হেলেন ২০১৯ মুভি রিভিউ + ডাউনলোড লিংক | মালায়ামের সবচেয়ে আন্ডাররেটেড মুভি।


মুভির নাম – Helen

• ধরণ – Survival Thriller/Drama

• ভাষা – মালায়লাম

• আইএমডিবি (ইন্টারনেট মুভি ডেটাবেস) রেটিং – ৭.৭/১০

• পার্সোনাল রেটিং – ৮/১০

 

হেলেন এই মুভি আসলে মালায়লাম ইন্ডাস্ট্রির। সত্যি বলতে এই ইন্ড্রাস্ট্রি মুভি আমার তেমন একটা দেখা হয় না তাছাড়া এই ইন্ড্রাস্ট্রির মুভিকে জনগণ তেমনভাবে চিনেও না।

 

যার ফলে এর বেশিরভাগ মুভি আন্ডাররেটেড তেমনি হেলেন মুভি মালায়লাম ইন্ডাস্ট্রির মত আন্ডাররেটেড।

 

আমি গ্যারান্টি দিয়ে বলতে পারি যখন আপনি এই মুভি দেখবেন তখন আপনার মধ্যে এক রকম থ্রিলার ভাব কাজ করতে থাকবে।

আবার সেই সাথে কিছু কিছু দৃশ্যে অনেক দুঃখ পাবেন। কেন এই অনুভূতিগুলো হবে সেগুলো পরে বিস্তারিত বলছি।

 

আগে মুভি শুরুর দিক গুলো নিয়ে চলুন আলোচনা করা যাক।

 

★স্ক্রিনপ্লে এবং পরিচালনা★

 

• মুভিটির পরিচালনায় ছিলেন Mathukutty Xavier! 

সত্যি বলতে গেলে তার পরিচালনা মোটামুটি ভাল ছিল, একদম নিখুঁত এর মত। তাছাড়া স্ক্রীনপ্লে তে কোন কিছুর কমতি ছিল না। মুভি দেখার সময় আপনি ভুল ধরতে পারবেন না এতোটুকু সিওর।

 

★অভিনয়★

 

মুভিতে ফিমেল ক্যারেক্টার যে অভিনয় করেছে সে খুবই অসাধারণ ভাবে তার অভিনয় স্ক্রিনে ফুটিয়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে বিশেষ করে যখন সে ফ্রিজের মধ্যে বন্ধ ছিল তখন সে যে এক্সপ্রেশন দিয়েছে তাতে কারো মনে হবে না যে তার শীত লাগছে না।

এতটাই নিপুণভাবে অভিনয় করেছে সে। ওই সময় সে যে পারফরম্যান্স করেছিল তা আপনাকে অবশ্যই মুগ্ধ করবে। আর সাইট ক্যারেক্টার হিসেবে যারা ছিলেন তাদের পারফরম্যান্স চোখে পড়ার মতো সুন্দর ছিল।

বিশেষ করে সিকিউরিটি গার্ডের চরিত্রে যে ছিল তাঁর অভিনয় দেখে আপনি সব চাইতে বেশি সন্তুষ্ট হবেন।

 

অন্যান্য মুভিতে মেকআপ নিয়ে যেমন আলোচনা হয় না কারণ সেই মুভিগুলোতে মেকাপের তেমন ভূমিকা থাকে না। কিন্তু এই মুভিতে মেকাপের খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে কারণ হেলেন মেয়েটি যখন ফ্রিজার এর মধ্যে আটকা পড়েছিল তখন ঠান্ডা তাপমাত্রা তার নাক কান লাল হওয়ার বা অন্যান্য পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া যে দৃশ্য গুলো ছিল তা একেবারেই রিয়ালিস্টিক লেগেছে আমার কাছে।

 

আপনার মনে হবে না এগুলো কোন মেকআপ আর্টিস্ট দিয়ে করা হয়েছে মূলত মেকাপ খুব সুন্দর রিয়ালিস্টিক ভাবে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে মুভিতে।

 

★প্লট★

 

এই কথাটা আপনাকে অবশ্যই অবাক করবে যে এই মুভিটি সত্য ঘটনার উপর নির্মিত। তবে আসল কাহিনী আর মুভিতে দেখানো কাহিনীর মধ্যে তেমন কোনো পরিবর্তন নেই প্রায় সেম।

 

শুরুতে দেখা যায় হেলেন তার বাবার সাথে বাড়িতে থাকে। সে পড়াশোনা করেছে তার পাশাপাশি এক রেস্টুরেন্টে কাজ করছে তার হাত খরচ চালানোর জন্য। তার বয়-ফ্রেন্ড আছে যার সাথে টুকটাক সময় কাটানোর মাধ্যমে তার দিন চলে যায়।

 

তবে মূল ঘটনা ঘটে একদিন রাতে যখন রেস্টুরেন্টের কাজ শেষ হওয়ার পর ফ্রিজারে রুমে যাওয়ার পর রেস্টুরেন্টের মালিক তার অজান্তেই ফ্রিজার তালাবদ্ধ করে বাসায় চলে যায় আটকা পড়ে যায় সেই ফ্রিজের মধ্যে হেলেন।

প্রচন্ড ঠান্ডা কনকনে এক ফ্রিজে হেলেন একা আটকা পড়ে আছে। তারপর কি হয় সেটা দেখার জন্য আপনাকে মুভিটি দেখতে হবে।

 

সেকি সার্ভাইভ করে বেঁচে থাকতে পারবে নাকি মারা যাবে সেটা জানতে অবশ্যই আপনাকে সম্পূর্ণ মুভি দেখতে হবে।

 

একটা কথা বলে রাখি মুভি যত আগাবে আপনি তত থ্রিলিং পাবেন একসাথে আপনি কষ্ট পাবেন হেলেন এর পরিবারের জন্য যারা তাকে খুঁজে খুঁজে অস্থির হয়ে যাচ্ছিল।

 

 

তাছাড়া মিউজিক নিয়ে কথা বলতে গেলে আমার কাছে অনেক ভালো লেগেছে। বিশেষ করে ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক।

 

চাইলে আপনি এই থ্রিলার মুভি দেখে নিতে পারেন নিচের দেওয়া লিংকে ক্লিক করে।

 

Download Link: Click Here

 

স্ক্রিনশট




Credit -> Amartips.Mobi.

Leave a Reply