কোনো অন্যায় করতে পারে না । খুব সুন্দর ইসলামিক ঘটনা । সকল মুসলমান ভাইকে পড়ার জন্য অনুরোধ করছি ।

আসসালামুয়ালাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ !!
বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম ।
সুপ্রিয় পাঠক ও দ্বীনি ভাই , কেমন আছেন ? আশা করি আল্লাহর অশেষ রহমতে ও অসংখ্য নিয়ামতের ফলে খুব ভালো আছেন ।
আমরা যখন যেমন ই থাকি না কেন আল্লাহর শুকরিয়া আদায় করবো ! ঠিক কিনা ?
কারণ আমরা যেমন ই আছি খুব ভালো আছি । সবসময়ই নিচের দিকে তাকাবেন তাহলে মনে শান্তি থাকবে , মনটা নরম থাকবে । আপনার থেকে যাদের অবস্থা খারাপ, তাদের দিকে তাকান আর নিজের অবস্থার জন্য আল্লাহর দরবারে শুকরিয়া আদায় করুন ।

আজকে খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করবো । আমরা প্রতিনিয়তই অনেক গুনাহ করছি , অন্যায় করছি , পাপ করছি ।
আল্লাহ তাআলা পরম করুণাময় অতি দয়ালু তেমন মহান ক্ষমতাধর ! তিনি যাকে লান্ঞ্চিত করবেন সে দুনিয়াতেও লাঞ্ছিত বন্ঞ্চিত হবেন , আখিরাতেও লান্ঞ্চিত বন্ঞ্চিত হবেন ।
ঠিক কিনা বলেন ? এজন্যই কারো না হোক এক আল্লাহ কে ভয় করতে হবে এবং করা উচিত ।
তিনি সব দেখেন , শোনেন এবং সবকিছুর খবর রাখেন । এটা নিশ্চয়ই মনে প্রানে বিশ্বাস করেন ।
শুধু মাত্র বিশ্বাস করলেই হবে না , সবসময়ই মাথায় রেখে চলতে হবে । তাহলে আমার মনে হয় অন্যায় করার সাহস কেউ কখনো পাবেন না এবং করবেন না ।
ছোট্ট একটা গল্প তুলে ধরছি আংশিক পরিবর্তন করে , একটু মনোযোগ সহকারে পড়ুন ।

একদিন শিক্ষক সকল ছাত্রদের মাঝে আপেল

বিতরণ করে বললেন, ” তােমরা স্কুল থেকে ফিরে গিয়ে আপেলটি এমন জায়গায় খাবে, যেখানে খাওয়া কেউ দেখতে পাবে না ।”

পরদিন স্কুলে এলে।

শিক্ষক তাদেরকে জিজ্ঞাসা করলেন, ” তােমরা
কোথায় কীভাবে আপেল খেয়েছ?”

কেউ বলল, ” আমি নির্জন বনের ভিতরে খেয়েছি। ”
কেউ বলল, ” আমি জন-প্ৰাণীহীন ময়দানে খেয়েছি। ”
কেউ বলল, ” আমি নির্জন কক্ষে দরজা বন্ধ
করে খেয়েছি। ”
কেউ বলল, ” আমি রাতের অন্ধকারে বাড়ির ছাদে গিয়ে একাকী খেয়েছি।”

কিন্তু তাদের মধ্যে একজন বলল, ” স্যার! আমি
আপেল খেতে পারিনি। স্যার বললেন, তা কেন?”
‘সে বলল, ” যেখানে গেলাম, যে জায়গাতেই ভাবলাম, সেখানে কেউ আমার আপেল খাওয়া দেখতে পাবে । ”
কিন্তু সেখানে ভাবলাম,” কেউ না দেখুক, আল্লাহ
তাে দেখছেন।” আল্লাহু আকবার !!

তাই আপনার নির্দেশ পালন করে তা খেতে পারলাম না। শিক্ষক ঐ জ্ঞানী ছাত্রকে
অসংখ্য ধন্যবাদ জ্ঞাপন করলেন এবং অনুরুপ

সর্বদা সর্বস্থানে আল্লাহ-ভীতি রাখার বেপারে তাকে উৎসাহিত করলেন।
সুবহানাল্লাহ !

আল্লাহ তাআলার প্রতি এরূপ বিশ্বাস এবং ভয় থাকলে আমার মনে হয় কেউই কখনো কোনো অন্যায় ,পাপ কিংবা কোনো খারাপ কাজ করতে সাহস পেত না । সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ার জন্য অসংখ্য ধন্যবাদ । নিশ্চয়ই আল্লাহ পাক রাব্বুল আলামীনের হেদায়েত এবং রহমত আপনার সাথে আছে , এজন্যই ইসলামিক পোস্টটি আপনি পড়তে পেরেছেন ।
আমি রিফাত আছি আমারটিপ্সর সাথে , আপনার সাথে । আমারটিপ্সর সাথেই থাকুন ।
আল্লাহ-হাফিজ !

Leave a Reply