ATM কার্ড জালিয়াতি থেকে বাচার উপায়,দেখে নিন কোনো দিন কাজে লাগতে পারে।

আসসালামুআলাইকুম।
ও হিন্দু ভাইদের আদাব।

কেমন আছেন সবাই?
আশা করি সবাই ভাল আছেন।

আপনাদের দোয়াতে আমি ও ভাল আছি।

আজকে আপনাদের মাঝে শেয়ার করব আরেকটি টিপস।।

বর্তমান ডিজিটাল যুগে, আমরা এটিএম কার্ড ব্যাবহার৷ করছি অনেকে।

অনেকের সচেতনতার অভাবে এটিএম কার্ড বেশি জালিয়াতি হয়।

আজকে কিছু টিপস দেব আপনাদের যাতে এটিএম কার্ড না জালিয়াতি হয়।

2017 সালে এপ্রিল মাসের তথ্য অনুযায়ী, ভারতে 2,36,199 জন লোক এটিএম কার্ড ব্যবহার করেন।

বাংলাদেশে ও কিন্তু এটিএম কার্ড ব্যাবহার এর পরিমান বেড়েই চলছে।

কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাক কিভাবে এটিএম জালিয়াতি থেকে বাচবেন।

১] আপনার এটিএম এর পিন নম্বর কোনভাবেই কারোর সাথেই শেয়ার করবেন না, সে আপনার যত প্রিয়জনই হোক না কেন।কখনো এ ধরনের ভুল কখনো করবেন না।

২] এটিএম পিন টাইপ করার সময় কিপ্যাড টিকে ভালো করে হাত দিয়ে ঢেকে রেখে টাইপ করুন, যাতে লুকিয়ে কেউ দেখে নিতে না পারে।
আশে পাশে লোকজন থাকলে সজাগ হয়ে পিন টাইপ করবেন।

৩] এটিএম এর পিন নম্বর কোথাও লিখে রাখবেন না । এতে আপনার এটিএম কার্ড জালিয়াতি হওয়ার সম্ভনা থাকে বেশি।

৪] এটিএম মেশিনে কার্ড ঢোকানোর আগে ভালো করে দেখেনিন,সেখানে অন্যকোনো মেশিন লাগানো নেই তো। কোনো কিছু সন্দেহজনক মনে হলেই এটিএম গার্ডের দৃষ্টি আকর্ষণ করুন।এবং এটিএম গার্ডকে অভহিত করুন।

৫] টাকা তোলার পর যতক্ষণ না এটিএম মেশিনের এর স্ক্রিন পুনরায় আগের অবস্থায় ফিরে আসে, ততক্ষন বেরুবেন না।

৬]
আপনার এটিএম কার্ডের নম্বর ও পিছনের সিভিভি কারোর সাথে শেয়ার করবেন না।
ভুলেও কাউকে কোনো ভাবে দেখাবেন না।

৭] কার্ড ব্লক করে দেওয়া হবে বা কার্ডের কেওয়াইসি করতে হবে তাই আপনার পিন নম্বরটি জানতে চেয়ে কোনো মেসেজ এলে কখনোই আপনার পিন বলবেন না।
বিভিন্ন প্রতারক তারা এ ধরনের প্রতারনা করতে ফাত পেতে বসে থাকে।তাই সতর্ক হোন।

৮] তার পর যদি আপনার মনে কোনো সন্দেহ থাকে এটিএম কার্ড নিয়ে, তাহলে ব্যাংক এ যোগাযোগ করুন

আজ এ পযন্ত,

ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জ্ঞান আপনাদের মাঝে তুলে ধরার চেস্টা করি।
পরবর্তী ট্রিক এর জন্য অপেক্ষা করুন, আবারো ভাল কিছু নিয়ে হাজির হবো।
সে পযন্ত ভাল থাকুন,সুস্থ থাকুন।

যে কোনো প্রয়োজনে আমার সাথে ফেসবুকে যোগাযোগ করতে চাইলেঃ- Sk Shipon

ধন্যবাদ

Leave a Reply