কিডনি ভাল রাখার ৮ টি উপায়, আমাদের সবার জানা উচিৎ।

আসসালামুআলাইকুম। ও হিন্দু ভাইদের জানাই আদাব। আশা করি সবাই অনেক ভাল আছেন।
প্রতিবারের মতো আবারো আপনাদের মাঝে আরেকটি আর্টিক্যাল নিয়ে হাজির হলাম।টাইটেল দেখে হয়তো সবাই বুঝে গেছেন,আজকে কোন বিষয় নিয়ে পোস্ট করতে যাচ্ছি।
কিডনি একটা মানুষের খুব ই গুরুত্বপূর্ণ একটি পার্টস বললেই চলে। কারন কিডনি আমাদের রক্ত ফিল্টার করে৷ মূত্রের পরিমান নিয়ন্ত্রন করে। একটা মানুষের কিডনি খুব ই দরকার।কিডনি ছাড়া কোনো মানুষ বেচে থাকতে পারে না৷ তাই কিডনির গুরুত্ব অপরসীম। আমাদের অবহেলা ও অযত্নের কারনে আমাদের কিডনি নস্ট হতে বসে। তাই আমদের কিডনি ভাল রাখার জন্য কিছু দিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। আজকে আমি এ বিষয় গুলো নিয়ে আলোচনা করব। আজকের বিষয়গুলো ফলো করলে আশা করি আপনাদের কিডনি অনেক ভাল থাকবে।
কথা না বাড়িয়ে শুরু করা যাকঃ

১]] সচল থাকুন, সক্রিয় থাকুন!
আমাদের ব্যায়াম,খেলাধুলা হাটাহাটি,করা, এবং প্রেসার কন্ট্রোল এ রাখা। এবং আমাদের ভাবতে হবে ডায়াবেটিস যেন না হয়।
কারন ডায়াবেটিস থেকে ই সাধারণত কিডনির সমস্যা দেখা দেয়।
আমাদের মাঝে মাঝে উচিৎ ডায়াবেটিস ও প্রেসার পরিক্ষা করা। এবং ডাক্তার এর পরামর্শ অনুযায়ী চলা। কারন আমাদের কিডনি আমাদের কাছে অনেক গুরুত্বপূর্ণ।

২] প্রতিবছর কিডনি চেক করানোঃ

যারা কিডনির সমস্যায় বেশি ঝুকিতে আছে, বা যাদের বয়স ৬০ এর বেশি। এবং যাদের ডায়াবেটিস আছে, উচ্চ ব্লাড প্রেসার আছে যাদের। ও যাদের মেদ বেশি, তাদের উচিৎ প্রতিবছর একবার করে হলে ও কিডনি চেক করানো। কারন উক্ত সমস্যা গুলো থাকলে কিডনির সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই আমাদের এ দিকে ভালভাবে লক্ষ্য রাখতে হবে।

৩] পেইনকিলার বেশি দিন নেবেন নাঃ

অনেকদিন ধরে ব্যাথার ঔষুদ খেলে কিডনির সমস্যা দেখা দিতে পারে। অনেক দিন হলে কিডনির সমস্যা থাকলে, বাজারে পাওয়া যায় এমন পেইনকিলার নিলে অনেক বেশি সমস্যা হতে পারে। এদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। তাই পেইনকিলার বেশিদিন নেয়া উচিৎ না। ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী চলা উচিৎ ও পেইনকিলার নেয়া উচিৎ ।

৪] পর্যাপ্ত পরিমান পানি খাবেনঃ

শরীর থেকে হানিকর পদার্থ বের করে দেয়ার জন্য কিডনিতে পানির অনেক দরকার।এজন্য দিনে এক থেকে দেড় লিটার পানি খাওয়া দরকার। ক্রীয়াবিদদের আরো বেশি পানি দরকার। আমাদের শরীরের ৭০ ভাগ ই পানি। তাই পানি আমাদের শরীরের জন্য অনেক অনেক গুরুত্বপূর্ণ। তাই আমাদের পানি পান করা উচিৎ।

৫] ধূমপান ছাড়ুনঃ

ধূমপান করলে আমাদের কিডনির অনেক ক্ষতি হয়। ব্লাড ভেসেল এর সব চেয়ে বেশি ক্ষতি করে এই ধূমপান৷ তাছাড়া ধূমপান তো স্বাস্থের জন্য ক্ষতিকর। তাই আমাদের ধূমপান এই বদ অভ্যাস আমাদের বাদ দিতে হবে।

৬] ব্লাড সুগার চেক করানঃ

ব্লাড সুগারের লেভেল স্টেডি থাকা চাই।উচ্চ ব্লাড সুগার কিডনির ভিতরের ব্লাড এর সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে৷ যার কারনে আমাদের কিডনির অনেক বড় সমস্যা দেখা দিতে পারে।এদিকে আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে।আমাদের নিয়মির ব্লাড সুগার চেক করানো দরকার।

৭] স্বাস্থকর খাবার খাবেনঃ

স্বাস্থকর খাবার আমাদের দেহের জন্য খুব ই গুরুত্বপূর্ণ। তাই আমাদের ফলমূল, শাক- সবজি বেশি করে খাওয়া উচিৎ। আমাদের একটা বিষয় লক্ষ্য রাখতে হবে,লবন আমাদের কিডনি ক্ষতি করে৷ তাই আমাদের কিডনি ভাল রাখতে স্বাস্থকর খাবার আমাদের খাওয়া উচিৎ।

৮] ব্লাড প্রেসার এর খেয়াল রাখুনঃ

ব্লাড প্রেসার আমাদের কিডনিতে অনেক প্রভাব ফেলে।
ব্লাড প্রেসার হলে কিডনির ভিতরে সমস্যা দেখা দেয়। উচ্চরক্ত চাপ হলে ও কিডনির সনস্যা দেখা দিতে পারে। তাই আমাদের ডাক্তার এর পরামর্শ মোতাবেক চলা উচিৎ।

উক্ত দিকগুলো আমাদের সবার মেনে, সতর্কতার সহিত চলা উচিৎ।

টেকনিক্যাল বিষয়ে যাবতীয় ভিডিও ও সমাধান পেতে আমাদের ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুনঃ

Youtube Channel

আজ এ পযন্ত,

ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জ্ঞান আপনাদের মাঝে তুলে ধরার চেস্টা করি।
পরবর্তী ট্রিক এর জন্য অপেক্ষা করুন, আবারো ভাল কিছু নিয়ে হাজির হবো।
সে পযন্ত ভাল থাকুন,সুস্থ থাকুন।

যে কোনো প্রয়োজনে আমার সাথে ফেসবুকে যোগাযোগ করতে চাইলেঃ- Sk Shipon

ধন্যবাদ

Leave a Reply