ধূমপানের অপকারিতা- ধূমপানের ক্ষতিকর দিক সমূহ

ধূমপান

ধূমপানের অভ্যাস সমগ্র পৃথিবীতে প্রচলিত। এমনকি ১৩ থেকে ১৯ বছর বয়সীরাও এ অভ্যাসে আসক্ত। কিন্তু এটা খুবই খারাপ অভ্যাস। এটা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। কিন্তু এটার প্রতি আসক্ত যারা তারা এটাকে সহজে পরিত্যাগ করতে পারে না।

ধূমপানের বিভিন্ন পথঃ

লোকে বিভিন্নভাবে ধূমপান করে থাকে। এর মধ্যে বিড়ি, সিগারেট, চুরুট এবং হুক্কা সবচেয়ে সুপরিচিত। এগুলো সব তামাক থেকে প্রস্তুত।

কেন ক্ষতিকরঃ

তামাকে “নিকোটিন নামে এক প্রকার বিষ আছে। যখন ধূমপান করে তখন নিকোটিন ধূমপায়ীর ফুসফুস যন্ত্রে প্রবেশ করে। তারপর এটা রক্তের সঙ্গে মিশে এবং সারা শরীরে বিস্তার লাভ করে। বিজ্ঞানীরা এ বিষয়ে একমত যে একটা সিগারেট একজন ধূমপায়ীর আয়ূ ১০ মিনিট কমিয়ে দয়।

ধূমপানের ফলে রোগ সৃষ্টিঃ

ধূমপানের কারণে অনেক দুরারোগ্য ব্যাধি দেখা দেয়। ধূমপানই ফুসফুস যন্ত্রের অনেক প্রকারের রোগ এবং অনেক প্রকারের ক্যানসারের কারণ। ধূমপানের ফলে যক্ষ্মা, ব্রংকাইটিস, অ্যাজমা, গ্যাসট্রিক আলসার, হৃদযন্ত্রের ব্যাধি দেখা দেয়।

প্রতিরোধের উপায়ঃ

এটা একটি সুখের চিহ্ন/ লক্ষণ অনেক দেশের সরকার এবং অনেক সামাজিক সংস্থা এটা বন্ধ করতে এগিয়ে এসেছে। অনেক দেশের সিনেমা, থিয়েটার, বাস, অফিস-আদালতে ধূমপান নিষিদ্ধ করা হয়েছে। সরকারী গ্রন্থাগার, হাসপাতাল, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ইত্যাদি ধূমপান বিহীন এলাকা হিসেবে ঘোষিত হয়েছে।

শেষ কথাঃ

কিন্তু বহু গরীব দেশের সরকার তামাকের চাষ বন্ধ করতে পারে না যেহেতু এটা থেকে খুব ভালো আয় হয়। অনেক কৃষক তামাক চাষে নিযুক্ত। অনেক শ্রমিক তামাকের কারখানায় কাজ করে। তাই, তামাকের উৎপাদন এবং ধূমপানের অভ্যাস বন্ধ হতে পারে না।
ভালো লাগলে আমার টেকব্লগবিডি সাইট টাই ঘুরে আসবেন:-
TechBlogBD.NET

Leave a Reply